২১ জুলাই ২০১৯
নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্পর্কে যুক্তফ্রন্ট নেতাদের অর্থমন্ত্রী বললেন

‘অল আর বোগাস’!

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত - সংগৃহীত

একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়ে যুক্তফ্রন্টের দাবিকে ‘বোগাস’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন, ‘তাদের দাবি যুক্তি সঙ্গত নয়। ২০০৮ সালে নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছিল। তখন সবাই অংশগ্রহণ করেছিল। নির্বাচনের সিস্টেমসহ সবকিছু এখনও ভালো। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে একটি দল অংশ নেয়নি, নির্বাচন হয়েছে। তারা তো কোনো মামলাও করেনি। তাই নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্পর্কে তাদের দাবি(যুক্তফ্রান্টের) অল আর বোগাস।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জবাবে এ কথা বলেন মন্ত্রী। ড. কামাল হোসেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ স ম আবদুর রব সম্প্রতি এই যুক্তফ্রন্ট গঠন করেন।

বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে তা গ্রহণযোগ্য হবে বলে মনে করে এই ফ্রন্ট। তাদের দাবি, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন। মুহিত দাবি করেন, বাংলাদেশে যে ধরণের নির্বাচনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে তা বিশ্ব সেরা।

নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেওয়া হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ সংসদের মেয়াদ পূর্ণ হবে ২৫ জানুয়ারি। এর আগেই আরেকটি সাধারণ নির্বাচন সম্পন্ন হয়ে যাবে। আর নতুন সংসদ নির্বাচিত হলে আগের সংসদ অটোমেটিক ভেঙে যায়। তাই সংসদ ভেঙে দেওয়ার কোনও দরকার দেখি না। এর কোনা প্রয়োজনও নেই।

গত বুধবার পৃথক একটি অনুষ্ঠানে আগামী ২০ দিনের মধ্যে নির্বাচনকালীন সরকার ও ২৭ ডিসেম্বর ভোট হতে পারে বলে যে মন্তব্য তিনি করেছেন সে বিষয়ে সাংবাদিকরা তার দৃষ্টি আর্কষণ করে এটা সরকার বা নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত কিনা জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘যা বলেছি সব অনুমান। তবে ডিসেম্বরে নির্বাচন হচ্ছে এটি মোটামুটি চূড়ান্ত।’

তিনি বলেন, আমি গতকাল (বুধবার) নির্বাচনকালীন সরকার ও ভোটের তারিখের বিষয়টি মোটামুটি অনুমান করে বলেছি। নির্বাচনকালীন সরকার তিন মাস আগে হতে হয়। সে হিসেবে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের বিষয়ে কেউ বলছেন সেপ্টেম্বরের শেষে, কেউ বলছেন অক্টোবরের শুরুতে। ওই সময়টাকে মাথায় রেখে আমার ধারণা আগামী ২০ দিনের মধ্যেই এটা হতে পারে।

তবে এটি একেবারেই প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। তিনিই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। আর ভোটের তারিখের বিষয়টাও আমার অনুমান। আমার ধারণা অমন একটা তারিখেই নির্বাচন হতে পারে। তবে এটা নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার। নির্বাচন কমিশন ভোটের তারিখ ঘোষণা করবে।

আসন্ন নির্বাচনে মুহিত অংশ নিচ্ছেন না, এ কথা আজ তিনি নিজেই জানালেন। বললেন, আমি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি আর নির্বাচন করছি না। আমার জায়গায় আমার ছোট ভাই এম এ মোমেন নির্বাচনে দাঁড়াবে। তাকে মনোনয় দেয়ার জন্য আমি সুপারিশ করবো।

আগামী ডিসেম্বর মাসে সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে উল্লেখ করে মুহিত বলেন, নির্বাচনী সরকারে থাকব কি না, জানি না। তবে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী। নির্বাচনকালীন সরকার কবে হবে, সেটাও প্রধানমন্ত্রী বলতে পারবেন। এই সরকারের বিষয়ে যে ঘোষণাটি আগে দিয়েছিলাম, সেটি ছিল আমার মতামত।


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi