২৪ জুলাই ২০১৯

সমালোচনার কড়া জবাব দিলেন তামিম

-

‘একাদশে থাকার যোগ্য নন মাশরাফি’Ñ ভারতীয় সাবেক পেসার অজিত আগারকারের এই মন্তব্যের পর বাংলাদেশের কিছু মানুষও মেতেছিলেন অধিনায়কের সমালোচনায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব সমালোচনার কিছুটা চোখে পড়েছে তামিম ইকবালের। তাতে মাশরাফিকে নিয়ে লেখা এসব সামলোচনার কড়া জবাব দিলেন এই ড্যাসিং ওপেনার। কিছু লেখা বা বলার আগে বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য মাশরাফি বিন মর্তুজার অবদানের কথা একটু স্মরণ করতে বললেন।
বিশ্বকাপে শুরুর তিন ম্যাচে প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স করতে পারেননি তামিম নিজেও। সমালোচনা থেকে দূরে নন এ ওপেনারও। নিজের কথা না ভাবলেও বিশ্বকাপের মাঝপথে মাশরাফিকে নিয়ে সমালোচনায় মর্মাহত তামিম। টনটনের সামারসেট কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব মাঠে ব্যাটিং অনুশীলনের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে অনেক কথাই বললেন মাশরাফি প্রসঙ্গে, ‘কথাটা বলে কারা সেটা গুররুত্বপূর্ণ। কারা কথা বলছে? আমি আমার কথা বাদ দেই। মাশরাফি ভাইয়ের কথাই বলি। আমি কোনো একটা সাক্ষাৎকারে বলছিলাম, ধরেন যারা এই কথাটা লিখছে বা যারা এই আলোচনা করছে তারা যদি ওই লেখাটা লেখার আগে বা ওই কথাটা বলার আগে দুটো মিনিট চিন্তা করে যে, আমি কার ব্যাপারে বলছি। সে (মাশরাফি) কত কিছুই না করেছে শেষ ১৫-১৬ বছর ধরে বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য।’
তিনি আরো বলেন, ‘এখন ধরেন সে আনফিট! যদি আনফিটের কথা বলতে হয় সে ১০ বছর ধরেই আনফিট। তার দুটো হাঁটু তো কোনো সময়ই ভালো ছিল না। তখন কিন্তু আমরা সেটা আবেগ দিয়ে দেখেছি। এখন হয়তো বা পারফরম্যান্সে একটু উনিশ-বিশ হচ্ছে, আমরা এটাকে অনেক বড় করে দেখছি। এমন একজন ব্যক্তির ব্যাপারে আমরা বলছি যে, ওই ব্যক্তির হাত ধরেই আজ কিন্তু আমাদের এখানে আসা। দল হিসেবে তো বটেই। আমার নিজেরও। এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক মনে হয় আমার কাছে। কারণ উনি যা করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য বাংলাদেশে ক্রিকেটকে এখানে আনার জন্য। উনার ব্যাপারে এভাবে মন্তব্য করা বা এভাবে আলোচনা করা সত্যিই খুব দুর্ভাগ্যজনক। সে অনেক বেশি সম্মান পাওয়ার যোগ্য। সে যা দিচ্ছে! কিছু কিছু বিদেশী মানুষ বলেছে আমি শুনেছি। তো উনারা নিজেদের জীবনে কী করেছেন? সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হলো এটি। ওনারা নিজেদের জীবনে কী করেছেন যে একটা মানুষকে নিয়ে এভাবে বলা! দেশের বাইরের মানুষ কী বলছেন এটি নিয়ে ভাবছি না। সবাই মতামত দিতে পারেন। কিন্তু দেশের মানুষের এটি বোঝা উচিত আমি যখন মাশরাফির ব্যাপারে বলছি। তখন মাশরাফির দেশের প্রতি অবদানের কথা চিন্তা করা উচিত।’
সমর্থকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তামিম বলেন, ‘দুধের মাছি না হয়ে খারাপ সময়েও খেলোয়াড়দের পাশে থাকতে এবং ছন্দে ফিরতে উৎসাহ জোগাতে। একজন খেলোয়াড়ের জীবনে দুটো পার্ট থাকে। ভালো খেলবেন নয়তো ভালো খেলবেন না। খালি আপনি ভালো খেললেই সাথে থাকবেন এমন না, খারাপ খেললেও সাথে থাকতে হবে। মেগা ইভেন্টে প্রত্যেক খেলোয়াড়ই ভালো খেলে না। যে টিম চ্যাম্পিয়নও হবে তাদের ১১ জন খেলোয়াড়ই কিন্তু ভালো খেলবে না। কিছু খেলোয়াড় ফর্মে থাকবে, কিছু থাকবে না। মাশরাফি ভাই টিমের জন্য কত কিছু করেছেন সেটি আমাদের মনে রাখা উচিত।’

 


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi