১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গয়নায় এবার টারসেল

রঙের ঝলক
-


সেই প্রাচীনকালের কথাই বলি অথবা আধুনিক, নারীর সাজের অন্যতম অনুষঙ্গ গয়না। গয়না ছাড়া যেন নারীর সাজ পূর্ণতা পায় না। তবে সময়ের পরিক্রমায় গয়নায়ও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। দামি রতœপাথর বা ধাতুর তৈরি গয়নার প্রচলন এখন অনেকটাই কমে গেছে। তার বদলে কম দামি ধাতু ও পাথর দিয়ে তৈরি হচ্ছে নানা নতুন ডিজাইনের গয়না। এর সাথে যুক্ত হচ্ছে নানা উপকরণ। মানুষের ব্যবহার্য অনেক সাধারণ উপকরণ দিয়েও আজকাল তৈরি হচ্ছে হালফ্যাশনের গয়না। বাঁশ, কাঠ, কাপড়, সুতা, মাটি, পুঁতি, পালকÑ এমন কতই না উপকরণ ব্যবহার করে তৈরি হচ্ছে অভিনব সব গয়না। এসব গয়নায় রঙ ও ডিজাইনের বৈচিত্র্যও কম নয়। তাই তো এসব গয়না আধুনিক নারীদের কাছে বেশ গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। এ সময়ের গয়নার তেমন একটি নতুন সংস্করণ টারসেল বসানো গয়না। সুতার তৈরি টারসেল এত দিন ধরে পোশাকের অনুষঙ্গ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে এসেছে। সম্প্রতি গয়নার অনুষঙ্গ হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে টারসেল।
গলার মালা, লকেট, কানের দুল বা ব্রেসলেটে ঝোলানো টারসেল ফ্যাশনে আনছে অভিনবত্ব। কখনো মেটালের চেন, কখনো পাথর আবার কখনো কাপড়ের সাথে যুক্ত করে টারসেল দিয়ে বানানো হচ্ছে এসব গয়না। এ সময়ের তরুণীদের কাছেও বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে গয়নাগুলো। কারণ এগুলো এক দিকে যেমন হালকা তেমনি আকর্ষণীয়। দামেও সাশ্রয়ী। সব ধরনের পোশাকের সাথে মানানসই হওয়ায় অনেকেই বেছে নিচ্ছেন এসব টারসেলের গয়না।
কখনো কখনো কারিগরদের হাত ধরে, কখনো বা আবার ফ্যাশন ধারার ধারাবাহিকতায় গয়নায় এসেছে বৈচিত্র্য। মাদলের পরিচালক মাসুমা খাতুন শাম্মী বলেন, ‘ছিমছাম ও চলতি ধারার গয়না পরাই আধুনিকতা। গয়নার আকার ব্যক্তিত্ব প্রকাশে সাহায্য করে। টারসেল সংযুক্ত গয়না হাল ফ্যাশনের তরুণীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। টারসেল গয়না অনেক রঙের হয়ে থাকে। তাই মিলিয়ে বা না মিলিয়ে পরলেও সমস্যা হয় না। কুর্তা, কামিজ ও শাড়িতে রুচিসম্মত লুক আনতে অনেকেই টারসেলে তৈরি গয়না পরছেন। সুতা, বিডস ও মেটাল প্রভৃতি দিয়েই টারসেল গয়না বানানো হচ্ছে। কানের দুলগুলোতে ছোট টারসেল থেকে শুরু করে বড় টারসেল কান থেকে ঝুলে কাঁধের নিচে অবধি থাকে। মেটালের মালায় বেশ কয়েকটি টারসেল অথবা একটি বড় টারসেল দিয়েও হয়। যারা হালকা ধাঁচের গয়না পরতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য এ ধরনের গয়না হতে পারে প্রথম পছন্দ। কোনোটায় তিন-চারটি লহরী থাকে। প্রতিটি চেইনে আটকানো থাকে একটি করে টারসেল। কয়েকটি লহরী থাকলেও বেশ হালকা হয়। মানিয়ে যায় অনেক ধরনের পোশাকের সাথে। তরুণীদের পাশ্চাত্য পোশাকের সাথে বড় একটা রঙিন গলার টারসেল মালা নিয়ে আসবে ভিন্নতা। স্টাইলিশ লুক আনতে পারে।
কোথায় পাবেন : আড়ং, মাদল, ক্যাটস আই, বিবিআনা, মায়াসিরসহ বেশ কয়েকটি ফ্যাশন হাউজে তো পাবেনই। এ ছাড়াও নিউমার্কেট, পিংক সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, বসুন্ধরা সিটি প্রভৃতি জায়গায় খুঁজে পাওয়া যাবে নানা ধরন ও ডিজাইনের টারসেল গয়না। এ ছাড়া অনলাইন-ভিত্তিক দোকানগুলোতেও এ ধরনের গয়না পাওয়া যায়।
দরদাম : শুধু গলার মালার দাম ২০০ থেকে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত। কানের দুল পাবেন ১৫০ থেকে এক হাজার টাকার মধ্যে। কান ও গলার সেট পাওয়া যায় ৫০০ থেকে তিন হাজার টাকার মধ্যে।

 


আরো সংবাদ