২৩ মে ২০১৯

একা পেয়ে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি, শিক্ষক গ্রেফতার

ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের দায়ে আটককৃত শিক্ষক আবুল কালাম। পাশের ছবিটি প্রতীকী - নয়া দিগন্ত

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে যৌন নিপিড়নের অভিযোগে গফুরাবাদ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত সহকারী শিক্ষকের নাম আবুল কালাম। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে কর্তৃপক্ষ।

রোববার স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে। অভিযুক্ত শিক্ষক আবুল কালাম উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের মৃত আমিন সরদারের ছেলে এবং একই স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবু সায়েমের সহদোর ভাই।

জানা যায়, গত শনিবার (২০ এপ্রিল) শিক্ষক আবুল কালাম স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ক্লাসে একা পেয়ে যৌন নিপীড়ন করেন। এ ঘটনায় নিপীড়নের শিকার ছাত্রীর বাবার অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ ওই দিন সন্ধ্যায় শিক্ষক আবুল কালামকে আটক করে। পরদিন রোববার সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার হাবিবুর রহমান বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। এরপরই ম্যানেজিং কমিটির এক জরুরী সভায় অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

একই সভায় ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন, ওই স্কুলের শিক্ষক হুমায়ুন কবীর মিল্টন, ম্যানেজিং কমিটির প্রতিনিধি আফাজ উদ্দিন এবং অভিভাবকদের মধ্যে সুমন আলী। কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি বরাবর প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদ ও অভিযুক্ত শিক্ষকের বিচার দাবিতে বিক্ষুব্ধ অভিভাবক-শিক্ষার্থীরা রোববার সকালে স্কুলের সামনে গফুরাবাদ বাজারে মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করে। আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ ওই কর্মসূচীতে বাধা দিলে তা পণ্ড হয়ে যায়।

তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের এসআই খাইরুল ইসলাম জানান, শিক্ষকের হাতে যৌন নিপীড়নের পর ভূক্তভোগী ছাত্রীর বাবা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এছাড়াও আদালত ২২ ধারায় ছাত্রীর জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন।

নিপীড়নের শিকার ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, শনিবার দুপুরে বিদ্যুৎ না থাকায় চতুর্থ পিরিয়ডে ষষ্ঠ শ্রেণীর ইংরেজি বিষয়ের ক্লাস বাগানে নেয়ার কথা বলে কক্ষ থেকে সকল শিক্ষার্থীকে বাইরে বের করে দেন শিক্ষক আবুল কালাম। কিন্তু চেয়ার নিয়ে যাওয়ার কথা বলে কৌশলে ওই ছাত্রীকে কক্ষেই রেখে দেন। সে সময় একা পেয়ে জোর করে ছাত্রীর শরীরের সংবেদনশীল বিভিন্ন স্থানে স্পর্শ করে যৌন নিপীড়ন করেন শিক্ষক আবুল কালাম।

পরে বাড়ি গিয়ে ছাত্রী ঘটনাটি তার পরিবারকে জানালে তার বাবা বাগাতিপাড়া মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এরপরই ওই দিন সন্ধ্যায় গফুরাবাদ বাজার সংলগ্ন স্কুল মাঠ থেকে শিক্ষক আবুল কালামকে গ্রেফতার করে মডেল থানা পুলিশ।

এ বিষয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম শেখ পিপিএম বলেন, আটককৃত শিক্ষককে রোববার আদালতের মাধ্যমে নাটোর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।


আরো সংবাদ




agario agario - agario