২০ নভেম্বর ২০১৯

নয়া পল্টনে অনশনে ছাত্রদলের একাংশ

-

বয়সসীমা নির্ধারণ না করে সিনিয়র-জুনিয়রের সমন্বয়ে ধারাবাহিক কমিটির দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার প্রতীকী অনশন পালন করছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের একাংশ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে তারা এ অবস্থান নেন।

এসময় অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেয়া ছাত্রদল নেতাকর্মী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন এবং তাদের দাবি তুলে ধরেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সদ্য বিলুপ্ত ঘোষণা করা ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সিনিয়র সহ-সভাপতি আজমল হোসেন পাইলট নয়া দিগন্তকে বলেন, আমরা দীর্ঘ ১৩-১৪ বছর ছাত্ররাজনীতি করছি। আমাদের জীবনটা এই সংগঠনের জন্য উৎসর্গ করে দিয়েছি। দীর্ঘসময় ধারাবাহিক কমিটি না দেয়ায় একটা বড় গ্যাপ তৈরী হয়েছে। সেই গ্যাপটা হঠাৎ পূরণ করতে গিয়ে যদি ধারাবাহিক কমিটি ঘোষণা করা না হয় তবে ছাত্রদল দুর্বল হয়ে পরবে।

তিনি বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে, আমরা বিরোধী দলে। তাই আন্দোলন সংগ্রামের কথা মাথায় রেখে এবং ছাত্রদলকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে আমরা ছাত্রদলের ধারাবাহিক কমিটি চাই।

সদ্য বিলুপ্ত ঘোষণা করা ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আজম সৈকত নয়া দিগন্তকে বলেন, ধারাবাহিক কমিটির দাবি না মেনে যদি কোনো তফসিল ঘোষণা বা কমিটি গঠনের পাঁয়তারা করে এবং সেজন্য কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটলে তার দায়ভার সিন্ডিকেট ও সার্চ কমিটিকে নিতে হবে। আমাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমরা আন্দোলন থেকে পিছপা হবো না।

সদ্য বিলুপ্ত ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক আবুল হাসান নয়া দিগন্তকে বলেন, ঈদের আগে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সাক্ষরিত যে প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে আমরা বিশ্বাস করি না বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এর সাথে একমত। যদি কোনো একটি স্বার্থান্বেষী মহল তাদের স্বার্থ হাসিলের জন্য তারেক রহমানকে ভুল বুঝিয়ে এ প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়েও থাকে তবে আমরা আশা করবো ছাত্রদলকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে দ্রুত এ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ধারাবাহিক কমিটি প্রদান করা হবে। অন্যথায় আমরা এই স্বার্থন্বেষী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবো।


আরো সংবাদ