২২ নভেম্বর ২০১৯

সরকার উৎখাতের সময় আসছে : বিএনপি

সরকার উৎখাতের সময় আসছে : বিএনপি - ছবি : নয়া দিগন্ত

বিএনপির নেতা কর্মীদের ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানিয়ে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ মঙ্গলবার বলেছেন, সময় আসবে যখন এদেশে জনবিস্ফোরণের মাধ্যমে ‘জালেম সরকার’ উৎখাত করা হবে।

‘অনেকে মনে করেন আর কতদিন আমরা নির্যাতন সহ্য করবো, এতদিন তো আমরা সহ্য করেছি। আমাদের আর কিছুদিন সহ্য করতে হবে। সময় আসবে যখন এদেশে জালেম সরকারকে উৎখাত করার জন্য একটি জনবিস্ফোরণ ঘটবে,’ তিনি
বলেন।

এক আলোচনা সভায় বক্তৃতাকালে বিএনপির এ নেতা বলেন, এই সরকার যত দ্রুত ক্ষমতা থেকে বিদায় নেবে দেশের জন্য ততই মঙ্গলজনক। ‘সেজন্য, আমরা দাবি করব অবিলম্বে এই সরকারের পদত্যাগ করা উচিত এবং সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে প্রতিনিধিত্বমূলক একটি সরকার গঠনের সুযোগ সৃষ্টি করা উচিত।’

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবে বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে এক স্মরণসভা আয়োজন করা হয়। খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মওদুদ বলেন, ‘বেগম জিয়ার মুক্তি আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সম্ভব হবে বলে আমি মনে করি না। তাকে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হবে না।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, ‘দেশে আইনের শাসন, বিচারবিভাগের স্বাধীনতা, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা এবং দেশের মানুষ যাতে সভ্য সমাজে বসবাস করতে পারে সে জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘২০ দলীয় ঐক্যজোট থাকবে। পাশাপাশি দেশের সকল গণতন্ত্র মুক্তিকামী মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে আমাদের আন্দোলনের মাধ্যমে এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করার জন্য সর্ববৃহৎ প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে।’

বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘বর্তমান সরকারের মধ্যে কোনো জবাবদিহিতা না থাকার কারণেই নৈরাজ্য ও ব্যাপক দুর্নীতি চলছে।’ তিনি বলেন, জনগণ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ‘অপকর্মে’ অতিষ্ট হয়ে গেছে।

মওদুদ বলেন, ‘আবরার ফাহাদ হত্যা প্রমাণ করে যে বাংলাদেশে যদি ভিন্নমত অবলম্বন করা হয় তবে তাকে হত্যা পর্যন্ত করতে তারা কার্পণ্য করে না।’ ‘এটা জালিমদের কাজ।’

তিনি বলেন, দেশের মানুষ জানতে পেরেছে শুধু বুয়েট নয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সব  বিশ্ববিদ্যালয়ের হল এবং ডরমেটরিতে ক্ষমতাসীন দলের লোকজনরা টর্চার সেল তৈরি করেছে। ‘তারা শুধু ভিন্নমতাবলম্বীদের সেখানে নির্যাতন করে না, নিরীহ ছাত্রদেরও নির্যাতন করে।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আমাদের দলে সরকারের কিছু দোসর আছে যারা খালেদা জিয়াকে প্যারোলে মুক্ত করাতে চায়।’ বিএনপি নেত্রীকে প্যারোলে মুক্ত করা বা সরকারের সাথে সমঝোতার মাধ্যমে মুক্ত করার কোনো কারণ নেই, বলেন তিনি।

ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে বিভিন্ন মহলের দাবির বিরোধিতা করে বিএনপি নেতা বলেন, এটাএকটা ষড়যন্ত্র। ‘ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা একটি আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত হবে ... পরিবর্তে ছাত্র রাজনীতির নামে অপ-রাজনীতি বন্ধ করা উচিত।’সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