১৭ জুলাই ২০১৯

আবার দলবদল পেছানোর পাঁয়তারা

-

কবে হুঁশ হবে বাংলাদেশের ফুটবল ক্লাবগুলোর? সবচেয়ে বাজে উদাহরণও এবারই। এই ক্লাবগুলোর অনড় অবস্থানের কারণে এবারের ফুটবল মওসুম যথাসময়ে শুরু হয়নি। অনেক বিলম্বে ফুটবল মাঠে গড়ানোর ফলে সময়মতো শেষ করা যায়নি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ। যার সূত্র ধরে এবারের এএফসি কাপে দু’টির বদলে একটি ক্লাব প্রতিনিধিত্ব করতে পেরেছে। অথচ আগের দুই আসরে প্লে-অফ কোয়ালিফায়ার্স ও গ্রুপ পর্ব মিলে দু’টি দলের প্রতিনিধিত্ব ছিল। এই দেরিতে লিগ শুরু হওয়ায় আবার বৃষ্টির সময়ে চলছে খেলা। এই বৃষ্টির কারণে গতকাল ময়মনসিংহে আরামবাগ ও বসুন্ধরা কিংসের খেলা পরিত্যক্ত হয়েছে। দল বদল পেছালে বিদেশী ফুটবলার নেয়ার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক শিডিউল অনুসরণ করা যায় না। তখন ভালো মানের বিদেশীও জোটে না। অথচ এর পরও এবারের পূর্বঘোষিত দলবদলের তারিখ পেছাতে এক জোট হচ্ছে ক্লাবগুলো। বাফুফের গত সভায় ১৬ আগস্ট থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর এবারের বিপিএলের দলবদলের তারিখ নির্ধারিত হয়। এই সময়ে দলবদল হলে যথাসময়ে ফেডারেশন কাপ এবং লিগ শুরু ও সম্পন্ন করা সম্ভব। কিন্তু এখন ক্লাবগুলো চাইছে এই দলবদল পেছাতে। এ জন্য আজ সভায় বসছে তারা।
এই সভার ও অ্যাজেন্ডার কথা স্বীকার করে চট্টগ্রাম আবাহনীর টিম লিডার শাকিল মাহমুদ চৌধুরী জানান, ‘আমরা জানি দলবদল পেছালে কী কী সমস্যা হয়। এবার তো এই কারণেই এএফসি কাপে দুটোর বদলে একটি ক্লাব খেলার সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু একটি লিগ শেষ হওয়ার আগে আরেকটি লিগের দলবদলের তারিখ ঘোষিত হওয়ায় ফুটবলারদের মধ্যে বর্তমান ক্লাবের পক্ষে সিরিয়াসলি খেলার আগ্রহে ভাটা পড়েছে। তারা পা বাঁচিয়ে নতুন ক্লাবে যোগ দিনেই মনযোগী।’ তার মতে, যুক্তি আসলে দুই দিকেই আছে। এর পরও সব কিছুর সমন্বয়ে একটি সিদ্ধান্ত চাই।’ সাইফ স্পোর্টিংয়ের এমডি ইঞ্জিনিয়ার নাসির উদ্দিন চৌধুরী জানান, আমি কোনোভাবেই শিডিউল পরিবর্তনের পক্ষে নই। তবে আগেভাগে দলবদলের তারিখ ঘোষণা হওয়ায় ফুটবলাদের নিয়ে বেশ ঝামেলায় পড়ে গেছি। এরা নতুন দলে যোগদানের জন্য বর্তমান ক্লাবে মনোযোগ দিয়ে খেলছে না। মূল কথা এরা কেউই পেশাদার নয়। টাকা পকেটে গেলেই মনে হয় তাদের দায়িত্ব শেষ।

 


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi