২৭ জানুয়ারি ২০২০

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিএনপির ফের কর্মসূচি

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে বিএনপির ফের কর্মসূচি - ছবি : নয়া দিগন্ত

দলের চেয়ারপারসন কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আবারো ঢাকাসহ সারাদেশের মহানগর ও জেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি। রোববার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন,  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর আবারো দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ঢাকাসহ সারাদেশে মহানগর ও জেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচি হবে। এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হবে।

পূর্বঘোষিত রোববারের বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচিতে সারাদেশে পুলিশ বাঁধা দিয়েছে অভিযোগ করেন রিজভী বলেন, আজকে বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে বড় ঘটনা হচ্ছে, সিরাজগঞ্জ শহরে বিএনপির মিছিলের ওপর আওয়ামী সশ্বস্ত্র ক্যাডাররা হামলা করে।

এই হামলায় জেলা সহসাংগঠনিক সম্পাদক শামীমের চোখে রাবার বু্লেটের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছে। পুলিশের সহযোগিতায় সিরাজগঞ্জে জেলা কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। আমাদের কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচি ছিলো দেশনেত্রীর মুক্তির দাবিতে ঢাকাসহ সারাদেশে। সেটিকে বানচাল করার জন্য কী অমানবিক নিষ্ঠুর মানসিকতা পুলিশ ও আওয়ামী ক্যাডাররা বিভিন্ন স্থানে হামলা করেছে বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর। আমি এই হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং যারা আহত হয়েছেন তাদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি। যারা এসব ঘটনার সাথে দায়ী তাদের আমি বিচার দাবি করছি এবং গ্রেপ্তারকৃতদের মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।

সিরাজগঞ্জ, ফরিদপুর, ঢাকা মহানগর কোতয়ালী ও শাহবাগ থানা আয়োজিত শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশি হামলার বিররণ সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন রিজভী।

‘স্বজনরা খালেদার সাক্ষাত পাচ্ছেন না’

রুহুল কবির রিজভী বলেন, কারাবিধি অনুযায়ী ৭ দিন পর পর বন্দিদের সাথে স্বজনদের সাক্ষাতের নিয়ম। অথচ বেগম খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে এই বিধান করা হলো ১৫দিন পর পর। এখন সেই ১৫ দিনের বিধানকেও সরকারের নির্দেশে কারাকর্তৃপক্ষ অগ্রাহ্য করছেন কারাবিধি লঙ্ঘন করে। ২৫ দিন হয়ে গেলো স্বজনরা বেগম জিয়ার সাথে সাক্ষাত পাচ্ছেন না। ১৩ নভেম্বরের পর আর কারাকর্তৃপক্ষ স্বজনদের সাক্ষাতের অনুমতি দিচ্ছে না।পৃথিবীর কোনো নিষ্ঠুর স্বৈরতন্ত্রের দেশেও বন্দিদের সাথে এরুপ দুর্ব্যবহার করা হয় না, যা করা হচ্ছে বেগম জিয়ার ওপর। এই অমানবিক আচরণে দেশের জনগণ ক্ষুব্ধ। এ নিয়ে শুধু তার আত্মীয়স্বজনরাই নয়, দেশ-বিদেশের মানুষ উদ্বেগাকুল ও উতকন্ঠিত। অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাথে তার আত্মীয়স্বজনদের সাক্ষাতের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক।

পাটকল শ্রমিকদের কর্মসূচির প্রতি সমর্থন জানিয়ে

রিজভী বলেন, দেশের রাষ্ট্রায়াত্ব পাটকল সিবিএ ও ননসিবিএ সংগ্রাম পরিষদের ডাকে মজুরী কমিশন বাস্তবায়ন, বকেয়া মজুরী পরিশোধসহ ১১ দফা দাবি আদায়ে গত ২৩ নভেম্বর থেকে পাটকল শ্রমিকরা আন্দোলনে রয়েছে। দীর্ঘদদিন মজুরী না পেয়ে চরম অর্থসংকটে রয়েছে শ্রমিকরা। আগামী ১০ ডিসেম্বর সকাল ৮টা থেকে পাটকল শ্রমিক কর্মচারি ও তাদের পোষ্যদের নিয়ে স্ব স্ব মিল গেটে আমরণ অনশন কর্মসূচিতে যাচ্ছে শ্রমিকরা। বিএনপি অবিলম্বে শ্রমিকদের সকল দাবি মেনে নেয়ার আহবান জানাচ্ছে। জনগনের আস্থার রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপির শ্রমিকদের এই দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন থাকবে

নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, মীর সরফত আলী সপু, আবদুস সালাম আজাদ, সেলিমুজ্জামান সেলিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরো সংবাদ

হামলার পর ইশরাকের বাসায় এসে যা বললেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার (১৫৭৬৮)ওমর আবদুল্লাহকে দেখে চিনতেই পারলেন না, কষ্টে মুষড়ে পড়ছেন মমতা (১৩০৮৮)হামলার পর জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকে যে ঘোষণা দিলেন ইশরাক (৯০৮৩)চীনের পক্ষে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ সম্ভব না, বলছেন বিজ্ঞানীরা (৬৯৫২)স্ত্রী হিন্দু, তিনি মুসলিম, ছেলেমেয়েরা কোন ধর্মাবলম্বী? মুখ খুললেন শাহরুখ (৬৫৮৮)সাকিবের বাসায় প্রাধানমন্ত্রীর রান্না করা খাবার (৬৪৭৬)শ্বাসরোধ করে হত্যার রুদ্ধশ্বাস রহস্যের উদঘাটন (৫৬৬১)কোলে তুলে দেড়ঘণ্টা লাগাতার উদ্দাম নাচ, হিজড়াদের 'অত্যাচারে' নবজাতকের মৃত্যু (৫১০৯)সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস (৪৭৮১)ইশরাকের গণসংযোগ জনস্রোতে পরিণত (৪৫৯৬)