১৬ অক্টোবর ২০১৯

প্রধানমন্ত্রীর লন্ডন সফর তারেক রহমানের বিরুদ্ধে আরেকটি ষড়যন্ত্রের আভাস : গয়েশ্বর

-

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর লন্ডন সফরের মধ্য দিয়ে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে আরেকটি উল্লেখ্যযোগ্য ষড়যন্ত্রের আভাস পাচ্ছি।’

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দীদের মুক্তির দাবিতে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী নবীন দল কেন্দ্রীয় কমিটি।

গয়েশ্বর বলেন, ‘আমাদের সময়টা এখন সবচেয়ে খারাপ সময়। কারণ প্রধানমন্ত্রী যদি জনগণের ভোটে জয়লাভ করতেন তাহলে তার মুখ থেকে নাবালকসূচক বক্তব্য আসতো না। আর তারেক রহমানের বিরুদ্ধে যখন শেখ হাসিনা বলেন, আমি তখন খুব প্রাউড ফিল (গর্ববোধ) করি। কেনো? কারণ তারেক রহমান রাজনীতিতে একটা ফ্যাক্টর। তারেক রহমান বাংলাদেশের রাজনীতিতে আলোচিত। দেশপ্রেমিক জণগণের নেতা তারেক রহমান। এ কারণে তিনি (প্রধানমন্ত্রী) লন্ডন গেছেন, চোখের চিকিৎসা করাতে নাকি মনের চিকিৎসা করতে জানি না। তবে তার এই সফরের মধ্যে দিয়ে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে আরেকটি উল্লেখযোগ্য ষড়যন্ত্রের আভাস পাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘দেশবাসী আমাদের সাথে নামার জন্য অপেক্ষা করছে। জনগণের প্রত্যাশা অনুযায়ী আমরা কর্মসূচি দিলে তারা আমাদের সাথে থাকবে। বিএনপি জনগণের দল। আমরা যদি ইউনাইটেড থাকি, আমরা যখন সাহস করে মাঠে নামার জন্য ডাক দেবো তখন তারা নেমে যাবেন।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, নির্দোষ খালেদা জিয়াকে সরকার নিয়ন্ত্রিত আদালত কর্তৃক জনসম্মুখে এবং বিশ্বের কাছে হেয় করার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে কারাগারে রাখা হয়েছে।

বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, ১৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা তিন দিনের মধ্যে জামিনে পেলেন, কিন্তু খালেদা জিয়ার ১৪ মাস লাগবে কেন?’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, ‘আমাদের নেতা তারেক রহমানকে একটি মামলায় খালাস দিয়েছিলেন যে বিচারক, তিনি দেশ ছেড়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন। আপাতত দেশে আসতে পারবেন এরকম কোনো সম্ভাবনাও নেই।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন আহমেদের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, আয়োজক সংগঠনের নেতা মো: সোহেল রানা, জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের সদস্য কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum