১৭ আগস্ট ২০১৯

দিনাজপুরে বাসের ধাক্কায় অটোরিকশাযাত্রী বাবা-মেয়েসহ নিহত ৩

সড়ক দুর্ঘটনা
বাসের ধাক্কায় অটোরিকশা আরোহী ৩ জন নিহত হয়েছেন - ছবি: সংগৃহীত

দিনাজপুর সদর উপজেলার চুনিয়াপাড়া এলাকায় এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার যাত্রী বাবা-মেয়েসহ তিনজন নিহত ও দুই জন আহত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় দিনাজপুর-ফুলবাড়ী মহাসড়কের চুনিয়াপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলার জামালপুর গ্রামের আফসার আলীর ছেলে আশরাফুল আলম (৩২), তার মেয়ে আইভি (১০) ও অপর একজন সাজদার খলিফা (৪৮)। তবে নিহত সাজদার পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় আহত দু’জন হলেন- নিহত আশরাফুলের বাবা নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলার জামালপুর গ্রামের আফসার আলী (৭০) ও পার্বতীপুর উপজেলার শীলবাড়ী গ্রামের মোস্তফা কামাল (৩৮)।

দিনাজপুর কোতয়ালি থানার ওসি রেদওয়ানুর রহিম জানান, দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা ফুলবাড়ীমুখী একটি যাত্রীবাহী বাস দিনাজপুরের দিকে যাওয়া একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে আশরাফুল আলম, তার মেয়ে আইভি ও সাজদার খলিফা নিহত হন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে হতাহতদের উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। দুর্ঘটনার পরপরই ঘাতক বাসটিকে নিয়ে চালক পালিয়ে যায় বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্ঘটনার সময় নিহত শিশু আইভি বাসের নিচে আটকে থাকায় বাসটি দুর্ঘটনাস্থলের কিছুদূর পরে থামিয়ে শিশুটিকে বের করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

আরো পড়ুন :
বাসচাপায় মগজ বেরিয়ে গেল কলেজছাত্রের
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ০৫ এপ্রিল ২০১৯
রাজধানীর ডেমরা-রামপুরা সড়কে রমজান পরিবহনের একটি বাসের চাপায় ইবনে তাহছিম ইরাম (১৮) নামে এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। বাসের চাপায় মাথার একপাশ থেতলে মগজ বেরিয়ে যায় ইরামের। শুক্রবার দুপুরে ডেমরা-রামপুরা সড়কের মোস্তফা মাঝির মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইরাম ডেমরার আমুলিয়া পূর্ব পাড়ার মো. দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। ইরাম ডেমরার গোলাম মোস্তফা স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাণিজ্য বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে নিহত ইরামের লাশ তার পরিবারের লোকজন উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়।

এদিকে দুর্ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় রামপুরা থেকে ট্রাফিক পুলিশ রমজান পরিবহনের ওই বাসটিসহ (ঢাকা মেট্রো ব-১৫-৩৬৮৭) চালক মো. শামীম ও হেলপার মুন্না মিয়াকে আটক করেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রামপুরা ট্রাফিক জোনের টিআই বিপ্লব ভৌমিক বলেন, এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও কলেজ শিক্ষার্থীরা ডেমরার আমুলিয়া, স্টাফ কোয়ার্টার ও সুলতানা কামাল সেতু এলাকায় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে বিক্ষোভ করে সড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে ডেমরা-রামপুরা ও ডেমরা-যাত্রাবাড়ী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নিহত ইরাম দুপুরে খেলা শেষে সাইকেলযোগে মোস্তমাঝির মোড় হয়ে বাড়ি ফিড়ছিল। এ সময় স্টাফ কোয়ার্টার থেকে ছেড়ে আসা রামপুরাগামী রমজান পরিবহনের ওই বাসটি ইরামকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়।


আরো সংবাদ




bedava internet