১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

‘বিএসএফ গুলি করে মারছে বলে কী ছেলের লাশ পাবো না’

“আজ ৬ দিন হলো ছেলের মুখটা দেখি না। বিএসএফ ছেলেকে গুলি করে মারছে বলে ছেলের লাশটা-কি আমরা পাবো না। আমরা আমাদের ছেলের লাশ ছাড়া আর কিছু চাই না। আমাদেরকে লাশ এনে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন।”

শনিবার বিকেলে ডিমলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের কাছে এভাবেই বলছিলেন, বিএসএফের গুলিতে নিহত মোহাম্মদ বাবুল মিয়ার মা আছিয়া খাতুন।

এ সময় নিহতের বাবা নুর মোহাম্মদ বলেন, ছেলের লাশ ভারত থেকে এনে দেওয়ার দাবিতে রংপুর ৫১ বিজিবি’র কমান্ডিং অফিসার(সিও) স্যারের কাছে ডিমলা ইউএনও স্যারের মাধ্যমে একটি দরখাস্ত করেছি। এমপি মহোদয়কেও বলেছি, আমরা কিছু চাই না। আমরা শুধু ছেলের লাশটা চাই।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার ভোর রাতে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার সীমান্তে তিস্তার চরে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে মোহাম্মদ বাবুল মিয়া(২২) নিহত হয়। ঘটনার ৬ দিন অতিবাহিত হলেও নিহতের লাশ ভারত থেকে আনা সম্ভব হয়নি।

ছেলের লাশ ভারত থেকে নিয়ে আসার দাবিতে নিহত বাবুল মিয়ার বাবা, মা, ভাই খাওয়া দাওয়া ছেড়ে দিয়ে জনপ্রতিনিধি, বিজিবিসহ প্রশাসনের বিভিন্ন লোকজনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।


আরো সংবাদ