film izle
esans aroma Umraniye evden eve nakliyat gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indirEzhel mp3 indir, Ezhel albüm şarkı indir mobilhttps://guncelmp3indir.com Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien webtekno bodrum villa kiralama
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

শীতে ঠোঁটের সুরক্ষা

মডেল : নীহারিকা হায়দার, ছবি : আসিফ নুর -

ঠোঁটের জন্য শীতকাল বছরের সবচেয়ে কঠিন সময়। ঠাণ্ডা থেকে বাঁচতে আমরা সারা শরীর ঢেকে রাখি, কিন্তু ঠোঁট কখনোই ঢাকা হয় না। অথচ হাত বা মুখের ত্বকের চেয়ে ঠোঁটের ত্বক ১০ গুণ বেশি তাড়াতাড়ি আর্দ্রতা হারিয়ে ফেলে। ঠোঁটে খুব কম তৈলগ্রন্থি থাকে, তা ছাড়া ঠোঁটের ত্বকে সূর্যরশ্মিকে ফিল্টার করে মেলানিন তৈরি করে ত্বককে রক্ষা করার ক্ষমতাও নেই। ঠোঁট ফেটে যাওয়া ও ঠোঁটের চামড়া ওঠা খুবই যন্ত্রণাদায়ক দু’টি সমস্যা। এই সমস্যাগুলোর সেরা সমাধান হলো ঠোঁটের ত্বকের পুষ্টি ও ময়েশ্চার নিশ্চিত করা। ঠোঁট একবার ফেটে গেলে তা রাতারাতি ঠিক করা খুবই কঠিন। কিন্তু একটু যতœবান হলে কয়েকদিনের মাঝেই ঠোঁটের হারানো সৌন্দর্য ও স্বাস্থ্য ফিরে পাওয়া সম্ভব।
প্রথমেই জেনে নেয়া যাক ঠোঁট ফেটে যাওয়া ও ঠোঁটের চামড়া ওঠার কিছু কারণ। আবহাওয়া একটি বড় কারণ ঠোঁট ফেটে যাওয়া ও ঠোঁটের চামড়া ওঠার। শুষ্ক ও ঠাণ্ডা আবহাওয়া, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি, প্রবল বাতাস ইত্যাদির সংস্পর্শে এলে ঠোঁট ফেটে যেতে পারে এবং ঠোঁট রুক্ষ্ম হয়ে যেতে পারে। এ ছাড়া ব্যক্তিগত কিছু অভ্যাসও এই সমস্যার জন্য দায়ী। যেমনÑ বারবার জিহ্বা দিয়ে ঠোঁট ভেজানো, ধূমপান ও মদ্যপান ইত্যাদি। এ ছাড়াও ওষুধের প্রতিক্রিয়া ও টুথপেস্টে থাকা কিছু উপাদান এই সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে। পর্যাপ্ত পানি পান না করাও এই সমস্যার জন্য দায়ী।
কী করলে শীতেও সুন্দর থাকবে ঠোঁট?
প্রথমত, ভুল করেও জিহ্বা দিয়ে ঠোঁট ভেজানোর মতো ভুল করবেন না। ঠোঁট শুকনো মনে হলে জিহ্বা দিয়ে ঠোঁট ভেজালে হয়তো কয়েক মিনিটের জন্য আরাম পাওয়া যায়, কিন্তু আসলে এটা করলে ঠোঁট আরো বেশি রুক্ষ্ম হয়ে যায়। থুথুতে থাকা এনজাইম, যা খাবার হজমে সাহায্য করে, ঠোঁটের জন্য ক্ষতিকরও বটে।
এমন একটি লিপবাম ব্যবহার করুন যা অয়েন্টমেন্ট বেসড। এটা ঠোঁটের আর্দ্রতা লক করে ফেলে, ফলে ঠোঁট ভালো থাকে। এমন একটি অয়েন্টমেন্ট বেছে নিন, যাতে বিসওয়াক্স, পেট্রোলিয়াম জেলি, অ্যাসেনশিয়াল অয়েল, গ্লিসারিন, সানস্ক্রিন ইত্যাদি আছে।
যেসব লিপবামে ক্যাম্ফোর, মেন্থল ও ইউক্যালিপ্টাস আছে, সেগুলো আসলে ঠোঁট রুক্ষ্ম করে ফেলে। তাই এসব উপকরণ আছে যে লিপবামে, তা এড়িয়ে চলুন।
ঠোঁটের চামড়া উঠতে শুরু করলে কখনোই সেই চামড়া ধরে টানাটানি করবেন না। এতে ঠোঁট ফেটে রক্ত বের হতে পারে, ঠোঁট ফুলে যেতে পারে। এরকম পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে চামড়া তোলার জন্য অস্থির না হয়ে ভারী কোনো লিপবাম লাগান যাতে মরা চামড়া নরম হয়ে নিজে থেকেই উঠে যায়।
ঠোঁট যদি ফেটে যায়, সাথে সাথে তার প্রতিকার শুরু করুন। যত দেরি করবেন, সমস্যা তত বাড়বে।
শীতকালে আবহাওয়ার প্রকোপ থেকে ঠোঁট বাঁচাতে বাইরে বের হওয়ার সময় স্কার্ফ বা ডিসপোজেবল মাস্ক পরতে পারেন। আর অবশ্যই সানস্ক্রিন আছে এমন লিপবাম লাগাবেন কারণ সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি ঠোঁটকে রুক্ষ্ম করে ফেলে এবং এ থেকে ঠোঁটের চামড়া ওঠার সমস্যা শুরু হয়। হাত দিয়ে বারবার ঠোঁট স্পর্শ করা যাবে না। এতে ঠোঁটে জীবাণু সংক্রমণ হতে পারে।
ঠোঁট সুন্দর রাখতে ধূমপান ও মদ্যপানের অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে। ধূমপান ঠোঁটকে শুধু রুক্ষ্মই করে না, বরং কালোও করে ফেলে।
একটি স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস শুধু শরীরের জন্য বা ত্বকের জন্য নয়, ঠোঁটের জন্যও জরুরি। ভিটামিন ও অন্যান্য জরুরি নিউট্রিএন্ট ঠোঁটের স্বাস্থ্যরক্ষায় সরাসরি ভূমিকা রাখে। তাই প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় রাখুন ফল, শাক-সবজি, মাছ বা মুরগি।
প্রতিদিন নানা ধরনের লিপস্টিক লাগানো হয় ঠোঁটে। এই নানা লিপ্সটিকের ভিড়ে ঠোঁট যেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হয়ে নিঃশ্বাস নেয়ার সুযোগ পায়, এটা নিশ্চিত করুন। ঘুমানোর আগে অবশ্যই ঠোঁট থেকে মেকআপের শেষ ছিটেফোটা পর্যন্ত তুলে ফেলতে হবে। একটি তুলার প্যাড বা বলে মেকআপ রিমুভার বা তেল নিয়ে হালকা করে ঘষে ঠোঁটের মেকআপ তুলে নিন।

