২০ অক্টোবর ২০১৯

বিএনপির ক্যাসিনো এক দশক থাকতে দিল আওয়ামী লীগ!

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়কমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বললেন, "ঢাকাকে ক্যাসিনোর শহর বানিয়েছে বিএনপি। তাদের সময় এই ক্যাসিনোগুলো ছিল। সে ক্যাসিনোর ব্যাপারে অ্যাকশন তো নেয়া হচ্ছে।''

রাজনীতিবিদদের কথা একই সঙ্গে দুর্বোধ্য আর ভীষণ অনুমানযোগ্য। যুবলীগের বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর পর ক্যাসিনো আবিষ্কার হয়ে গেল অথচ এর সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতের যোগসূত্র খুঁজে পাওয়া গেল না, আমরা আমজনতা মোটামুটি অস্থির হয়ে উঠছিলাম। অবশেষে জানা গেলো গ্রেপ্তারকৃত এক যুবলীগ নেতা আগে ফ্রিডম পার্টি করতেন আরেকজন করতেন যুবদল। তবে সবার সেরা কথাটি এলো ওবায়দুল কাদেরের কাছ থেকে।

শুক্রবার ধানমণ্ডিতে দলীয় সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম জানাচ্ছে- ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলছেন, "সরকারের প্রথম বছরেই কিন্তু অ্যাকশন নেয়া হয়েছে। সময়তো এখন ফুরিয়ে যায়নি। এমন তো নয় যে, ইলেকশনকে সামনে রেখে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। প্রথম ৮-৯ মাসেই এসব ব্যবস্থা নেয়া শুরু হয়েছে।”

সিরিয়াসলি জনাব কাদের? এটি সরকারের প্রথম বছর? এর আগের দুই মেয়াদে কোন সরকার ক্ষমতায় ছিল? বিএনপি ক্ষমতা থেকে যাওয়ার পর দুই বছর মেয়াদি তদারক সরকার আর দুই মেয়াদের আওয়ামী লীগ সরকার বাদ দিলে এটা পরপর তৃতীয় মেয়াদের আওয়ামী লীগ সরকারের প্রথম বছর। তবুও সব দায় বিএনপিকে নিতে হবে। আপনার কথায় কী এরকম মনে হয় না যে, বিএনপি সরকার ক্যাসিনোর শহর প্রতিষ্ঠা করেছিল বলে গত দুই মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকার তা ভাঙতে পারেনি!

বৃহস্পতিবার ডয়চে ভেলের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে মতিঝিল থানার ওসি বলেছেন, ক্যাসিনো বুঝি না কিন্তু ক্লাবগুলো চলে জুয়ার টাকায় এটা সবাই জানে। একথা কিন্তু সত্যি। হাউজি বা জুয়া ক্লাবগুলোতে খেলা হয় বা হচ্ছে এটা প্রায় সকলেই জানে।

মানলাম তিনি ঠিক কথা বলেছেন। কিন্তু আইন-শৃঙ্খলার জিম্মাদার হিসেবে কোন তথ্যটি পুলিশের কাছে নতুন? কেউ না কেউ ক্যাসিনো বা জুয়া পরিচালন করে নাকি এগুলো পরিচালন করে যুবলীগের নেতারা? কেন তারা এতদিন ব্যবস্থা নেন নাই?

আমরা কী একটি শ্বেতপত্রের দাবি করতে পারি, এতদিন পুলিশ বাহিনীর সদস্যেরা টাকা নাকি চাপের বশ ছিলেন? সূত্র : ডয়চে ভেলে।


আরো সংবাদ

সকল




portugal golden visa
paykwik