১৯ নভেম্বর ২০১৮

বর্তমান সরকার বাঁক বদলের সরকার তথ্যমন্ত্রী

বর্তমান সরকার বাঁক বদলের সরকার তথ্যমন্ত্রী - সংগৃহীত

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, বর্তমান সরকার ‘বাঁক বদলের সরকার’। এপ্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার গতানুগতিক ক্ষমতার হাত বদল হয়ে হয়নি। গত সাড়ে ৯ বছরে এ সরকারকে প্রাতিষ্ঠানিক ও কাঠামোগত অনেক জঞ্জাল সরাতে হয়েছে। অনেক সংস্কার করতে হয়েছে। সেখানে গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতা একটি ঝুঁকিপূর্ণ কাজ। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই ঝুঁকিপূর্ণ কাজটিই করেছেন। তিনি গণমাধ্যমকে উন্মুক্ত করে গণতন্ত্রের বিকাশকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন।

পুরানা পল্টনে ‘সারাবাংলা ডট নেট’ অনলাইন সংবাদ পোর্টালের স্টুডিও উদ্বোধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী একথা বলেন। এ সময় গাজী গ্রুপের চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দ¯Íগীর গাজী বীর প্রতীক, গাজী গ্রুপের পরিচালক ও দৈনিক সারাবাংলার প্রকাশক বদরুল আলম খান, সারাবাংলা ডটনেট ও জিটিভির প্রধান সম্পাদক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, সারাবাংলার নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ মেনন খানসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘সামগ্রিকভাবে আমরা চারটি প্রধান চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। প্রথমত, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবিলা করে রাজনৈতিক শান্তি প্রতিষ্ঠা; দ্বিতীয়ত, মাদকের বিস্তার রোধ করে সামাজিক শান্তি আনা; তৃতীয়ত, তথ্যপ্রযুক্তির অবাধ বিচরণ ক্ষেত্র বা সাইবার জগতের নিরাপত্তা বিধান এবং হলুদ সাংবাদিকতা ও মিথ্যাচারের হাত থেকে গণমাধ্যমকে রক্ষা।’

ইনু বলেন, ‘বর্তমান সরকার মুক্ত গণমাধ্যমের বিকাশে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে আসছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছাতার তলে দেশের গণমাধ্যমের প্রসার ও বিকাশ ঘটেছে। সারাবাংলা ডটনেট সে গণমাধ্যমের নতুন সদস্য। আশা করি বস্তুনিষ্ট সাংবাদিকতার মাধ্যমে সারাবাংলা গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখবে।’

‘কারাগার ছাড়া গণতন্ত্র হয়না’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, কারাগার বাদ দিলে গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়ে যাবে। তাই যারা যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গি, খুনি-রাজাকারদের বাঁচানোর রাজনীতি করে, তাদের বাঁচাতে চায়; তারা কারাগার গুঁড়িয়ে দিতে চায়। মূলত এর মাধ্যমে তারা দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার কথা বলে।

গণতন্ত্রকে খোলা দরজা-জানালা বিশিষ্ট ঘরের সঙ্গে তুলনা করে হাসানুল হক ইনু বলেন, এমন ঘরে যেমন আলো বাতাস প্রবেশ করে, তেমনি ক্ষতিকর কিছু পোকা-মাকড়ও প্রবেশ করে। তাই দরজা-জানালা বন্ধ করে নয়, বরং নিরাপত্তা জাল দিয়ে সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। তেমনি রাষ্ট্রের ভালো দিকগুলোর পাশাপাশি কিছু খারাপ দিকও থাকবে। আমাদের খারাপ দিক বাদ দিয়ে ভালো বিষয়গুলোকে আঁকড়ে ধরতে হবে, যেন গণতন্ত্র ব্যহত না হয়।

শিশুদের সাম্প্রতিক নিরাপদ সড়ক আন্দোলন বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এই আন্দোলনে শিশুরা যা করে দেখিয়েছে, আমি তাদের বলি সুপার হিরো। তারা যাপিত জীবনের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কানেও শোনেন, চোখেও দেখেন। তিনি বিএনপি সরকারের মতো নন। তিনি বিষয়টি দ্রæত বিবেচনায় এনে তাদের ৯ দফা দাবি মেনে নিয়েছেন।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘কোনটি যাপিত জীবনের সমস্যা আর কোনটি রাজনৈতিক সমস্যা, তা বুঝতে হবে। যারা যাপিত জীবনের সমস্যাকে রাজনৈতিক সমস্যার রূপ দিয়ে শিশুদের কাঁধে চড়ে ফায়দা হাসিল করতে চায়, তাদের মুখোশও গণমাধ্যমকে উন্মোচন করতে হবে। আন্দোলন আর নৈরাজ্য সৃষ্টি এক নয়।’

গাজী গ্রুপের চেয়ারম্যান গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতিক বলেন, ‘আজ সারাবাংলার স্টুডিও উদ্বোধন হচ্ছে এটি খুবই আনন্দের খবর। সারাবাংলা ডটনেট সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ সাংবাদিকতায়ে বিশ্বাসী। আমাদের লক্ষ্য প্রকৃত সত্য তুলে ধরা, প্রতিষ্ঠার পর থেকে সারাবাংলা এই প্রয়াস অব্যাহত রেখেছে এবং সবসময়ই তা বজায় রাখবে।’


আরো সংবাদ