১৫ নভেম্বর ২০১৮

২০ দলীয় জোট সম্পর্কে জামায়াতের ভাষ্য

২০ দলীয় জোট সম্পর্কে জামায়াতের ভাষ্য - ছবি : সংগৃহীত

দু’টি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার প্রতিবেদনে জামায়াতে ইসলামী এবং এর নেতৃবৃন্দ সম্পর্কে যেসব তথ্য পরিবেশন করা হয়েছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে দলটি। জামায়াতের কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের সেক্রেটারি অধ্যাপক মো: তাসনীম আলম এক বিবৃতিতে বলেন, গতকাল প্রকাশিত প্রতিবেদন দু’টিতে জামায়াতে ইসলামী এবং এর নেতৃবৃন্দ সম্পর্কে যেসব আজগুবি তথ্য পরিবেশন করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। আমরা গত কয়েক দিন ধরেই লক্ষ করে আসছি, কয়েকটি দৈনিক সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে জামায়াতের পক্ষ থেকে মেয়র প্রার্থী দেয়াকে কেন্দ্র্র করে অসত্য তথ্যের ভিত্তিতে সিন্ডিকেটেড প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে। তারা সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০ দলীয় জোটের প্রধান দু’টি শরিক দল বিএনপি ও জামায়াতের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝি সৃষ্টি করে ঐক্যে ফাটল ধরানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। 

তিনি আরো বলেন, সিটি করপোরেশনের নির্বাচন স্থানীয় নির্বাচন। সিলেট সিটির মেয়র পদে জামায়াতের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে জামায়াত ২০ দলীয় জোটের সমর্থন চাইতেই পারে। কাজেই এ নিয়ে ২০ দলীয় জোটে ভাঙন সৃষ্টি হবে কেন? এখানে প্রার্থী দেয়ার কারণে সরকারের সাথে জামায়াতের কারো সম্পর্কের প্রশ্নই বা আসবে কেন? আমরা পরিষ্কারভাবে জানাতে চাই, বর্তমান সরকারের আমলে জামায়াতই সব চেয়ে বেশি নির্যাতিত ও নিপীড়িত হয়েছে। কাজেই বর্তমান সরকারের সাথে জামায়াতের কারো কোনো ধরনের যোগাযোগ ও সম্পর্ক রাখার প্রশ্নই আসে না। 

জামায়াতের এ নেতা বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে আসন বণ্টন নিয়ে কিংবা বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গ্রেফতার হওয়ার পর জামায়াতের বিবৃতি দেয়া সম্পর্কে জামায়াতের সাবেক সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের কারো সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করার মতো কোনো ঘটনা ঘটেনি। তিনি এখন জীবিত নেই। তার বিরুদ্ধে অসত্য অভিযোগের কোনো জবাব দেয়া তার পক্ষে সম্ভব নয়। এ কথা জেনেই কিছুসংখ্যক সংবাদপত্র তার সম্পর্কে ভিত্তিহীন অপপ্রচার চালাছে। এটি বস্তুনিষ্ঠ ও সৎ সাংবাদিকতার নীতিমালার পরিপন্থী। বিজ্ঞপ্তি।

আরো পড়ুন :

সাতকানিয়ায় জামায়াত নেতা গ্রেফতারের নিন্দা
চট্টগ্রাম ব্যুরো

জামায়াতে ইসলামী সাতকানিয়া উপজেলা সেক্রেটারি মাওলানা কামাল উদ্দীনকে মাদরাসা থেকে দায়িত্ব পালন করে বাড়ি ফেরার পথে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার আমির জাফর সাদেক ও সাতকানিয়া উপজেলা আমির মাওলানা আবুল ফয়েজ।

গতকাল নেতৃবৃন্দ এক প্রতিবাদলিপিতে বলেন, গ্রেফতারের নামে একের পর এক দমন নিপীড়ন চালিয়ে সরকার প্রতিপক্ষকে দমিয়ে রাখতে চায়। উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারিকে মাদরাসা থেকে দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি যাওয়ার পথে বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া চরম মানবাধিকারের লঙ্ঘন। বিবৃতিতে আগামী নির্বাচনে জনগণের ম্যান্ডেট যাচাইয়ের জন্য সব রাজবন্দীকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।


আরো সংবাদ