২৫ আগস্ট ২০১৯

আওয়ামী লীগ চামড়া নিয়ে কারসাজি করছে: রিজভী

-

ক্ষমতাসীন সরকার মানুষের ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে তো পারেইনি বরং সরকারি দলের লোকেরা গরিব মিসকিনের হক চামড়া নিয়ে চলছে কারসাজি।

আজ মঙ্গলবার সকালে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

রিজভী বলেন, কোরবানির পশুর চামড়ার টাকা গরীব, মিসকিন, ইয়াতিমদের হক। এই চামড়া বিক্রির টাকা তাদের মাঝেই বিতরণ করার নিয়ম। এটা তাদের ঈদের আনন্দের একটা উৎস। বিএনপি সরকারের সময়ে এদেশে যে চামড়া কয়েক হাজার টাকায় বিক্রি হতো এখন তা বিক্রি হচ্ছে ২/৩ শ টাকায়। ৮০ হাজার টাকা দামের গরুর চামড়ার দাম এখন ২২০ টাকা! এক লাখ টাকার গরুর চামড়া বিক্রি হয়েছে ২২৫ টাকায়। সব জিনিসের দাম হু হু করে বাড়লেও দফায় দফায় কমতে কমতে দশ ভাগের এক ভাগে নেমেছে গরীব-মিসকিনের হক এই কাঁচা চামড়ার দাম। এমন করুণ অবস্থা দেখে, নীরব প্রতিবাদ হিসাবে সিন্ডিকেটের কাছে বিক্রি না করে কোরবানির চামড়া মাটির নিচে পুঁতে রাখছেন অনেকে। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমার অজুহাতে অনির্বাচিত আওয়ামী লীগের সিন্ডিকেট চামড়া নিয়ে এ কারসাজি করছে বেশ কয়েক বছর ধরে। এই চক্রের স্বার্থ রক্ষা করছে নিশুতি সরকার।

তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চামড়ার বর্গফুট প্রতি একটা হাস্যকর দাম বেধে দিয়ে তাদেরকে সহায়তা করছে। এই অল্প দামের কারণে চামড়া ব্যাপকভাবে পাচার হচ্ছে পার্শবর্তী দেশে। সিন্ডিকেট করে এতিমের হক মারার এ কান্ডকারখানা যারা চালাচ্ছে বছরের পর বছর ধরে তারাও নিজেদের ধার্মিক বলে প্রচার করে। এদের হোতা সরকারী দলের এক বড় নেতা। যেভাবে পাট শিল্প ধ্বংস করা হয়েছে ঠিক সেই পথেই ধ্বংস করা হচ্ছে বাংলাদেশের ট্যনারি শিল্প। প্রশ্ন করবার কেউ নাই। জবাব দেয়ার কেউ নাই। সুইস ব্যাংকে আর কত টাকা পাঠানো সম্পন্ন হলে বাংলাদেশের জনগণ মুক্তি পাবে! আজ সুষ্ঠু নির্বাচনকে দূরে ঠেলে জনগণের সরকার নেই বলেই এভাবে জনগনের সর্বনাশ করা হচ্ছে।

রিজভী বলেন, গতকাল ছিল ত্যাগের মহিমায় উৎকীর্ণ কোরবানীর ঈদ, পবিত্র ঈদুল আজহা। রাতের অন্ধকারে সরকারের দায়বদ্ধহীনতার কারণে দেশের মানুষের ঈদ কেটেছে নিরানন্দে। একদিকে ঈদযাত্রায় সীমাহীন পথের দুর্ভোগ, সারাদেশে ডেঙ্গু মহামারি এবং দেশের বৃহৎ অঞ্চলজুড়ে ত্রাণ বঞ্চিত বন্যার্ত মানুষের হাহাকার অন্যদিকে গ্রামীণ জনপদে সরকারী দলের ক্যাডারদের অত্যাচার সব আনন্দ ম্লান করে দিয়েছে। সড়ক এবং রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙ্গে পড়ার কারণে বহু মানুষকে পথে ঘাটে ঈদ করতে হয়েছে। স্বস্তি ছিল না ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রায়। আর এদিকে মিডনাইট সরকারের কতিপয় মন্ত্রী এই ঈদযাত্রায় মানুষের চরম কষ্ট ক্লান্তি -মহাদুর্ভোগ নিয়ে রীতিমত কদর্য ঊপহাস করেছে। গতকাল নোয়াখালীর নিজ গ্রামে ঈদের নামাজ শেষে সাংবাদিকদের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘মানুষ স্বস্তিতে বাড়িতে ফিরেছে। একইভাবে স্বস্তিতেই কর্মস্থলে ফিরে যাবে। তিন দিন আগে যখন মহাসড়কে প্রায় শত কিলোমিটারের দীর্ঘ যানজট আর ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়ে পড়ে মানুষ পরিবার পরিজন নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা কস্ট করেছেন তখন ওবায়দুল কাদেরকে আমরা বলতে শুনেছি ‘বাংলাদেশের মানুষ ঈদযাত্রার দুর্ভোগকে দুর্ভোগ হিসেবে মনে করে না। এটা তারা ঈদ আনন্দের অংশ হিসেবে মনে করে'। ঈদের আনন্দে মানুষ ডেঙ্গু ভুলে গেছে।’

