২৩ অক্টোবর ২০১৮

১০ বছর ধরে ছিন্নমূল মানুষের জন্য ইফতার

রমজান
১০ বছর যাবৎ ছিন্নমূল, পথচারী ও এলাকার দরিদ্র মানুষের জন্য চলছে ইফতার আয়োজন। - নয়া দিগন্ত

১০ বছর যাবৎ ছিন্নমূল, পথচারী ও এলাকার দরিদ্র মানুষের জন্য চলছে ইফতার আয়োজন। প্রতিদিন তিন থেকে সাড়ে তিনশত মানুষ একত্রে ইফতার মাহফিলে অংশ নেন। শুধু মুসলিম নয় এলাকার হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টানদের মাঝে বিতরণ করা হয় ইফতার সামগ্রী। এলাকাবাসী বলছে এতে বাড়ছে পারস্পরিক ভ্রাতৃত্ববোধ। সেই সাথে রমজান মাস যেন এই এলাকায় উৎসবে পরিণত হয়। আর আয়োজকরা বলছে কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তি বা সংগঠনের কাছে হাত পেতে নয়, এলাকাবাসীই আগ্রহ সহকারে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী টাকা-পয়সা, চাল-ডাল দিয়ে সহায়তা করে আয়োজন করছে ইফতার মাহফিলের।

রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের বেলগাছি এলাকায় ২০০৮ সালে কয়েকজন লালন ভক্ত লালনকে ধারন করে লালনের বাণী পৌঁছে দিতে গড়ে তুলেন বেলগাছি আরশি নগর লালন স্মৃতি সংঘ। যার প্রতিষ্ঠাতা ওই এলাকার ব্যবসায়ী আশরাফুল আলম আক্কাছ। প্রতিষ্ঠানটি বেলগাছি রেলস্টেশন সংলগ্ন। ওই বছরই রেল স্টেশনে থাকা কয়েকজন ছিন্নমূল মানুষ শুধু পানি দিয়ে ইফতার করতে দেখে তারা উদ্যোগ নেন ছিন্নমূল মানুষের জন্য ইফতারের আয়োজন করার। শুরু হয় কাজ। তখন প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ জনকে ইফতার করাতেন। সেই থেকে শুরু যা চলছে এখনো।

এলাকাবাসী জানান, প্রতিদিন দুপুর থেকে চলে ইফতার আয়োজন, চাল, ডাল, আলু, গাজরসহ বিভিন্ন সবজি দিয়ে তৈরি হয় খিচুরি সেই সাথে ছোলা, মুড়ি, খেজুর ও পানির ব্যবস্থা থাকে। আর এই ইফতার আয়োজনে অংশ নেন রেলস্টেশনে থাকা ছিন্নমূল মানুষ, পথচারী ও এলাকার মানুষ।

এলাকাবাসী আরো জানান, রাজবাড়ীর অন্য কোথাও এমন আয়োজন নেই। এক সাথে এই ইফতার করাটা একটা আনন্দের বিষয় এমন একটি সুন্দর আয়োজন দেশের সব স্থানে হলে একে অপরের সাথে সুসম্পর্ক বৃদ্ধি পাবে।

বেলগাছি আরশি নগর লালন স্মৃতি সংঘের প্রতিষ্ঠাতা আশরাফুল আলম আক্কাছ জানান, ছিন্নমূল মানুষের কথা ভেবে ২০০৮ সাল থেকে আমরা শুরু করেছি ইফতার মাহফিলের, যা চলমান আছে। প্রতিবছর রমজানের পুরো মাস এই আয়োজন থাকে। প্রতিদিন ইফতার আয়োজনের জন্য ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা খরচ হয় আমরা কোনো দল বা কারো কাছ থেকে কোনো টাকা-পয়সা নেই না। আমরাই নিজেরা এর যোগান দিয়ে থাকি সামনেও এর ধারা অব্যহত থাকবে।


আরো সংবাদ