২০ জুলাই ২০১৯

ঘর থেকে মা, ডোবা থেকে সন্তানের লাশ উদ্ধার

-

নাটোরের নলডাঙ্গার বাঁশিলা গ্রামে ঘর থেকে উম্মে হালিমা শারমিন বেগম নামে এক নারীর ও বাড়ির পাশের পুকুর থেকে তার দুই বছরের শিশুসন্তান আব্দুল্লাহর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

দুর্বৃত্তরা শারমিনকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে ও তার সন্তানকে হত্যা করে বাড়ির পাশের ডোবায় ফেলে যায়। শারমিনের স্বামী মাহমুদুল হাসান মুন্না ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরি করেন।

নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, গত রাতে সেহরি খাবার জন্য বাড়ির লোকজন উঠলে বাইরে থেকে সব রুমের দরজা বন্ধ দেখে চিৎকার শুরু করে। এটা শুনতে পেয়ে প্রতিবেশীরা বাড়ির গেট ও রুমের দরজা খুলে দেয় । পরে বাড়ির লোকজন শারমিনের রুমের দরজা খোলা পেয়ে ঘরে প্রবেশ করে শারমিনকে গলায় ওড়না পেচানো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। এ সময় ঘরের জিনিসপত্র মেঝেতে এলোমেলো অবস্থায় পড়ে ছিলো। এরপরে তার দুই বছরের শিশু আব্দুল্লাহকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি করতে করতে সকালে তার লাশ বাড়ির পাশের ডোবায় ভাসতে দেখে তারা। তাদের ধারণা, ঘুমিয়ে গেলে প্রাচীর টপকে দুর্বৃত্তরা বাড়িতে প্রবেশ করে। বাড়ির কেউ যাতে বাইরে বের হতে না পারে সেজন্য বাইরে থেকে তারা দরজাগুলো লাগিয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করে ও ছেলেকে পানিতে ফেলে হত্যা করা হয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে ও গভীর তদন্তে ঘটনার সত্যতা বেড়িয়ে আসবে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi