১২ নভেম্বর ২০১৯

সম্মেলনে মেধাবী ও তরুণ নেতৃত্বকে প্রাধান্য দেয়া হবে : কৃষিমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের আগামী সম্মেলনে সৎ, মেধাবী ও তরুণ নেতৃত্বকে প্রাধান্য দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ চায় তরুণদের মধ্য থেকে নেতৃত্ব আসুক। সেই দিক বিবেচনায় নিয়ে তরুণ প্রতিভাবান ও মেধাবিদের নেতৃত্বে আনা হবে। তিনি আজ শনিবার বিকেলে বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমন্বয় পরিষদের আয়োজনে ‘বৃহত্তর ময়মনসিংহ নৃ-তাত্ত্বিক জন উৎসব’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা জানান।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ একটি প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল। দেশের সকল আন্দোলন ও সংগ্রামে দলটি নেতৃত্ব দিয়ে আসছে। আওয়ামী লীগ একটি ডায়নামিক রাজনৈতিক দল। প্রতি সম্মেলনে দলের গঠণতন্ত্র যুগোপযুগি, আধুনিকায়ন ও নতুন নেতৃত্ব আনা হয়ে থাকে।

মন্ত্রী বলেন, দেশে ঘূর্ণিঝড়ে ঝুকিঁপূর্ণ এলাকাগুলোতে সকল কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। দ্রুতই দূর্যোগপূর্ণ এলাকাগুলোতে যেতে নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। সেখানে মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে এবং কৃষির ক্ষয়ক্ষতি হলে তার নিরুপণ করতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলোতে দ্রুত কৃষি পুনর্বাসন কার্যক্রম চালানো হবে। বীজ ও সারসহ প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে।

ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন,বিভিন্ন ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীর পৃথক সংস্কৃতিগুলোর চর্চা ও সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা গেলে হারানোর সুযোগ থাকবে না। বরং দেশের সংস্কৃতি আরও সমৃদ্ধ হবে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি দেশে পরিনত হয়েছে। এখন আমরা অন্য দেশকে খাদ্য সাহায্য করতে পারি।

তিনি বলেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের অর্থনীতির গতিকে বৃদ্ধি করেছেন। অথচ বিএনপি দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করেছে। বিএনপি সন্ত্রাসী দল। তারা নির্বাচনের আগে হরতাল ও আন্দোলনের নামে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সাধারণ মানুষ হত্যা করেছে। বর্তমান সরকার জঙ্গি মাদক, ব্যবসায়ী ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স।

টাঙ্গাইলের মধুপুরে জেলা পরিষদের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত এ উৎসবে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ বাবু। এ সময় বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ডা. কামরুল হাসান খান, নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুস সামাদ, সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব রাশেদুল হাসান শেলী, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক শহিদুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার শফিউদ্দিন মনি, মধুপুরের মেয়র মাসুদ পারভেজ, আদিবাসী নেতা অজয় এ মৃ, ইউজিন নকরেক, নারী ভাইস চেয়ারম্যান যষ্ঠিনা নকরেক প্রমুখ। সূত্র : বাসস।


আরো সংবাদ