২৮ জানুয়ারি ২০২০

শিশু হত্যা ও নির্যাতনকারীরা কঠোর সাজা পাবে : প্রধানমন্ত্রী

শিশু নির্যাতন ও হত্যায় জড়িতরা কঠোর সাজা পাবে বলে স্পষ্টভাবে ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘যারা শিশু নির্যাতন ও হত্যায় জড়িত থাকবে তাদের কঠোর থেকে কঠোরতর সাজা পেতে হবে।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

শেখ রাসেলের বড় বোন শেখ হাসিনা বলেন, সরকার চায় যে, কোনো শিশু হত্যার শিকার হবে না এবং সব শিশু যাতে সুন্দর পরিবেশে বাঁচতে পারে।

‘প্রতিটি শিশুর থাকবে অর্থবহ জীবন। সেটাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য,’ বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট শেখ রাসেলকে হত্যা এবং খুনিদের রক্ষায় আইন করার বিশাল প্রভাব সমাজের ওপর পড়েছিল।

‘সাম্প্রতিক সময়ে আমরা শিশুদের অমানবিক নির্যাতনের কিছু ঘটনা দেখছি। যদি সেই সময় (১৫ আগস্টের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পর) যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হতো তাহলে এ ধরনের কাজ করতে মানুষ অন্তত ভয় পেত,’ বলেন তিনি।

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় শিশু তুহিন হত্যার প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী অবাক হয়ে যান যে কীভাবে একজন বাবা প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তার সন্তানকে হত্যা করতে পারে। ‘কী বিকৃত মানসিকতা!’

প্রধানমন্ত্রী দেশের শিশু, কিশোর ও তরুণদের সন্ত্রাস, উগ্রবাদ ও মাদক থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানান। সেই সাথে তিনি সবাইকে সততার সাথে জীবনযাপনের অনুরোধ করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, প্রতিটি শিশুর ভেতর সুপ্ত চেতনা, মনন ও শক্তি রয়েছে।

শেখ রাসেলের জীবনের নানা পর্যায় বর্ণনা করে তিনি বলেন, রাসেলের ছিল এক দরদি মন। ‘যদি সে বেঁচে থাকত তাহলে দেশের জন্য অনেক কিছু করত।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সর্বকনিষ্ঠ ভাই শেখ রাসেলের ৫৬তম জন্মবার্ষিকী আজ। তিনি ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর ধানমন্ডির ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু ভবনে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নিহত হন।

ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শেখ রাসেল তার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের অধিকাংশ সদস্যের সাথে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন।

শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের সভাপতি রকিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সংগঠনের মহাসচিব মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, উপদেষ্টা তরফদার রুহুল আমিন, সাংগঠনিক সচিব কেএম সহিদুল্লাহ ও শিশু আকিয়া আবিদ।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ এবং পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ

স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের পর ফেসবুকে স্বীকারোক্তি : সেই ৪ বন্ধু রিমান্ডে ড. মো. আব্দুল ওহাব বারি’র নতুন মহাপরিচালক মির্জা ফখরুলের কাছে ভোট চাইলেন আতিক ফেরি থেকে নামতে গিয়ে নদীতে ট্রাক সভাপতিসহ ৫ পদে বিএনপি, সম্পাদকসহ ১০ পদে আ’লীগপন্থীরা বিজয়ী জালিয়াতির অভিযোগে ঢাবির ৬৩ শিক্ষার্থী বহিষ্কার কেক খাওয়া নিয়ে ঝগড়া : ছোট ভাইয়ের দায়ের কোপে বড়ভাই নিহত বাংলাদেশের জীবাশ্ম জ্বালানি নিজেদের উন্নয়নে ব্যবহৃত হবে : প্রধানমন্ত্রী সন্তানকে পানিতে ফেলে হত্যার দায়ে সেই মায়ের বিরুদ্ধে মামলা আজহারীর হাতে মুসলমান হওয়া সেই ১১ জনকে ভারতে পাঠিয়েছে পুলিশ হাতিরঝিল-ডেমরা মহাসড়ক উন্নীতকরণ সহায়ক প্রকল্প অনুমোদন

সকল

নৃশংসভাবে ২ মাসের কন্যা খুন করে মায়ের নিখুঁত অভিনয়, হতভম্ব পুলিশ (২০০৮৭)আফগানিস্তানে ৮৩ যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত (১৪৩৯০)পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পর প্রেমিককে এলোপাথাড়ি কোপাল স্বামী (১১৯৩০)স্ত্রী হিন্দু, তিনি মুসলিম, ছেলেমেয়েরা কোন ধর্মাবলম্বী? মুখ খুললেন শাহরুখ (৯৮২৪)২২ বছরের তরুণের প্রেমে হাবুডুবু ৬০ বছরের দাদির (৭৮২৩)সিরিয়ায় রুশ-মার্কিন সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ (৭৩০৯)বাগদাদের মার্কিন দূতাবাস লক্ষ্য করে রকেট হামলা (৭০৯৬)স্ত্রীর সহযোগিতায় কিশোরী শ্যালিকাকে লাগাতার ধর্ষণ (৭০৭০)শোনা গেল তিন হাজার বছর আগের মমির ‘কণ্ঠস্বর’ (৫৭২৩)নিজের সন্তানকে কেন এতো নৃশংসভাবে হত্যা করলেন মা? কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা (৫৩৭১)