১৬ নভেম্বর ২০১৮

রাজশাহীতে শিক্ষককে না পেয়ে স্ত্রী-পুত্রকে ধরে নিয়ে গেছে পুলিশ

হুমায়ুন আহমদের স্ত্রী ও পুত্র - ছবি: নয়া দিগন্ত

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মাত্র দুই দিন আগে নগরীর এক কলেজ শিক্ষককে না পেয়ে তার স্ত্রী ও পুত্রকে থানায় ধরে নিয়ে গেছে মতিহার থানা পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, গতকাল শুক্রবার গভীর রাতে ইসলামিয়া কলেজের অধ্যাপক হুমায়ুন আহমদ এর ধর্মপুরের বাড়িতে অভিযান চালায় মতিহার থানা পুলিশ। এ সময় তাকে না পেয়ে স্ত্রী ডেইজি বেগম ও দশম শ্রেণীতে পড়া সন্তান ওসামা কে আটক করে থানায় নিয়ে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

 

আরো পড়ুন: রাজশাহী সিটিতে নির্বাচন নিয়ে সংশয় রয়েছে : বুলবুল

রাজশাহী ব্যুরো, ২৮ জুলাই ২০১৮

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেছেন, রাজশাহী সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী নির্বাচনে জোর করে বিজয়ী হওয়ার জন্য বাইরে থেকে প্রায় অর্ধলক্ষ লোক ভাড়া করে রাজশাহীতে নিয়ে এসেছেন। রাজশাহীর প্রতিটি আবাসিক হোটেল ও অন্যান্য আবাসস্থল ইতোমধ্যে দখল করে নিয়েছে।

রাজশাহীর সকল মেস থেকে শিক্ষার্থীদের বের করে দিয়েছে। এমনকি পুলিশ ভোটের দিনের আগে রাতে ব্যালট পেপারে নৌকার পক্ষে সিল মেরে বাক্সবন্দী করে রাখার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এসব অবৈধ কার্যক্রম যেন কেউ করতে না পারে সেজন্য তাদের কঠোর হস্তে দমন করার জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ জানান বুলবুল। এ ছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে আবারো সেনা মোতায়েনের দাবি জানান তিনি। গতকাল সকালে নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকায় গণসংযোগ শুরু করার আগে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

পরে তিনি নগরীর ৬ ও ৮ নং ওয়ার্ডের লক্ষ্মীপুর এলাকার কাঁচাবাজার, ঝাউতলা, লক্ষ্মীপুর মোড় ও কাজিহাটাসহ বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রচারণা চালান এবং ধানের শীষ প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করেন। বুলবুল আরো বলেন, আওয়ামী লীগ ভোটের দৌড়ে পিছিয়ে থেকে নিজেকে বিজয়ী করতে ভোট জালিয়াতি, কারচুপি ও জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির জন্য ইতোমধ্যে ছাত্রলীগ ও পুলিশলীগকে পাড়া-মহল্লায় বিএনপি ও ২০ দলীয় জোট নেতাদের গ্রেফতার, নির্যাতন ও ভয়ভীতি দেখানো এবং বাড়ি ছাড়া করার কাজে লাগিয়েছে।

তিনি বলেন, রাজশাহী হলো শান্তির নগরী। এই নগরীকে কোনোভাবেই অশান্ত করতে দেয়া হবে না। সকল প্রকার সন্ত্রাস রুখে দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন বুলবুল। জনগণের নিরাপত্তা, নগরীকে একটি মেগাসিটিতে পরিণত, স্মার্ট সিটি হিসেবে রাজশাহীকে গড়ে তোলা এবং বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য ধানের শীষ প্রতীকে ভোট প্রদান করার জন্য ভোটারদের কাছে অনুরোধ করেন তিনি।

গণসংযোগকালে বুলবুলের সাথে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন, রাজপাড়া থানা বিএনপি সভাপতি শওকত আলী, সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, তানোর পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান, ৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম লিটন, মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি ওয়ালিউল হক রানাসহ বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ ও বিপুলসংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

দেখুন:

আরো সংবাদ