২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছোট্ট রান্নাঘরে জায়গা বাড়ান

-


ছোট্ট রান্নাঘরে সব জিনিসপত্র গুছিয়ে রাখাই বিরাট একটা চ্যালেঞ্জ। তার ওপর আছে রোজকার রান্নাবান্নার ঝামেলা। কাটাকুটি কোথায় সারা হবে, নিত্যদিনের ব্যবহার্য তৈজসপত্র কোথায় ধোয়া হবে, কোথায় সাজিয়ে রাখা হবেÑ এ নিয়ে গৃহিণীদের ঝক্কির শেষ নেই। আধুনিক যুগে যেহেতু বেশির ভাগ বাড়ির রান্নাঘরই ছোট, তাই বাজারে আছে নানা ধরনের পণ্য যা আপনার রান্নাঘরে বাড়তি কিছু জায়গা যোগ করতে পারে। এ ছাড়াও একটু বুদ্ধি করে গুছিয়ে রাখলেই ছোট্ট রান্নাঘরও হতে পারে কাজ করার জন্য সুবিধাজনক। আজ থাকছে ছোট ছোট ট্রিক্স যা আপনার ছোট্ট রান্নাঘর গোছাতে কাজে দেবে। এ ছাড়াও থাকছে কিছু পণ্যের নাম, যা ছোট রান্নাঘরে দারুণ উপযোগী।
পেগবোর্ড
ছোট রান্নাঘরে একটি জায়গা অনেকেই কাজে লাগান না, খালি ফেলে রাখেন। কোনটি সেই জায়গা? রান্নাঘরের দেয়াল। দেয়ালে একটি পেগবোর্ড ঝুলিয়ে দিন। এতে ছোট বড় সব উপকরণ রাখা যায়। ফ্রাইং প্যান থেকে শুরু করে কাপ, মগ, খুন্তি বহু কিছু ঝুলিয়ে রাখা যায়। শেলফে যেমন নির্দিষ্ট পরিমাণ জায়গা থাকে, পেগবোর্ডে তা নয়। পেগবোর্ডের জায়গা প্রয়োজন মতো অ্যাডজাস্ট করে নেয়া যায়। এটির দামও খুব বেশি নয়।
ক্যাবিনেটের উপরের জায়গাটি ব্যবহার করুন
ক্যাবিনেটের উপরে বেশ জায়গা থাকে, যা অনেকে খালি ফেলে রাখেন। ছোট রান্নাঘরে এই জায়গাটি ব্যবহার করতে পারেন এমন পাত্র বা তৈজসপত্র রাখার জন্য যা দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজন হয় না। পছন্দসই আকারের ছোট চারকোনা বাস্কেট কিনে তাতে সেসব রেখে ক্যাবিনেটের ওপর সাজিয়ে রাখুন। এসব জিনিস অনেক দিন পরপর কাজে আসে, তাই এতে আপনার তেমন অসুবিধা হবে না। প্রয়োজনের সময় নামিয়ে নিলেই হলো, কাজ শেষে আবার তুলে রাখবেন।
ক্যাবিনেটে লাগান নেস্টিং টেবিল
ক্যাবিনেটের যেকোনো এক জায়গায় একটি নেস্টিং টেবিল ফিট করে নিতে পারেন। নেস্টিং টেবিল সাধারণত তিনটি টেবিল একসাথে সেট করা থাকে যা ভাঁজ করে নিলে শুধু একটি টেবিলে পরিণত হয়। ক্যাবিনেটের সাথে ফিট করে নিলে প্রয়োজন মতো স্লাইড করে বের করে নিতে পারবেন ১টি, ২টি বা ৩টি টেবিল, আবার কাজ শেষে ক্যাবিনেটের ভেতর ঢুকিয়ে ফেলতে পারবেন। এটি রান্নাঘরের এক ইঞ্চি জায়গাও দখল করবে না।
ফ্রিজের ওপরের জায়গা ব্যবহার করুন
ফ্রিজের উচ্চতার ৩-৪ ইঞ্চি ওপরে একটি শেলফ বা ক্যাবিনেট বিসিয়ে নিতে পারেন। এতে হাঁড়ি-পাতিল, বাসনকোসন যা খুশি রাখতে পারেন। খেয়াল রাখবেন শেলফের তলা যেন ফ্রিজের উপরি ভাগ ছুঁয়ে না থাকে। ফ্রিজের ওপর ৩-৪ ইঞ্চি জায়গা বাদ দিয়ে তার ওপরে বসানো উচিত ক্যাবিনেট।
চুলার ওপরের দেয়ালটি ব্যবহার করুন
চুলার ওপরের দেয়াল আমরা খালি রেখে দেই। অথচ বিভিন্ন মাপের ও আকৃতির ফ্রাইং প্যান ঝোলানোর জন্য এটি বেশ ভালো একটি জায়গা। এ ছাড়াও যদি চুলার ওপর চিমনি সেট করা না থাকে, তাহলে এখানে একটি তাক বসিয়ে নিলে নিত্যপ্রয়োজনীয় হাঁড়িপাতিল রাখা যায় অনায়াসে। অথবা চাইলে তাকগুলো মসলা রাখার জন্য ব্যবহার করতে পারেন।
চপিং বোর্ড হোল্ডার
বড় আকারের চপিং বোর্ড রাখা বেশ ঝামেলার কাজ। কারণ কোথাও এটির জায়গা হতে চায় না। ক্যাবিনেটের দরজার ভেতরের পাশে একটি হোল্ডার তৈরি করে নিতে পারেন বা হুক লাগিয়ে চপিং বোর্ড ঝোলানোর ব্যবস্থা করতে পারেন। এই জায়গাটি এমনিতে খালিই পড়ে থাকে। চপিং বোর্ড ঝুলিয়ে বা হোল্ডারে রেখে জায়গাটির সেরা ব্যবহার নিশ্চিত করুন।
ম্যানগেটিক নাইফ র্যাক
ম্যানগেটিক নাইফ র্যাক লাগাতে দেয়ালে খুব কম জায়গা লাগে। আপনার রান্নাঘরে ছুরি এবং মেটালের খুন্তিজাতীয় জিনিস রাখার জন্য ম্যানগেটিক নাইফ র্যাক ব্যবহার করুন। এতে করে ক্যাবিনেটে জায়গা বাঁচবে, নষ্ট হবে না কাউন্টারের এক ইঞ্চি জায়গাও।
ক্যাবিনেটের নিচের জায়গা কাজে লাগান
উপরের দিকে ফিট করা ক্যাবিনেট, যেগুলো মাটি থেকে ৪-৫ ফিট ওপর থেকে শুরু করে সিলিংয়ের কাছাকাছি পর্যন্ত উচ্চতার, সেগুলোর নিচের অংশে হুক লাগিয়ে মগ, কাপ প্রভৃতি ঝুলিয়ে রাখা যায়।
ক্যাবিনেটের দরজা কাজে লাগান
ক্যাবিনেটের প্রতিটি দরজার ভেতরের দিকে হুক বা হোল্ডার লাগিয়ে নিন যাতে ছোট ছোট জিনিস যেমন মেজারমেন্ট কাপ, খুন্তি, চামচ প্রভৃতি হুকে ঝুলিয়ে বা হোল্ডারে দাঁড় করিয়ে রাখতে পারেন।
কাউন্টারের ওপর কিভাবে গোছাবেন?
কাউন্টারের ওপর ছোট ছোট শেলফ লাগিয়ে নিতে পারেন। এতে কাউন্টারের ওপরের জায়গা যেমন বাঁচবে, রান্নাঘর গুছিয়ে রাখা সহজ হবে। দেখতেও ভালো লাগবে। কাউন্টারের ওপর হ্যাঙ্গিং শেলফ রাখলে কাটাকুটির জন্য বা রান্নার সময় অন্যান্য প্রিপারেশনের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা পাবেন।
দেয়াল ও ক্যাবিনেটের সঠিক রঙ
হালকা রঙের দেয়াল ও ক্যাবিনেট রান্নাঘরকে দেয় একটি প্রশান্ত ভাব, রান্নাঘরকে বেশ বড় দেখাতে সাহায্য করে। অন্য দিকে গাঢ় রঙের দেয়াল ও ক্যাবিনেটের কারণে রান্নাঘর ছোট ও অন্ধকার দেখায়। রান্নাঘর বড় দেখাতে মেঝের রঙও হতে হবে হালকা যা দেয়ালের রঙের সাথে মানায়।

 


আরো সংবাদ