২১ জুলাই ২০১৯

নয়া পল্টনে ছাত্রদলের একাংশের অবস্থান

বয়সসীমা উঠিয়ে দিয়ে নবীন-প্রবীনের সমন্বয়ে ছাত্র দলের কমিটি গঠনের দাবিতে আজো অবস্থান কর্মসূচি করছেন ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধরা। নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সকাল ১১টায়
অবস্থান কর্মসূচী শুরু করেন তারা। ছাত্রদলের বাতিল হওয়া কমিটির সিনিয়র নেতারা এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

অন্যদের মধ্যে বাতিলকৃত কমিটি সহসভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, ইখতিয়ার রহমান কবির, মামুন বিল্লাহ, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, বায়েজিদ আরেফিন, কাজী মোক্তার হোসেন, মফিজুর রহমান আশিক সহ প্রায় তিন শতাধিক নেতা-কর্মী এতে অংশ নেয়।

বিক্ষুব্ধরা ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই দিতে হবে,’ ‘সিন্ডেকেট দালালেরা হুশিয়ারি সাবধান’, ‘ ঘাপটি মারা দালালদের কালো হাত গুঁড়িয়ে দাও, ভেঙে দাও’ ‘আমাদের সংগ্রাম, আমাদের ত্যাগ বৃথা যেতে দেবো না’ ইত্যাদি স্লোগান দিয়ে সরব করে রাখে।

ইখতিয়ার রহমান কবির ও আসাদুজ্জামান আসাদ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা আমাদের দাবির সমর্থনে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি করছি। দাবি পুরণ না হওয়া পর্যন্ত আমরা কর্মসূচি চালিয়ে যাবো।

উল্লেখ্য, গত ৩ জুন ঈদের আগের দিন রাতে ছাত্র দলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি বাতিল করে দেয় বিএনপি। আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের কথা বলা হয়। কাউন্সিলে নির্বাচনের অংশ নেয়ার ব্যাপারে ২০০০ সালে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার ন্যূনতম যোগ্যতার শর্তারোপ করা হয়।

এর প্রতিবাদে গত ১০ জুন ছাত্র দলের বিক্ষুব্ধরা নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেয়। সেদিন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকেও তারা অবরুদ্ধ করে রাখে। ওইদিন সাবেক ছাত্র দল নেতৃবৃন্দ ও বিক্ষুব্ধদের গুলশান কর্যালয়ে ডেকে নিয়ে লন্ডনে তারেক রহমান কথা বলেন। পরে রাত ১০টায় বিক্ষুব্ধরা নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের তালা খুলে দেয়।
এরআগে গত রোববার থেকে বিক্ষুব্ধরা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন দুই ঘন্টা অবস্থান কর্মসূচির সিদ্ধান্ত নেয়। মাঝে দুইদিন বিরতি দেয়ার পর আজ বুধবার থেকে আবারো অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে।

এদিকে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে যখন বিক্ষুব্ধদের কর্মসূচি চলে তখন বেলা পৌনে ১২টায় কার্যালয়ের তৃতীয় তলায় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর সংবাদ সম্মেলন হয়।


আরো সংবাদ

gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi