১০ ডিসেম্বর ২০১৯

বিছানায় শুয়ে থেকেই ১৬ লাখ টাকা!

কৃত্রিম মাধ্যাকর্ষণযুক্ত বিছানায় শুয়ে আছেন এক ব্যক্তি - সংগৃহীত

টাকার জন্য বেঁচে থাকা প্রয়োজন, নাকি বেঁচে থাকার জন্য টাকার প্রয়োজন। যেটাই হোক! টাকা আমাদের সকলের জীবনেই প্রযোজন। কিন্তু টাকা তো আর এমনি এমনি আসবে না! টাকা উপার্জনের জন্য করতে হয় পরিশ্রম। শুধুই কি পরিশ্রম, এক কথায় অক্লান্ত পরিশ্রম। কেবল টাকা বা অর্থ উপার্জনের জন্যই মানুষ বিছানায় আরামের ঘুমকে ত্যাগ করে ছুটে চলেছে।

কিন্তু এমন যদি হতো যে, সারাদিন কেবল বিছানায় শুয়ে থাকবো, পরিশ্রম করবো না; তারপরও টাকা আমাদের হাতে চলে আসবে! হয়তো কেউ কখনো ক্লান্ত পরিশ্রান্ত হয়ে মনের অজান্তে এই কথাটা উকিঁ দিয়েছে। আর নিজের মনেই হেসে নিজেকে জবাব দিয়েছেন- কি যা তা ভাবছি! বিছানায় শুয়ে থেকে কি আর টাকা হাতে আসে! কিন্তু যদি এখন এর উত্তরটা হয়- হ্যা আসে। তবে সেটা অবাক করার মতোই বিষয়।

হ্যা, অবাক করার মতো বিষয় হলেও এটা এখন আর অবাস্তব নয়। জার্মানির মহাকাশবিজ্ঞানীরা খুঁজছেন এমন মানুষ, যাদের কাজ হবে ৬০ দিন স্রেফ শুয়ে থাকা। এই কাজের জন্য পারিশ্রমিক পাওয়া যাবে প্রায় ১৬ লাখ টাকা। মহাকাশে থাকাকালীন মানুষের শরীরের ওজন প্রায় শূন্যের কাছাকাছি চলে যায়।

এই অবস্থা, যাকে বিজ্ঞানীরা ‘মাইক্রোগ্র্যাভিটি' বলেন, তার সাথে সহজে মানিয়ে নিতে পারার জন্য মহাকাশচারীদের দরকার দীর্ঘ প্রশিক্ষণ। প্রশিক্ষণের জন্য বর্তমানে জার্মানির বিজ্ঞানীরা বের করেছেন অভিনব উপায়।

ওজন কমে যাওয়ার পর নিরাপত্তার খাতিরে কী কী পদ্ধতি অবলম্বন করবেন মহাকাশচারীরা, তা যাচাই করতে জার্মানির গবেষকরা চালাচ্ছেন একটি পরীক্ষা। সেই পরীক্ষায় টানা ৬০ দিন ধরে ১২ জন পুরুষ ও ১২ জন মহিলাকে বিছানায় বন্দি থাকতে হচ্ছে। বিছানায় শুয়েই তারা খাওয়া-দাওয়া, গোসল বা অন্যান্য দৈনন্দিন কাজ করছেন।

পাশাপাশি এখন গবেষণার দ্বিতীয় ধাপে অংশ নিতে আগ্রহীদের খুঁজছেন গবেষকরা। শুনতে সহজ মনে হলেও আসলে এভাবে একটানা বিছানা-বন্দি থাকার কাজ রীতিমত কষ্টের। পাশাপাশি এই কাজে যোগ দিতে জার্মান ভাষাতেও দক্ষতা থাকা প্রয়োজন।

ফলে, এই পরীক্ষায় যারা অংশগ্রহণ করবেন, তাদের দেয়া হবে উঁচু দরের পারিশ্রমিক। আর সেটা হলো- ১৬,৫০০ ইউরো অর্থাৎ প্রায় ১৬ লাখ টাকা!

কী বলবে এই পরীক্ষা?

জার্মানির কোলন শহরের জার্মান এয়ারোস্পেস সেন্টারে বর্তমানে চলছে এই গবেষণা। বিজ্ঞানীরা বলছেন, দীর্ঘক্ষণ ওজনহীনতার মাঝে থাকলে শরীরে দেখা দিতে পারে হাড় ও পেশির অসাড়তা, ফুসফুস বা হৃৎপিণ্ডের দুর্বলতার মতো গুরুতর সমস্যা। সাথে দেখা দিতে পারে শারীরিক দুর্বলতা, মাথা ঘোরা, পিঠে ব্যথাও।

এই সমস্যাগুলি কীভাবে আরো দক্ষভাবে মোকাবিলা করতে পারবেন মহাকাশচারীরা, তা জানতে পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের শোয়ানো হয়েছে কৃত্রিম মাধ্যাকর্ষণযুক্ত বিছানায়। সেখানেই ৬০ দিন ধরে তাদের ওপর করা হবে নানান পরীক্ষা। কেবল বিছানায় শুয়ে থেকেই পাওয়া যাবে ১৬ লাখ টাকা! সূত্র : ডয়চে ভেলে।


আরো সংবাদ

পরকীয়ার জন্যই বানারীপাড়ার ট্রিপল মার্ডার! (১৬৯৪৯)জ্বিন নিয়ে আসার নামে রাতে অভিনব কায়দায় লোমহর্ষক হত্যাকাণ্ড (১২২৩১)এবার কাশ্মিরে ‘রোবট সেনা’ নামাচ্ছে ভারত (৯৭৮৮)সবচেয়ে কম বয়সী প্রধানমন্ত্রী সানা মারিন (৯৭৮৭)“নেহেরুই সবচেয়ে বড় ধর্ষক ছিলেন”, মন্তব্য সাধ্বী প্রাচীর (৮৪০৪)'নাগরিকত্ব বিল পাস হওয়ার অর্থ গান্ধীর উপর জিন্নাহর জয়' (৮১৭৩)শাজাহান খানের বিরুদ্ধে নিক্সন চৌধুরীর তীব্র প্রতিক্রিয়া (৮১৩৭)পেঁয়াজ কেনার চিন্তা ছেড়ে বাড়িতে টবেই চাষ করুন, জেনে নিন পদ্ধতি (৮১২১)ভারত থেকে জ্বালানি আনতে ৩০৬ কোটি টাকায় লাইন নির্মাণ (৭৯৩২)ভারতের বিপক্ষে ৮ উইকেটে জিতলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ (৭৪০৮)



hacklink Paykwik Paykasa
Paykwik