২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ঢাকা ও চট্টগ্রামে অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ

২৯ সেপ্টেম্বর শুরু, অংশ নেবে ৮ দল
-

২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রামে শুরু হচ্ছে অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ ক্রিকেট। এ আসরে অংশ নেবে এশিয়ার আট দল। দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে লড়বে দলগুলো। গ্রুপ ‘এ’তে আছে ভারত, আফগানিস্তান, নেপাল ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। গ্রুপ ‘বি’তে আছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও হংকং। ‘এ’ গ্রুপ প্রথম রাউন্ড খেলবে ঢাকায়। খেলাগুলো হবে বিকেএসপি ৩ ও ৪ মাঠে। চট্টগ্রামের খেলা হবে জহুর আহমেদ চৌধুরী ও এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে। এরপর দুই গ্রুপ থেকে দু’টি করে উঠবে সেমিফাইনালে। দু’টি সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরেবাংলায়। আগামী ৪, ৫ ও ৭ অক্টোবর হবে শেষের ম্যাচ তিনটি।
এশিয়া কাপের মূল আসর শুরু হতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। ওই আসরের পরপরই শুরু হবে এ আসর। বড়দের আসরে খেলবে ছয় দল। কিন্তু ছোটদের আসরে সেখানে রয়েছে আটটি। অর্থাৎ সংযুক্তর আরব আমিরাত ও নেপাল দল খেলবে অনূর্ধ্ব-১৯ এ।
এ দিকে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল পড়েছে কঠিন গ্রুপে। সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইটাই তাদের জন্য কঠিন হয়ে যাবে। বিশেষ করে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের একটি দলকে পেছনে ফেলেই উঠে যেতে হবে সেমিতে। অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে দু’টি দেশই বেশ শক্তিশালী। বাংলাদেশও পিছিয়ে নেই। তবু চ্যালেঞ্জটা বেশ থাকবে বাংলাদেশ দলের। সে তুলনায় গ্রুপ ‘এ’ দলে থাকা ভারত ও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তান অনেক নির্ভার। সেখানে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও নেপাল সেভাবে বাধাই নয় তাদের।
২৯ সেপ্টেম্বর প্রথম দিনে বাংলাদেশের উদ্বোধনী দিনে খেলবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। মূল আসরেও একই প্রতিপক্ষ মাশরাফিদের। একই দিন চারটি ম্যাচ। আফগানিস্তান-ইউএই, ভারত নেপাল ও পাকিস্তান হংকং খেলবে পরস্পরের বিপক্ষে। ফলে বাংলাদেশ সূচনা দিনেই চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। কারণ সূচনা দিনে শ্রীলঙ্কাকে হারাতে পারলে অ্যাডভান্টেজে থাকবে। নতুবা পেছনে পড়তে হবে। জহুর আহমেদে খেলা তাদের। পহেলা অক্টোবর বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের দ্বিতীয় ম্যাচ পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ এর বিপক্ষে। এটাও জহুর আহমেদে। ২ অক্টোবর গ্রুপের শেষ ম্যাচ হংকংয়ের বিপক্ষে। ফলে রান রেট বাড়ানো বা অন্য কোনো অ্যাডভান্টেজ নেয়ার প্রয়োজন পড়লে সেটা সেরে নিতে পারবে তারা দুর্বল প্রতিপক্ষের বিপক্ষে।
উল্লেখ্য, এটা অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের পঞ্চম আসর। এর আগে ২০১২তে মালয়েশিয়া, ২০১৩-১৪ সালে হয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে, ’১৬তে শ্রীলঙ্কায় ও সর্বশেষ ২০১৭তে অনুষ্ঠিত হয়েছিল মালয়েশিয়াতে। এর মধ্যে প্রথমবার ফাইনাল ম্যাচ টাই হওয়ায় পাকিস্তান-ভারতকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়েছিল। এরপরের দুই আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। শেষ আসরে পাকিস্তানকে হারিয়ে নতুন চ্যাম্পিয়ন হয় আফগানিস্তান। ওই আসরের ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৩ রানে পাঁচ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানকে ৬৩ রানে অল আউট করার
নায়ক মুজিবুর রহমান এবার খেলছেন মূল দলে। ওই আসরে ম্যান অব দ্য সিরিজ হয়েছিলেন ওই আফগান ক্রিকেটার।

 


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme