১৮ আগস্ট ২০১৯

পাতে পড়–ক মিষ্টি : রান্না-বান্না

-

কাটারিভোগ

উপকরণ : ছানা ১ কাপ, সুজি ২ টেবিল চামচ, চিনি ২ চা চামচ, তেল ১চা চামচ। সিরার জন্য : চিনি দেড় কাপ, পানি ৪ কাপ, এলাচ ৩টি।
প্রণালী : ছানার সাথে ওপরের সব উপকরণ মেখে চমচমের আকারে গড়ে সিরায় ছেড়ে দিন। এবার হাইহিটে ৫ মিনিট জ্বাল দিয়ে। পরে মিডিয়াম হিটে ২ ঘণ্টা জ্বাল দিতে থাকুন। ১৫ মিনিট পর পর এতে গরম পানি দিতে হবে। এবার সিরা থেকে তুলে মিষ্টিগুলো ঠাণ্ডা করে নিন। অন্য একটি পাত্রে ঘি ২ টেবিল চামচ এবং আধা কাপ তরল দুধ এবং গুঁড়াদুধ এক কাপ দিয়ে নেড়ে ঘন করে নিতে হবে। এবার ঠাণ্ডা চমচম এই মিশ্রণে ভরে কেটে কাটারিভোগের আকারে বানিয়ে নিতে হবে।

ছানার পুডিং

উপকরণ : ছানা ২ কাপ, গুঁড়ো দুধ আধা কাপ, কনডেন্সড মিল্ক আধা কাপ, এলাচগুঁড়া এবং চিনি সিকি কাপ।
প্রণালী : উপরের সব উপকরণ একসাথে ব্লেন্ড করে অথবা বিট করে মোল্ডে ঢেলে নিন। ওপরে ফয়েল পেপার দিয়ে ঢেকে চুলায় ফ্রাইপ্যানে পানি দিয়ে ভাপে বসিয়ে রাখুন এক ঘণ্টা। টুথপিক দিয়ে চেক করে নিন। টুথপিক পরিষ্কার বের হয়ে এলে পুডিং হয়ে গেছে। এবার বাদাম ও কিশমিশ দিয়ে পছন্দমতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

ক্ষীর চমচম

উপকরণ : ছানার জন্য : গুঁড়োদুধ আধা কেজি, পানি ১ লিটার এবং টকদই ২ কাপ।
প্রণালী : পানির সাথে গুঁড়োদুধ মিশিয়ে চুলায় জ্বাল দিন। ফুটে উঠলে টকদই ঢেলে দিন। ছানা হয়ে গেলে নামিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।
চমচমের জন্য : ছানা ২ কাপ, সুজি ২ টেবিল চামচ, চিনি ১ টেবিল চামচ এবং তেল ১ চা চামচ।
ক্ষীরের জন্য : গুঁড়োদুধ ১ কাপ, পানি, কনডেসন্ড মিল্ক।
প্রণালী : ছানা ভালো করে মেখে এর সাথে সুজি, চিনি ও তেল দিয়ে আবারো মেখে চমচমের আকারে গড়ে নিন। এবার চিনির সিরায় দিয়ে দিন। ২ ঘণ্টা জ্বাল দিলে চমচম তৈরি হবে। সিরা থেকে তুলে রাখুন। অন্য পাত্রে গুঁড়াদুধ ও কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে ক্ষীর বানিয়ে নিন। চমচমের মাঝখানে ছুরি দিয়ে কেটে এই ক্ষীর ভরে মাওয়ায় গড়িয়ে কিশমিশ বা চেরি বা বাদাম দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।


আরো সংবাদ




bedava internet