১৬ অক্টোবর ২০১৯

দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে বিএনপির গাত্রদাহ হচ্ছে : কাদের

দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে বিএনপির গাত্রদাহ হচ্ছে : কাদের - ছবি : সংগৃহীত

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের অভিযান দেশে বিদেশে প্রশংসিত হলেও তা দেখে বিএনপির গাত্রদাহ হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘সরকার সারা দেশে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে। নিজ দলের ভিতরেও এ্যাকশন চলছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই অভিযান দেশে বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। সরকারের জনপ্রিয়তা গত কয়েক দিনে আরো বেড়েছে। তা দেখে বিএনপির গাত্রদাহ হচ্ছে।’

ওবায়দুল কাদের আজ কক্সবাজারে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে জেলার সরকারি বেসরকারি অফিস প্রধান ও স্থানীয় সুধীবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘অন্য দলের লোক নয়; নিজের দলের লোক মনে করেই অপকর্মকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। সরকারের এই শুদ্ধি অভিযান সকল মহলে প্রশংসা পেয়েছে। বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হচ্ছে।

সরকারি কর্মকর্তাদের উদেশ্যে মন্ত্রী বলেন- ‘জনগণের সেবায় নিরপেক্ষ ভাবে কাজ করুন। আপনাদের আওয়ামী লীগ করার প্রয়োজন নেই। কাউকে খুশি করার দরকার নেই। প্রধানমন্ত্রী আপনাদের নির্দেশ দিয়েছেন। ভয় ভীতি ত্যাগ করে নিরপেক্ষ ভাবে কাজ করুন, তাতেই আওয়ামী লীগের উপকার হবে।’
‘বিএনপির টপ টু বটম সবার পদত্যাগ করা উচিত’ উল্লেখ করে কাদের বলেন, ‘বিএনপির নেতা কর্মীরা তাদের দলের প্রধানকে মুক্ত করতে দেড় বছরে দেড় মিনিটও রাস্তায় নামতে পারেনি। বিরোধীদল হিসেবে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনেও ব্যর্থ হয়েছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পানিসম্পদ উপ-মন্ত্রী এনামুল হক শামীম, সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিষ্টার বিপ্লব বড়–য়া, স্থানীয় সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল ,কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সদস্য লে. কর্নেল আনোয়ার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এরআগে বেলা সাড়ে ১১ টার সময় কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগ কার্যালয়ে নতুন ভবন এবং জেলার ৮ টি সড়ক প্রকল্পের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের বলেন- রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার কারণে কক্সবাজারের পরিবেশ, অর্থনীতি, পর্যটন শিল্প ও ব্যবসা বাণিজ্য সহ আঞ্চলিক নিরাপত্তা এখন হুমকীর মূখে। রোহিঙ্গারা যাতে দ্রুত মিয়ানমারে ফিরে যায় এ ব্যাপারে সরকারের উদ্যোগের কোন ঘাটতি নেই।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিশৃংখলার উস্কানি না দিয়ে সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য বিএনপির প্রতি আহবান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা দেশের জন্য বড় বোঝা। দেশটা আমাদের সকলের। আমরা আজ আছি, কাল নেই; ক্ষমতা চিরদিন থাকে না। আমরা না থাকলে সরকারে যারা থাকবে তাদের ওপরই এ সমস্যা বর্তাবে।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, ‘অহেতুক বিশৃংখলার উস্কানি না দিয়ে; রোহিঙ্গা সমস্যাটিকে রাজনৈতিক ইস্যু না বানিয়ে দেশের স্বার্থে সরকারকে সহযোগিতা করুন। এটা একটা জাতীয় দুর্ভাবনার বিষয়। সেই দুর্ভাবনার অংশীদার আপনারাও।’

মন্ত্রী এদিন কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগের নতুন ভবন, জরুরি সহায়তা প্রকল্পের আওতায় কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের প্রশস্ত করণ কাজ, খুরুশকুল-চৌফলদন্ডী-ঈদগাঁও সড়ক, মহেশখালী উপজেলার জনতা বাজার থেকে গোরকঘাটা সড়ক, কক্সবাজার শহরের লিংকরোড থেকে হলিডে মোড় পর্যন্ত সড়কের চার লেনে উন্নীতকরণ, কুতুবদিয়ায় সড়ক উন্নীতকরণ ও পেকুয়া বাজার থেকে মগনামা ঘাট পর্যন্ত সড়কের কাজের উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের উদ্বোধন করেন।


আরো সংবাদ

সকল




astropay bozdurmak istiyorum