১৩ নভেম্বর ২০১৮

সবার আগে বাহরাইন

-

দেশের ফুটবলপ্রেমীদের জন্য আন্তর্জাতিক ম্যাচ সরাসরি মাঠে বসে দেখার এর চেয়ে ভালো সময় আর কী হতে পারে। একের পর এক ম্যাচ ও টুর্নামেন্ট। একসময় তাদের মুখে বিরক্তিকর শব্দও বরে হতে পারে, ‘আর কত আন্তর্জাতিক ম্যাচ।’ ১৫ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে শেষ হচ্ছে সিনিয়র পুরুষ সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ। ঠিক ওই দিনই কমলাপুর স্টেডিয়ামের মাঠে গড়াচ্ছে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা ফুটবলের বাছাই পর্ব। এই আসর শেষ না হতে হতে ১ অক্টোবর শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল। এ দিকে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা ফুটবল খেলতে সবার আগে বাংলাদেশে এসেছে বাহরাইন। গতকাল সকালে ঢাকায় আসে তারা। আসরের অতিথি বাকি তিন দল আজ চলে আসবে। দলগুলো হলোÑ ভিয়েতনাম, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও লেবানন।
১৫ সেপ্টেম্বর কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ভিয়েতনামের ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে আসর। ওই দিন বিকেলে লেবাননের প্রতিপক্ষ বাহরাইন। আসরের ২০১৬ সালের গ্রুপ পর্বের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ ১৭ সেপ্টেম্বর বেলা সাড়ে ৩টায় তাদের প্রথম ম্যাচ খেলবে বাহরাইনের বিপক্ষে। ১৯ তারিখের প্রতিপক্ষ লেবানন। এ ছাড়া ২১ তারিখে সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ২৩ তারিখে ভিয়েতনামের বিপক্ষে খেলবে। এফ গ্রুপে ফেবারিট বাংলাদেশ। তবে তাদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারে ভিয়েতনাম। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে বাংলাদেশ ঢাকায় ইরান, চায়নিজ তাইপে, সিঙ্গাপুর, কিরঘিজস্তান এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে গ্রুপ সেরা হয়। যার ফলে চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে লাল-সবুজ মেয়েরা।
এবার ৬ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং ৬ গ্রুপের সেরা দুই রানার্সআপ দল যাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে। দ্বিতীয় রাউন্ডের আট দল দুই ভাগে বিভক্ত। এই দুই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন এবং রানার্সআপ দল চূড়ান্ত পর্বে খেলার ছাড়পত্র পাবে। এই চার দলের সাথে গত আসরের সেরা তিন দল এবং চূড়ান্ত পর্বের স্বাগতিক দল খেলবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের জন্য। চূড়ান্ত পর্বের ভেনু এখনো ঠিক হয়নি। চূড়ান্ত পর্বের সেরা তিন দল খেলার সুযোগ পাবে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপে। চূড়ান্ত পর্বের স্বাগতিক দল যদি প্রথম দফা বাছাই পর্বে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন বা দুই সেরা রানার্সআপের একটি হয় তাহলে ওই গ্রুপের পরের স্থান পাওয়া দল যাবে দ্বিতীয় রাউন্ডে।


আরো সংবাদ