২০ জুলাই ২০১৯

স্ত্রীর সহায়তায় ৩ বছর ধরে বন্ধুর মেয়েকে ধর্ষণ, অতঃপর...

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী বন্ধুর মেয়েকে ধর্ষণকারী মকবুল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার বিকালে ভূরুঙ্গামারী-কচাকাটা সার্কেল পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে ভূরুঙ্গামারী সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের সামন থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আটক মকবুল হোসেন বলদিয়া ইউনিয়নের পূর্ব কেদার গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস প্রধানের ছেলে।

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ার সময় তার বাবার বন্ধু মকবুল তার শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে গিয়ে প্রথমবার ধর্ষণ করে মকবুল। সেই থেকে দীর্ঘ তিনবছরে অসংখ্যবার ছাত্রীটিকে ধর্ষণ করে সে। এই অনৈতিক কাজের শুরুটা ধর্ষক তার স্ত্রীর সহায়তায় করলেও সেই স্ত্রীই বিষয়টি জনসম্মুখে নিয়ে আসে।

গত বুধবার সকালে অনৈতিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় দেখে ঘটনাটি জনসম্মুখে নিয়ে আসে ধর্ষকের স্ত্রী। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছিল। শেষে ধর্ষিতা বাদী হয়ে কচাকাটা থানায় মামলা দায়ের করলে মামলার ভিত্তিতে সোমবার ধর্ষককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বাবার বন্ধু হওয়ায় সুবাদে মকবুলের পরিবারের সাথে ছাত্রীটির পরিবারের পারিবারিক সম্পর্ক ছিল।
যখন ছাত্রীটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ে সে সময় মকবুল ও তার স্ত্রী মুক্তা বেগম তাকে সাথে করে মুক্তার বাবার বাড়ি নাগেশ্বরী উপজেলার সাপখাওয়া গ্রামে বেড়াতে নিয়ে যায়। সেখানে মকবুল ও ছাত্রীটিকে একটি ঘরে রেখে মকবুলের স্ত্রী মুক্তা বাইরে থেকে ঘরের দরজা আটকে দেয়।
সেখানে মকবুল ছাত্রীটিকে জোড় করে ধর্ষণ করে। মেয়েটি কান্নাকাটি করলে তাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে কুড়িগ্রাম নিয়ে গিয়ে লোক দেখানে বিয়ে করে। তারপর থেকে প্রায়ই ডেকে নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করতো মকবুল। গত বুধবার সকালে মুঠোফোনে ফোনে ছাত্রীটিকে পার্শ্ববর্তী ভ্যানচালক শামছুলের বাড়িতে ডেকে নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক কালে মকবুলের স্ত্রী মুক্তা বেগম তাদের অবস্থায় আটক করে। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় ‘বন্ধুর মেয়েকে ধর্ষণ’ শিরোনামে সংবাদটি ছাপা হয়েছিল।

সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (ভুরুঙ্গামারী সার্কেল) শওকত আলী জানান, ‘ধর্ষণ মামলা হওয়ার পর সোর্স মারফত নিশ্চত হয়ে সোমবার দুপুরের দিকে উপজেলা চত্বরের সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের সামন থেকে মুল অভিযুক্তকে আটক করে কচাকাটা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।’

আটক মকবুলকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi