film izle
esans aroma Umraniye evden eve nakliyat gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indirEzhel mp3 indir, Ezhel albüm şarkı indir mobilhttps://guncelmp3indir.com Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নতুন লুঙ্গি-গামছা পরে ফটোসেশন খেতমজুরদের সাথে উপহাস : মেনন

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, কামলার অভাবকে পুঁজি করে এবারের বোরো মৌসুমী সরকারি কর্তা ব্যক্তিরা বিভিন্ন সংগঠন যেভাবে জিন্স-টি শার্ট, নতুন লুঙ্গি-গামছা পরে ফটোসেশনের প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হয়েছিলো তা রীতিমতো খেতমজুরদের উপহাস করা হয়েছে।

প্রয়োজন এখন ঐক্যবদ্ধ হওয়ার, সংগঠিত হবার। সেই সংগঠিত শক্তিই পারবে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বাস্তবায়িত করতে।

গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে জাতীয় কৃষক সমিতি ও বাংলাদেশ খেতমজুর ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত কনভেনশনে তিনি একথা বলেন।

কৃষক-খেতমজুর কনভেনশনে কৃষি ও কৃষক রক্ষা, খেতমজুরদের অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারী কৃষি শ্রমিককে কাজের স্বীকৃতি ও মজুরি বৈষম্য দূর করা তথা কৃষক-খেতমজুরদের ঐক্যবদ্ধ ও সংগঠিত হওয়া এবং আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে এ কনভেনশনে উপস্থিত ছিলেন, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, পলিটব্যুরো সদস্য ও জাতীয় কৃষক সমিতির সভাপতি নুরুল হাসান, কার্যকরী সভাপতি মাহমুদুল হাসান মানিক, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম গোলাপ, সহসভাপতি মনোজ সাহা, আব্দুল মজিদ সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম শ্রমিক ফেডারেশন; রবীন সরেন সাধারণ সম্পাদক, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ; এম এ সবুর সভাপতি, বাংলাদেশ কৃষক সমিতি; বদরুল আলম সভাপতি বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশন; শামসুল হুদা নির্বাহী পরিচালক, এল আর ডি।

সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ খেতমজুর ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি বক্তব্য রাখেন। খেতমজুর ইউনিয়নের সভাপতি বিমল বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ কনভেনশন বেলা ১১টায় জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে উদ্বোধন হয়।

কনভেনশনে কৃষকদের ১২ দফা ও খেতমজুরদের ১২ দফা দাবি উত্থাপন করা হয় এবং এ দাবিসমূহ আদায়ের লক্ষ্যে আগামী বোরো ফসল মৌসুম পর্যন্ত আন্দোলনের রূপরেখা ঘোষণা করা হয়।

কনভেনশনে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেনন এমপি আরো বলেন, যে কৃষক তেভাগা আন্দোলনে আওয়াজ তুলেছিলো ‘জান দেবো, তবু ধান দেবো না’ সেই কৃষক আজ ক্ষেতের ধান পুড়িয়ে দিচ্ছে দাম না পেয়ে, এর দায় সরকারকে নিতে হবে। সরকার কৃষিতে ভর্তুকি দিচ্ছে তাকে সাধুবাদ জানাই, কিন্তু কৃষি পণ্য ক্রয়েও ভর্তুকি দিতে হবে। পোশাক কারখানা মালিক, ঋণখেলাপী, কালো টাকার মালিকরা প্রণোদনা পায় কৃষক তার শস্য বিক্রিতে কেন প্রণোদনা পাবে না।

তিনি বলেন, আজ ধান উৎপাদনে বেশি খরচের পিছনে খেতমজুরদের মজুরিকে অজুহাত হিসেবে তুলে ধরে কৃষক ও খেতমজুরকে মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেয়া হচ্ছে। অথচ খেতমজুররা দৈনিক ৭০০-৯০০ টাকা পায় মাত্র তিন মাসের কাজের সময়ে। যা দিয়ে তাদের পুরো বছরের সংসার চালানো ও খোরাক যোগাতে হয়।

ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, উদারনৈতিক পুঁজিবাদ অনুসরণ করে রাষ্ট্র কৃষক-খেতমজুরদের শোষণ করছে। আজ ৯৫ ভাগ মানুষের শ্রমের উৎপাদন ৫ ভাগ লুট করে খাচ্ছে। কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষ আজ শোষণের যাতাকলে পিষ্ট হচ্ছে। আর তাই কনভেনশন ঘোষণাকে আন্দোলনে রূপ দিয়ে সংগঠিত সংগ্রাম গড়ে তুলে দাবি আদায়েই একমাত্র পথ।


আরো সংবাদ

মিরসরাইয়ে দুই কাভার্ডভ্যানের সংঘর্ষে হেলপার নিহত টুইটারে ট্রোলড উমর আকমল মহম্মদপুরে পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্র সচিবকে মারপিট শিক্ষকের ছোড়া কলমের আঘাতে বগুড়ায় দৃষ্টি হারাল দুই শিক্ষার্থী বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিশ্ব অঙ্গনে ছড়িয়ে দিন: প্রধানমন্ত্রী ‘মাতৃভাষা দিবসকে কেন্দ্র করে কোনো নিরাপত্তা হুমকি নেই’ ২০২০ সালের মোবাইল কেমন কেনা উচিৎ করোনাভাইরাস : কোয়ারেন্টিন করা প্রমোদতরী নিয়ে বিতর্ক বাড়ছেই সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা ইরানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ২ জনের মৃত্যু মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষায় এমন আত্মত্যাগের ঘটনা বিশ্ব ইতিহাসে নজিরবিহীন : গোলাম পরওয়ার

সকল

বাণিজ্যমন্ত্রীকে ব্যক্তিগতভাবে পছন্দ করি : রুমিন ফারহানা (৯৩৩০)ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে আর যুদ্ধে জড়াতে চাই না : ইসরাইলি যুদ্ধমন্ত্রী (৭৮৬৮)শাজাহান খানের ভাড়াটে শ্রমিকরা এবার মাঠে নামলে খবর আছে : ভিপি নুর (৭৩১৯)খালেদা জিয়াকে নিয়ে কথা বলার এত সময় নেই : কাদের (৬৯০৭)সিরিয়া নিয়ে এরদোগানের হুমকি, যা বলছে রাশিয়া (৬৭২০)আমি কর্নেল রশিদের সভায় হামলা চালিয়েছিলাম : নাছির (৬৩১৬)ট্রাম্প-তালিবান চুক্তি আসন্ন, পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়ে চিন্তা দিল্লির (৫৩৮১)ট্রাম্পের পছন্দের যেসব খাবার থাকবে ভারত সফরে (৫৩৬০)কচুরিপানা চিবিয়ে খাচ্ছে যুবক, দেখুন সেই ভাইরাল ভিডিও (৫১১৯)সোলাইমানির হত্যা নিয়ে এবার যে তথ্য ফাঁস করল জাতিসংঘ (৫০০৫)