১৯ অক্টোবর ২০১৯

৫ মাস বন্ধ থাকার পর মধ্যপাড়া খনিতে পাথর উত্তোলন শুরু

৫ মাস বন্ধ থাকার পর মধ্যপাড়া খনিতে পাথর উত্তোলন শুরু - নয়া দিগন্ত

দিনাজপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনিতে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে দীর্ঘ ৫ মাস বন্ধ থাকার পর, শনিবার সকাল থেকে পাথর উত্তোলন শুরু হয়েছে। খনির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মাানীয়া-ট্রেষ্ট কনসোর্টিয়াম (জিটিসি) ভেঙ্গে যাওয়া উৎপাদন যন্ত্র বিদেশ থেকে আমদানি করে এই পাথর উত্তোলনের কার্যক্রম শুরু করেছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জানায়, শনিবার থেকে তাদের অধিনে থাকা সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী শ্রমিক কাজে যোগদান করে পুর্বের র‌্যায় তিন শিপ্টের কাজ শুরু করেছে।এতে করে আবারো কর্মচাঞ্চল্যে মুখরিত হয়েছে পাথর খনি এলাকা।

চলতি বছরের ৫ এপ্রিল খনির ভূ-গর্ভের উৎপাদন ক্ষেত্রের গিয়ার বক্সের পিনিয়াম ভেঙ্গে যাওয়ায় পাথর উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ওই উৎপাদন যন্ত্রটি বিদেশ থেকে আমদানি করে স্থাপন করার পর এই পাথর উত্তোলন শুরু হয়।

এদিকে খনিটির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসি বলছে, তারা মধ্যপাড়া পাথর খনির ব্যবস্থাপনা, উৎপাদন এবং রক্ষণাবেক্ষন কাজের দায়িত্বভার গ্রহণ করে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে পাথর খনির উৎপাদন ইতিহাসে রেকর্ড তৈরি করে এক মাইল ফলক সৃষ্টি করেছে। জিটিসির মহাব্যবস্থাপক জাবেদ সিদ্দিকী বলেন, খনি থেকে মাসিক ১ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন পাথর উত্তোলনের লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে ধারাবাহিকভাবে মাসিক প্রায় ১ লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন পাথর উত্তোলন শুরু করে, এতে পাথর খনিটিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে সম্ভবনার দ্বার খুলে দেয়। কিন্তু ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসিকে কয়েক বার খনির উৎপাদন বন্ধ রেখে বিভিন্ন প্রতিকূলতা মোকাবিলা করতে হয়।

তিনি বলেন, উৎপাদন শুরুর কয়েক মাসের মধ্যেই বিস্ফোরক সংকটে প্রায় ১ মাস উৎপাদন বন্ধ থাকে। উৎপাদনের প্রায় দেড় বছরের মাথায় খনি উন্নয়ন কাজে বিদেশি মেশিনারিজ ও যন্ত্রাংশের অভাবে প্রায় ২ বছর খনি থেকে পাথর উত্তোলন ও উন্নয়ন কাজ বন্ধ রাখতে হয়। বিশ্বমানের এবং অত্যাধুনিক বিদেশি মেশিনারিজ ও যন্ত্রাংশ আমদানির পর জিটিসি খনির নতুন স্টোভ নির্মাণ করে মাসিক ১ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন পাথর উত্তোলনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে পুরো দমে কাজ শুরু করে গত মার্চ মাস পর্যন্ত প্রতি মাসে পাথর উত্তোলনের লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে মাসিক প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টনে নিয়ে যায়। কিন্তু হঠাৎ করে স্কীপ উন্ডারের প্রিনিয়াম গিয়ার বক্স নষ্ট হয়ে যাওয়ায় সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় জিটিসিকে।

এদিকে মধ্যপাড়া গ্রানাইড মাইনিং কোম্পানী লিঃ এর মহাব্যবস্থাপক আবুল তালহা ফরাজি বলেন, খনিটির বর্তমান ব্যবস্থাপানা পরিচালক মোঃ ফজলুর রহমান চলতি সনের গত ২১ জুলাই মধ্যপাড়া খনিতে যোগদান করার পর তিনি খনির সকল প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে খনিটির কার্যক্রম শুরু করার অগ্রাধিকার দেন। তিনি জিটিসি’র উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে দ্রুত কার্যক্রম শুরু করা তাগিদ দেন এবং সকল প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করার জন্য সকল প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দেন। ব্যবস্থাপনা পরিচালকের এমন আশ্বাসের পর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসি দ্রুত গতিতে সকল কার্যক্রম শুরু করে।


আরো সংবাদ

দেশী-বিদেশী পাইলটরা লেজার লাইট আতঙ্কে (৩৯৯৩৬)পাকিস্তান বনাম ভারত যুদ্ধপ্রস্তুতি : কে কতটা এগিয়ে (২৮৪৮৪)ভারতীয় বিমানকে ধাওয়া পাকিস্তানের, আফগানিস্তান গিয়ে রক্ষা (২১৮৯৮)দুই বাঘের ভয়ঙ্কর লড়াই ভাইরাল (ভিডিও) (২০৬১৪)শীর্ষ মাদক সম্রাটের ছেলেকে আটকে রাখতে পারলো না পুলিশ, ব্যাপক দাঙ্গা-হাঙ্গামা (১৪৭১৯)রৌমারী সীমান্তে বিএসএফ’র গুলি ও ককটেল নিক্ষেপ! (১৪৫৭২)বিশাল বিমানবাহী রণতরী নির্মাণ চীনের, উদ্বেগে যুক্তরাষ্ট্রসহ অনেকে (১৪৩৩৮)‘গরু ছেড়ে মহিলাদের দিকে নজর দিন’,: মোদির প্রতি কোহিমা সুন্দরীর পরামর্শে তোলপাড় (১৩৫৮২)বিএসএফ সদস্য নিহত হওয়ার বিষয়ে যা বললো বিজিবি (১১৮৬৩)লেন্দুপ দর্জির উত্থান এবং করুণ পরিণতি (৯৩৩৫)



portugal golden visa