১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নয়াদিগন্তে রিপোর্ট প্রকাশের পর ঋণের টাকা ফেরত পেলেন দরিদ্র নারীরা

-

নয়া দিগন্তের অনলাইন পত্রিকায় কিশোরগঞ্জে হত দবিদ্রদর ঋণের টাকা আত্মসাৎ প্রসঙ্গে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার হিড়িক পড়েছে। গত ১৭ আগষ্ট থেকে ২৬ আগষ্ট পযন্ত পল্লী উন্নয়ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ২লাখ ৩২ হাজার টাকা ব্যাংকের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে।

উত্তরাঞ্চলের হত দরিদ্রদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করন কর্মসূচীর (উদকনিক) দ্বিতীয় পর্যায়ের উপকার ভোগিদের সই জাল করে তাদের ৩০ জনের নামে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা বিতরন দেখিয়ে আতœসাৎ করে উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, এ্যাকাউনটেন্ট শাহাব উদ্দিন, ক্রেডিট সুপার ভাইজার জেসমিন বেগম ও প্রকল্প ম্যানেজার রায়হান মিয়া। ঘটনা জানার পর এসব হত দরিদ্র নারীরা জেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিল।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ১৫ আষ্ট নয়া দিগন্তের অনলাইন পত্রিকায় একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। রিপোর্ট প্রকাশের পর প্রকল্প ম্যানেজার ৯৮ হাজার টাকা, পল্লী উন্নায়ন কর্মকর্তা ৪৮ হাজার, এ্যাকাউটেন্ট ১৬ হাজার ৩০টাকা, প্রশিক্ষক শতরঞ্জি ৬০হাজার, অফিস পিয়ন ১০ হাজার টাকা ফেরত দেন। গত ১৭ আগষ্ট থেকে ২৬ আগষ্ট পর্যন্ত ব্যাংকের মাধ্যমে এসব টাকা ফিরৎ দেন তারা।

প্রকল্প ম্যানেজার রায়হান মিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি ক্রেডিট সুপার ভাইজার জেসমিন বেগমের কাছে পারিবারিক প্রয়োজনবশত ১লাখ টাকা ধার নিয়েছিলাম। ওনি যে আমাকে ঋণের টাকা ধার দিয়েছিল তা আমি জানিনা। জানার পর ব্যাংকের মাধ্যমে টাকা ফেরত দিয়েছি।

 


আরো সংবাদ




Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme