২২ জুলাই ২০১৯

দেশের মাটিতে স্মরণীয় বিদায় হবে মাশরাফির : পাপন

-

লন্ডনে সংসদীয় বিশ্বকাপে খেলতে গিয়ে সাংবাদিকদের নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘দেশের মাটিতে শেষ ম্যাচ খেলেই আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে অবসর নেবে জাতীয় দলের অধিনায়ক। মাশরাফিকে দেশের মাটিতে স্মরণীয় বিদায় দেয়ার চিন্তাভাবনা করছি। আমরা একটি সিরিজ এমনভাবে আয়োজন করব, যাতে সে দেশের মাটিতেই বীরের মতো বিদায় নিতে পারে।’
এ দিকে র্যাংকিং নিয়েও কথা বলেন পাপন। আইসিসি র্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ উঠেছিল ৭ নম্বর পর্যন্ত। তবে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে দিয়েছেন, এবার তাদের লক্ষ্য র্যাংকিংয়ে চার কিংবা পাঁচ নম্বরে উঠে আসা। এ জন্য যা যা করা প্রয়োজন তার সবই করতে চান তারা।
ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ খেলে ফেলা মাশরাফি ওয়ানডে থেকে কবে অবসর নেবেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল বিশ্বকাপের সময়ই। চলতি বিশ্বকাপের আগে বোলিংয়ে বাংলাদেশের অন্যতম ভরসা ছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি; কিন্তু বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। তাতেই সব কিছু ওলটপালট। বোলিংয়ে উইকেট পাননি, রান খরচে কৃপণতা দেখাতে পারেননি। শুরু হয় তাকে নিয়ে সমালোচনা। তার বোলিং, অধিনায়কত্ব নিয়ে ওঠে প্রশ্ন। লর্ডসে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের পর সরাসরি তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চেয়েছিল গণমাধ্যম। মাশরাফি পাশ কাটিয়ে বলেছিলেন, ‘আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হবে দেশে ফিরে।’
মাশরাফি নিজের ভবিষ্যৎ ভাবনা ভাগাভাগি করেননি সংবাদ সম্মেলনে। পুরস্কার বিতরণী মঞ্চেও তাকে একই প্রশ্ন করেছিলেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার রমিজ রাজা। রাজনীতিতে জড়ানো, বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ, ফর্ম; সব মিলিয়ে মাশরাফি তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার কোথায় দেখছেন? সেখানেও মন খুলে উত্তর দেননি। শুধু বলেছিলেন, ‘দেশে ফিরে ভাবব।’
বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অভিযান শেষে শুধু মাশরাফির জন্যই বিসিবি একটি সিরিজের আয়োজন করবে। স্বয়ং বিসিবি সভাপতির মুখেই শোনা গেল এমন কথা। মাশরাফির ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলার পাশাপাশি বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসানের প্রশংসাও করেন পাপন, ‘বাংলাদেশের ক্রিকেটে দু’টি বড় চরিত্র। এক, মাশরাফি সর্বশ্রেষ্ঠ অধিনায়ক। দ্বিতীয়, সাকিব আল হাসান সর্বকালের সেরা পারফরমার। সেই সেরা অধিনায়ককেই আমরা চেষ্টা করব দেশের মাটিতে সেরা বিদায়ের ব্যবস্থা করতে এবং সেটি যেন স্মরণীয় হয়ে থাকে।’
লন্ডনের অদূরে সংসদীয় বিশ্বকাপের খেলা দেখতে এসে জানিয়েছেন আগামী দিনে নিজেদের লক্ষ্যের কথা। একই সাথে সাকিব-তামিমদের জন্য সম্ভাব্য সেরা কোচ বাছাই করার কথাও জানান তিনি। নিজেদের লক্ষ্যের কথা জানাতে গিয়ে পাপন বলেন, ‘এখন আমাদের লক্ষ্য চার-পাঁচে উঠে আসা। এত দিন ছিল সাত-আট। এই চার-পাঁচে উঠে আসতে যা যা প্রয়োজন আমরা তাই করব। শুধু নতুন একজন কোচের দিকে তাকিয়ে থাকা যাবে না। এখন আমাদের ভাবনায় অস্ট্রেলিয়া টি-২০ বিশ্বকাপ, যা করব ভেবেচিন্তেই করব এবং যাকে দিয়ে কাজ হবে তাকেই নেব।’
কোচ নিয়োগ নিয়ে পাপন আরো বলেন, ‘নতুন কাউকে-না পুরনো কাউকে সেটি এখনই বলা যাচ্ছে না। নতুন-পুরনোর ব্যাপার না। আমরা এখন থেকে চার-পাঁচ নম্বরে উঠতে চাই এবং টি-২০ বিশ্বকাপেও ভালো করতে চাই। যে ফরম্যাটে আমরা কোনো সময়ই ভালো খেলি না। এখন আমাদের লক্ষ্য উপরে ওঠা এবং টি-২০ ফরম্যাটে ভালো খেলা। এ জন্য যাকে প্রয়োজন তাকে নেব। নতুন পুরনো প্রশ্ন নয়।’


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi