২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বেলকুচিতে চাঁদা না পেয়ে তাঁত ফ্যাক্টরিতে আগুন : নিঃস্ব প্রান্তিক তাঁত ব্যবসায়ী

-

সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে চাঁদা না পেয়ে তাঁত ফ্যাক্টরি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এর ফলে ঈদের আগে সর্বস্ব হারিয়ে পথে বসেছেন প্রান্তিক তাঁত ব্যবসায়ী। আর চাঁদা দাবিকারী দুস্কৃতিকারীকে বাঁচাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে একটি প্রভাবশালী মহল। এ ঘটনায় আতঙ্কে আছেন এলাকার অন্য তাঁত ব্যবসায়ীরা। চাঁদা দাবি ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বৃহস্পতিবার বেলকুচি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
সরেজমিন দেখা যায়, পোড়া ফ্যাক্টরিতে পড়ে আছে কলকব্জা ও লোহা লক্কর। হতভাগ্য তাঁত ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমানের বাড়িতে বিরাজ করছে শুনশান নিরবতা।
জানা যায়, গত ১৪ মে বেলকুচি উপজেলার দারিয়াপুর গ্রামের তাঁত ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমান ঘর নির্মাণের জন্য চার হাজার ইট কিনে বাড়ি সংলগ্ন রাস্তার পাশে নামানোর সময় চাঁদা দাবি করে একই গ্রামের শাহ আলমের ছেলে একরাম ওরফে ইমরান। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় সিদ্দিকুর রহমানকে দেখে নেয়ার প্রকাশ্য হুমকি দেয় সে। ওই দিন রাত সাড়ে ১২টার দিকে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয় তাঁত কারখানা।
১৯৯৫ সালে শুরু করে সিদ্দিকুর রহমান তিল তিল করে গড়ে তোলেন ২২টি পাওয়ারলুম সম্বলিত তাঁত কারখানা। দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে কারখানার ১৮টি জাপানী কাঠ পাওয়ারলুম, চারটি চীনা পাওয়ারলুম, একটি জেনারেটর, ২৩টি বৈদ্যুতিক মোটর, ১৩টি ফ্যান, তাঁত সামগ্রী, জুরি, ববিন, ড্রাম, সুতা ও তাঁতের সাথে লাগানো দামি শাড়ি এবং কারখানার পাশের ১২টি ফলের গাছ পুড়ে গেছে। ক্ষতির পরিমাণ প্রায় অর্ধকোটি টাকা। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস এসেছিলো সহায়তার জন্য। কিন্তু কারখানা রক্ষা হয়নি।
এদিকে ঈদের আগ মূহুর্তে এ রকম ক্ষতির শিকার হয়ে পরিবারটি মুষড়ে পড়েছে। এ ঘটনায় থানা পুলিশ ও সামাজপতিদের দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন সিদ্দিকু রহমান। কিন্তু কুল কিনারা করতে পারছেন না। তার কারখানায় ৪০ জন শ্রমিক কর্মরত ছিলেন। কারখানা ধ্বংসের পর কষ্টে দিনাতিপাত করছেন ওই শ্রমিকদের পরিবারগুলোও।
বয়ড়াবাড়ি আইডিয়াল কিন্ডারগার্টেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক আল-আমিন দীপু বলেন, সিদ্দিকের কাছে একরামের চাঁদা চাওয়ার ঘটনার সময় আমিসহ এলাকার অনেকেই উপস্থিত ছিলাম। চাঁদা চেয়ে হুমকি দেয়ার আট ঘন্টার মাথায় গভীর রাতে কারখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা পরিকল্পিত নাশকতা ছাড়া কিছুই না। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী একই গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে তাঁত শ্রমিক খোকন বলেন, চাঁদা চেয়ে তর্কবির্তকের পরক্ষনেই ইমরান আমাকে শুনিয়ে বলেছে ‘সিদ্দিক ব্যবসা করে কিভাবে তা দেখে নেব।’ স্থানীয় প্রকৌশলী হাছান ইবনে শাহিন জানান, এটি পরিকল্পিত ঘটনা। চাঁদবাজিসহ ইমরানের বিরুদ্ধে আরো অভিযোগের কথা আমরা জানি।
বেলকুচি পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম সরকার জানান, ইমরানের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগের কথা শোনা যায়। মাস ছয়েক পূর্বে সিরাজগঞ্জ বাস মালিক সমিতির নেতা মনিরুজ্জামানের এক আত্মীয় যুবককে অপহরণ করে টাকা দাবির ঘটনা আমরা মিমাংসা করে দিয়েছিলাম। এছাড়া রাতের বেলায় রাস্তায় রিকসা-ভ্যান যাত্রীদের কাছ থেকে টাকা ছিনতাই, মোবাইল কেড়ে নেয়ার ঘটনার কথা আমরা জানি।
এদিকে অভিযোগের বিষয়ে বেলকুচি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শামীমের কাছে জানতে চাওয়া তিনি বলেন, ‘সিদ্দিক চাচার কারখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা মর্মান্তিক। এটি বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে ঘটে থাকতে পারে। তবে ইমরানের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই।’
বেলকুচি থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