১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের গভীর তদন্তে শক্তিশালী কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ডের ষড়যন্ত্রের গভীর তদন্তের জন্য কমিশন গঠনের দাবি উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, এই দাবি এখন ‘সময়ের দাবি’ হয়ে উঠেছে।

তিনি বলেন, একটি স্বাধীন শক্তিশালী তদন্ত কমিশন দ্বারা গভীর তদন্ত ভবিষ্যত প্রজন্মকে ১৫ আগস্টের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের মূলপরিকল্পনাকারী এবং যারা এই ষড়যন্ত্রের পটভূমি তৈরি করেছিল তাদের সম্পর্কে অবহিত করা অপরিহার্য।

মন্ত্রী আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বাধীনতার পক্ষের সাংবাদিকদের সংগঠন ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাংবাদিক ফোরাম’ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস-২০১৯ এর আলোচনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

ড. হাছান বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী, পরিকল্পনাকারী এবং ষড়যন্ত্রকারীদের নাম নতুন প্রজন্মের কাছে উন্মোচন করা উচিৎ উল্লেখ করে বলেন, অন্যথায় নতুন প্রজন্ম ইতিহাস সম্পর্কে অন্ধকারেই থাকবে।

তিনি বঙ্গবন্ধুর সকল হত্যাকারীদের বিচারের আওতায় আনার জন্য একটি কমিশন গঠনে আলোচকদের সঙ্গে একমত পোষণ করে বলেন, দেশের মানুষ এই ঘটনার অন্তরালে আসল ইতিহাস জানতে চায়।

জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ইকবাল সোবাহান চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে আরো আলোচনা করেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, ইনিস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ এর সভাপতি আবদুস সবুর প্রমূখ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড শুধু ‘শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড’ নয়, বরং এটি স্বাধীন জাতি হিসেবে বাংলাদেশের অস্তিত্ব বানচালের গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ।

ড. হাছান বলেন, বঙ্গবন্ধু দেশি-বিদেশি স্বার্থান্বেষী মহলের ষড়যন্ত্রে নিহত হয়েছিলেন, যারা কখনও স্বাধীন বাংলাদেশ চায়নি।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীর সঞ্চালনায় বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, বিএফএইজে’র সাবেক মহাসচিব ওমর ফারুক, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সাবেক সভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূইয়া এবং কুদ্দুস আফ্রাদ, ডিইউজে’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোজাম্মেল হক অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন। বাসস।


আরো সংবাদ