শীতকালে ঠোঁটের যতেœর প্রতিদিন করণীয়
প্রতিদিন ঠোঁট এক্সফলিয়েট করা খুবই জরুরি। এতে করে ঠোঁটে মরা চামড়া জমতে পারে না, ফলে ঠোঁট থাকে স্বাস্থ্যবান। বাজারে অনেক ধরনের লিপস্ক্র্যাব পাওয়া যায়। প্রতিদিন রাতে আলতো হাতে ঠোঁট এক্সফলিয়েট করে নিন। যদি হাতে সময় থাকে, বাজারের লিপস্ক্র্যাব ব্যবহার না করে ঘরেই তৈরি করে নিতে পারেন লিপস্ক্র্যাব।
ঠোঁটের রুক্ষ্মতা এড়াতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই ঠোঁটে লিপবাম বা পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে হবে। ঘুমালে ঠোঁট খুব তাড়াতাড়ি আর্দ্রতা হারায়। এই ঋতুতে অনেকেই নিজের অজান্তে রাতের বেলা হা করে ঘুমায়, ফলে ঠোঁট আরো বেশি আর্দ্রতা হারায়। তাই পেট্রোলিয়াম জেলি বা লিপবামকে ঠোঁটের নাইট মাস্ক হিসেবে ভেছে নিন যা সারারাত আপনার ঠোঁটকে রুক্ষ্মতা থেকে রক্ষা করবে।
সবসময় হাতের কাছে একটি লিপবাম রাখুন। বাসায় একটি, ব্যাগে একটি, গাড়িতে একটি, আর অফিসেও একটি। এতে করে যখনই ঠোঁট শুকনো মনে হবে, সাথে সাথে হাতের কাছে থাকা লিপবামটি ঠোঁটে লাগিয়ে নিতে পারবেন।
প্রতিদিন অন্তত ৫ মিনিট ঠোঁট মাসাজ করুন। এতে ঠোঁটে রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে এবং প্রয়োজনীয় পুষ্টির সরবরাহ নিশ্চিত হবে।
মেয়েরা বাইরে বের হওয়ার সময় ভারী ধরনের লিপস্টিক ব্যবহার করুন। এতে করে ঠোঁটের ওপর একটি প্রলেপ থাকবে যা বাইরের আবহাওয়া ও ধুলাবালির হাত থেকে ঠোঁটকে কিছুটা হলেও রক্ষা করবে।
শীতকাল হোক বা গ্রীষ্মকাল, ঠোঁটের আর্দ্রতা ধরে রাখতে পর্যাপ্ত পানি পানের বিকল্প নেই। পানি কম খেলে যত লিপবাম লাগান, আর যতই যতœ করেন না কেন, ঠোঁটের রুক্ষ্মতা বারবার ফিরে আসবে। যেখানেই যান, সাথে একটি পানির বোতল রাখুন।
মডেল : নীহারিকা হায়দার, ছবি : নামিম আশরাফ


আরো সংবাদ




short haircuts for black women short haircuts for women