বিএনপির অন্যতম শীর্ষ এই নেতা বলেন, কতটা স্বাভাবিক বোধ-বুদ্ধি শূন্য হলে একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী এমন উপহাসমুলক অবান্তর কথা বলতে পারেন! তারা মানুষকে মানুষ মনে করেন না, মনে করেন তাদের কেনা ক্রীতদাস। কারণ জনগণের ভোটে তো আর তারা নির্বাচিত হননি! যখন দেশে রোজ অপঘাতে মারা পরছেন মানুষ। মানুষের জন্য নিরাপদ নয় খাদ্য, ঔষধ, সড়ক, নিরাপদ নয় কর্মস্থলও। অকাল মৃত্যুর ভিভিষিকা নিয়ে হাজির হয় বিভিন্ন দূর্ঘটনা। দম বন্ধ করা এক দু:সহ পরিস্থিতিতে মানুষ দিন যাপন করছে। তারপরও সব স্বস্তিদায়ক বলে ক্ষমতাসীনরা আহ্লাদে আটখানা। সরকারের চরম ব্যর্থতার কারণে সড়ক- রেলপথ বিপর্যয়ের জন্য বিএনপির ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে হাসির উদ্রেককারী মন্তব্য করেছেন এক এমপি। সড়ক ব্যবস্থা নির্বিঘ্নতায় ব্যর্থ কাদের সাহেবের পদত্যাগের দাবী ওঠার পর সামঞ্জস্যহীন কথা বলার মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদের যখন দুর্ভোগকে স্বস্তিদায়ক আর আনন্দ যাত্রা বলছেন তখন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম রোবিবার ফেসবুক পোস্টে তুলে ধরেছেন ঈদে তার বাড়ি ফেরার চরম ভোগান্তির কথা। সেদিন সন্ধ্যায় এক ফেসবুক পোস্টে শাহরিয়ার আলম লেখেন, ‘আমার ট্রেন ১৫ ঘণ্টা দেরিতে ছাড়লো। শিডিউলে থাকা অনেক প্রোগ্রাম মিস করলাম। দুইদিন ধরে টিভিতে দেখলাম মানুষের ভোগান্তি, এগুলো আমাকে অনেক ভাবিয়েছে। আজকে নিজের চোখেও দেখলাম’। সুতরাং সেতুমন্ত্রী কথার ফুলঝুড়ি দিয়ে মানুষের চোখকে বিভ্রান্ত করার ব্যর্থ চেষ্টা করেন কিন্তু ভুক্তভোগি মানুষ হাড়ে-হাড়ে টের পেয়েছে সড়ক, নৌ ও রেল পথে ঘরে ফেরার যন্ত্রনা। আমরা মিডিয়ায় দেখেছি: ঢাকা থেকে খুলনা যেতে ৩৬ ঘন্টা সময় লেগেছে। কুষ্টিয়া যেতে সময় লেগেছে ২৭ ঘন্টা। ঢাকা থেকে পাবনা পৌঁছাতে সময় লেগেছে ২২ ঘন্টা। রাত-দিন পার করেছে মানুষ রাস্তায়। এরপরও মন্ত্রী সাফাই গাচ্ছেন নিজের সাফল্যের, এইরকম নির্লজ্জতা দেশবাসী আগে কখনো দেখেনি। যতদিন আপনি সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রী আছেন প্রতিটি ঈদে বাড়ী ফেরা মানুষের নাকের পানি চোখের পানি এক করে ছাড়ছেন। একজন কবির কিতার বইয়ের নাম ‘সব কিছু ভেঙ্গে পড়ে’ এই সরকারের কল্যানে এখন সব কিছু ভেঙ্গে পড়েছে। দয়া করে জনগণকে এবার নিস্তার দিন।

রিজভী বলেন, এ দেশের জনগণের প্রানপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার অবৈধ কারাবন্দীত্বের আজ ৫৫২ তম কালিমালিপ্ত দিবস। গতকাল ঈদের দিন তার পরিবারের সদস্যরা সাক্ষাত করার সুযোগ পেয়েছিলেন। চারবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তার জীবন এখন সঙ্কটময় অবস্থায় উপনীত হয়েছে। কারাগারে নেয়ার সময় সম্পূর্ণ সুস্থ নেত্রী এখন হুইল চেয়ার ছেড়ে উঠতে পারছেন না। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে গেছে। তার ইনস্যুলিনের কার্যকারিতা অনেক কমে গেছে। দেশবাসী দেশনেত্রীর প্রাণ বাঁচাতে দ্রুত তার মুক্তি চায়। মুক্তি না দিলে জনগণ আর বসে থাকবে না। সরকারী ষড়যন্ত্র তছনছ করে দিবে।


আরো সংবাদ

জামালপুরের ডিসির নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল, ডিসির অস্বীকার (২৮৪৮১)কাশ্মিরে ব্যাপক বিক্ষোভ, সংঘর্ষ (১৫২৬৫)কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন নোবেল (১৪৮৭৭)কাশ্মির প্রশ্নে ট্রাম্পের অবস্থান নিয়ে ধাঁধায় ভারত! (১৪৩৫০)৭০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ ভারতের অর্থনীতি (১২৩৭৩)নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮ : দুঘর্টনার নেপথ্যে মোটর সাইকেল! (১১৪৭৩)নিজের দেশেই বিদেশী ঘোষিত হলেন বিএসএফ অফিসার মিজান (১১০৪৫)সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশী নিহত (১০৫১৬)কাশ্মির সীমান্তে পাক বাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত (৯৫০৯)চুয়াডাঙ্গায় মধ্যরাতে কিশোরীকে অপহরণচেষ্টা, মামাকে হত্যা, গণপিটুনিতে ঘাতক নিহত (৯৩৯৫)



mp3 indir bedava internet