১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাংলাদেশকেও এগিয়ে রাখছেন আশরাফুল

-

এশিয়া কাপের বিশ্লেষণ শুরু হয়েছে আগেই। সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত এ আসরে কে ফেবারিট সেটা নিয়েই ওই বিশ্লেষণ। যেহেতু ওয়ানডে ম্যাচ, ফলে প্রতিটা দলই প্রায় সমশক্তির। কেউ একটু ভুল করলে সেটা কাউন্ট করে এগোতে পারলে প্রতিপক্ষ দল অ্যাডভান্টেজ পায়। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কার সাথে বাংলাদেশ। কেউ কাউকে ছেড়ে দেয়ার নয়। প্রতিটা দলই খেলছে দুর্দান্ত ক্রিকেট। এর পরও যে বিশ্লেষণ হচ্ছে তাতে পাকিস্তানকে এগিয়ে রাখছেন কেউ কেউ। তার মধ্যে মোহাম্মাদ আশরাফুল একজন। বাংলাদেশকেও তিনি রেখেছেন সম্ভাবনার মধ্যে। গতকাল মিরপুর শেরেবাংলায় সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছেন কেন তিনি পাকিস্তানকে এগিয়ে রেখেছেন সেটা। দীর্ঘ দিন ধরেই পাকিস্তানের হোম ভেনু সংযুক্ত আরব আমিরাত।
২০০৯ এ লাহোরে শ্রীলঙ্কা দলের ওপর হামলার পর থেকে পাকিস্তানে আর হচ্ছে না আন্তর্জাতিক ম্যাচ। ফলে তারা হোম ভেনু হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভেনু ব্যবহার করছেন। এতে করে ওই স্থানের খুঁটি-নাটি তাদের নখদর্পণে। এরপর রয়েছে গ্যালারির বিশাল সাপোর্ট। যার অধিকাংশ পাকিস্তানেরই। আশরাফুল বলেন, ‘যেহেতু আরব আমিরাতে খেলা, এটা পাকিস্তানের হোম ভেনু। কন্ডিশনটাও তাদের খুব পরিচিত। তাই পাকিস্তানই এগিয়ে থাকবে। এ ছাড়া সম্প্রতি ভালো ক্রিকেট খেলে আসছে। এতে আমার মনে হচ্ছে অবশ্যই পাকিস্তান একটু এগিয়ে থাকবে।’ সর্বশেষ ২০ ম্যাচের পরিসংখ্যানে পাকিস্তান বাজে খেলেছে নিউজিল্যান্ড সফরে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজের প্রতিটাতেই তারা হেরে এসেছে। এ ছাড়া বাকি ১৫ ম্যাচের ১৪টিতেই তাদের রয়েছে জয়। যার মধ্যে লন্ডনে অনুষ্ঠিত গত বছরের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও রয়েছে। ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে জিতেছিল শিরোপা। সর্বশেষ জিম্বাবুয়ে সফরের পাঁচটি ওয়ানডেতেও জিতেছে তারা বড় ব্যবধানে।
তবে বাংলাদেশকেও তিনি মোটেও পিছিয়ে রাখছেন না। তার প্রধান কারণ সাম্প্রতিককালের পারফরম্যান্স। বেশ কিছুদিন ধরেই বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেটে সফলতা নিয়ে এগিয়ে চলছে। এর সর্বশেষ উদাহরণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সিরিজ জয়। তিনি বলেন, ‘ওয়ানডেতে আমরা অসাধারণ ক্রিকেট খেলে আসছি, শেষ ৪-৫ বছর। এ ফরম্যাটে আমরা ভালো দল। এশিয়া কাপে আমরা দুইবার ফাইনাল খেলেছি। এবার আমাদের সবার স্বপ্ন আমরা চ্যাম্পিয়ন হবো। সে জন্য ম্যাচ বাই ম্যাচ সবাই চেষ্টা করবে দল, ভালো খেলার। সিনিয়ররা যদি ভালো ক্রিকেট খেলে আর জুনিয়ররা যদি ভালো ক্রিকেট খেলতে পারেন, তাহলে আমি মনে করি বাংলাদেশেরও ভালো সম্ভাবনা আছে।’ তিনি অবশ্য বাংলাদেশের ভালো করার পেছনে কিছু পূর্বশর্তও জুড়ে দিয়েছেন। বিগত বেশ কিছু পরিসংখ্যানের দিকে তাকালে দেখা যাবে কোনো টুর্নামেন্ট শুরুতে সূচনা ম্যাচের গুরুত্ব অনেক। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রথম ম্যাচটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। শ্রীলঙ্কার সাথে আমরা পরিস্থিতিটা যদি আমাদের পে রাখতে পারি, তাহলে আমাদের জন্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ সহজ হয়ে যাবে। যদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে জয়টা অনুকূলে না রাখতে পারি তাহলে সব কিছুই একটু কঠিন হয়ে যাবে।’
এ দিকে বাংলাদেশ দল একটু আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পৌঁছে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছে। ব্যাটিং পরামর্শক নেইল ম্যাকেঞ্জি। হেড কোচ স্টিভ রোডসের সাথে কোর্টনি ওয়ালশসহ সাপোর্টিং স্টাফও খেলোয়াড়দের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে সহায়তা করছেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ১৫ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

 


আরো সংবাদ