১৯ জুন ২০১৮

শ্যামাসুন্দরী না বাঁচলে রংপুর বাঁচবে না

বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০১৮ উপলক্ষে স্থাণীয় কমিউনিটি সেন্টারে ‘শ্যমাসুন্দরী : দখল-দূষণে বর্তমান অবস্থা ও করণীয়’ শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠক । লয়া দিগন্ত -

রিভারাইন পিপল, রংপুরের আয়োজনে এক সেমিনারে বক্তারা বলেছেন রংপুরের অক্সিজেন শ্যামাসুন্দরী সুন্দরী খাল এখন ডাস্টবিন। শ্যামা সুন্দরীকে বাঁচাতে কোন উদ্যোগ নেই। তারা বলেন, শ্যামাসুন্দরী না বাঁচলে, রংপুর বাঁচবে না।

মঙ্গলবার বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০১৮ উপলক্ষে স্থাণীয় সুমি কমিউনিটি সেন্টারে ‘শ্যমাসুন্দরী : দখল-দূষণে বর্তমান অবস্থা ও করণীয়’ শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠকে বক্তারা এই মন্তব্য করেন।

সেমিনারে বক্তারা বলেন, শ্যামাসুন্দরীকে বাঁচাতে হলে শহরের মাস্টার প্লান করতে হবে। সেই অনুযায়ী শ্যামাসুন্দরীর পরিকল্পনা করে কাজ করতে হবে। স্বাস্থ্যসম্মত শহরের জন্য হলেও শ্যামাসুন্দরীকে রক্ষা করতে হবে। শ্যামাসুন্দরী সুন্দরী নেই, ডাস্টবিন হয়েছে। শ্যামাসুন্দরীকে দখল ও দূষণ মুক্ত করতে হবে সবার আগে। আধুনিক পদ্ধতি অবলম্বন করে কোথায় কতখানি দখল হয়েছে তা নির্ণয় করা সম্ভব। সিটি করপোরেশনের কোন বর্জ্যব্যবস্থানাই গড়ে ওঠেনি। শ্যামাসুন্দরীর সাথে আমাদের ঐতিহ্য জড়িয়ে আছে। ঐতিহ্য রক্ষার স্বার্থে হলেও আমাদের শ্যমাসুন্দরীকে রক্ষা করতেই হবে। শ্যামাসুন্দরীর দুদিকে আরও দুটি ক্যানেল করতে হবে। যার পাশ দিয়ে নোংরা পানি প্রবাহিত হবে। প্রধন খালটি থাকবে স্বচ্ছ জলের প্রবাহ।

রিভারাইন পিপলের পরিচালক ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. তুহিন ওয়াদুদের সভাপতিত্বে সেমিনারে বক্তব্য রাখেন রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে রিভারাইন পিপল এর আহ্বায়ক ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক উমর ফারুক, কমিউনিস্ট পার্টির উপদেষ্টা শাহাদত হোসেন, লালমনির হাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সুজন শাহ ই ফজলুল, লেখক ও গবেষক অধ্যাপক শাহ আলম, রবীন্দ্র গবেষকও সংস্কৃতি কর্মী ড. শাশ্বত ভট্টাচার্য, চিকিত্সক মফিজুল ইসলাম মান্টু, পরিবেশবাদী সংগঠন মাপা এর আহ্বায়ক এডভোকেট মুনীর চৌধুরী, সনাক রংপুরের সভাপতি মোশফেকা রাজ্জাক, সুজন এর মহানগর সভাপতি অধ্যক্ষ ফখরুল আনাম বেঞ্জু, অধ্যাপক আব্দুস সোবহান, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জাকিউর রহমান মারুফ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জিন্নাতুল বাশার, বাংলার চোখ সামাজিক সংগঠনের সভাপতি তানবীর হোসেন আশরাফী, ছাত্র ফ্রন্টের সংগঠক রোকনুজ্জামান, শিক্ষার্থী আব্দুর রব, মেহেদী হাসান প্রমুখ।


এসময় বক্তারা রংপুরকে বাঁচাতে শ্যামাসুন্দরী রক্ষার জন্য জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, স্থানীয় সররকার, রাজনৈতিক সংগঠন, সামাজিক সংগঠন সবার যৌথ উদ্যোগ দাবি করেন।


আরো সংবাদ