১৪ নভেম্বর ২০১৯

স্কুলে ভূরিভোজের অনুষ্ঠান থেকে শিক্ষকদের খাবারের হাড়ি ছিনতাই!

প্রতীকী ছবি - সংগৃহীত

চাকরি আজকাল পাওয়াই যায় না। আবার মনের মতো চাকরি পাওয়া তো আরো কঠিন। আর এই বজারে যারা চাকরি পান, তারা তো সেটা উদযাপন করবেন। এটাই স্বাভাবিক। এতে তো দোষের কিছু নেই। হ্যা, এতে দোষের কিছু না থাকলেও চাকরি পাওয়ার আনন্দে আয়োজিত খাওয়া-দাওয়ার অনুষ্ঠানে যা ঘটেছে, তা বোধ হয় কোনো যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশেও ঘটে না।

সম্প্রতি সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ উপজেলার একটি স্কুলে নিয়োগ পান দুইজন শিক্ষক। আর তাই ওই দুই সহকারী শিক্ষক বিদ্যালয়ের অপর শিক্ষকদের খাওয়াতে নিজস্ব অর্থায়নে মঙ্গলবার দুপুরে মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করেন। সবই ঠিকভাবে চলছিল। রান্না-বান্না শেষ। এবার হাত-মুখ ধুয়ে খেতে বসার পালা। কিন্তু খেতে আর পারলো কই? রান্না শেষ হতেই কিছু বহিরাগত লোক এসে জোর করে খাবারসহ সকল হাড়ি-পাতিল ছিনতাই করে নিয়ে যায়।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল ধোপাকান্দি পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এক মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়। সম্প্রতি নিয়োগপ্রাপ্ত দুই শিক্ষক সহকারী শিক্ষক ব্যক্তিগতভাবে তাদের নিজস্ব অর্থায়নে মঙ্গলবার দুপুরের এই খাবারের আয়োজন করেন। কিন্তু রান্নার কাজ শেষ হবার সাথে সাথেই বহিরাগত কিছু সংখ্যক লোক হঠাৎ করে স্কুলের মধ্যে ভ্যানগাড়িসহ প্রবেশ করে।

এ সময় তারা রান্না করা খাবারের পাতিল খাবারসহ ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এদিকে এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন শিক্ষকরা। তারা এই ধরণের ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে এবং এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক বিচার দাবি করেন।

পাশাপাশি আগামী ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবারের মধ্যে এই ঘটনার বিচার না হলে স্কুলে পাঠদান থেকে বিরত থাকার এবং বৃহত্তর কর্মসূচী পালনের সিদ্ধান্তের কথা জানান শিক্ষকরা।

এদিকে স্কুল থেকে খাবারের হাড়ি ছিনতাইয়ের ঘটনা উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগণ উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ জেলা প্রশাসক, উপজেলা চেয়ারম্যান, কামারখন্দ থানার ওসি, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, সম্পাদক, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি, কামারখন্দ সিরাজগঞ্জকে স্মারকলিপি প্রেরণ করেছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা জানান, যে বা যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছেন, তা অবশ্যই ন্যাক্কারজনক। এ ব্যাপারে আইনগত ভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো পড়ুন : চলন্ত সিএনজি থেকে ব্যাগ ছিনতাই, গাড়ি চাপায় নারী নিহত
মানিকগঞ্জ ও ঘিওর (মানিকগঞ্জ) সংবাদদাতা, (০৬ মার্চ ২০১৯)

চলন্ত সিএনজি থেকে ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার সময় সড়কে পড়ে গাড়ি চাপায় নিহত হয়েছেন এক নারী। নিহত নারীর নাম বেদেনা বেগম। তিনি শিবালয় উপজেলা সদরের ডাক্তারখানা এলাকার সায়েদ আলীর স্ত্রী। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের শিবালয় উপজেলা ফলসাটিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নারীর স্বামী সায়েদ আলী বলেন, এক আত্মীয়ের দাফন সম্পন্ন করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একটি সিএনজি অটোরিক্সায় করে বাড়ি ফিরছিলেন তারা। পথিমধ্যে শিবালয় উপজেলার ফলসাটিয়া এলাকায় পৌছলে পিছন থেকে একটি প্রাইভেটকার তাদের সিএনজির গতিরোধের চেষ্টা করে।

একপর্যায়ে সিএনজি কিছুটা গতি কমালে প্রাইভেটকারের ভেতর থেকে হাত বাড়িয়ে আকম্মিক তার স্ত্রীর ব্যাগ ধরে টান দেয় ছিনতাইকারীরা। এসময় বেদেনা বেগম সড়কের ওপর পড়ে যায়। এসময় পেছন থেকে দ্রুতগতির একটি কাভার্ডভ্যান চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

তিনি আরো বলেন, ছিনতাইকারীরা দ্রুতগতিতে প্রাইভেটকার ঘুরিয়ে ঢাকার দিকে যাওয়ার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে গুরুতর আহত দুই ছিনতাইকারীকে স্থানীয়দের সহায়তায় হাইওয়ে পুলিশ আটক করে হাসপাতালে ভর্তি করে। তাদের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া ব্যাগ উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের শিবালয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। রাতেই দুমরে-মুচরে যাওয়া প্রাইভেটকারটি রেকার দিয়ে উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত দুই ছিনতাইকারী হলেন- সাভারের রাজাশাল গ্রামের রশিদের ছেলে মাসুদুর রহমান ও ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানার আবু তাহেরের ছেলে নুর ইসলাম।

শিবালয় থানার ওসি মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে বলে তিনি জানান। ময়নাতদন্তের জন্য নিহত নারীর লাশ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে বলে জানা যায়।


আরো সংবাদ