১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

রান্না করে খাওয়া হলো গণক অক্টোপাসকে

রান্না করে খাওয়া হলো গণক অক্টোপাসকে - সংগৃহীত

বিশ্বকাপ ফুটবল আসলে গণক পশু-পাখির নাম শোনা যায় খুব। এবার যেমন বিড়াল আর উটের বেশ কদর চলছে। তবে বিশ্বকাপ ফুটবলে জাপানের সবগুলো ম্যাচের ফল আগেভাগেই ঠিকঠাক অনুমান করতে পারা অক্টোপাসটি শেষপর্যন্ত খাবারে পরিণত হয়েছে।

রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮ শুরুর পর ‘রাবিও’ নামের ওই অক্টোপাসটিকে পরীক্ষার জন্য একটি প্যাডলিং পুলে ছাড়া হয়। ম্যাচের ফল ঠিকমত অনুমান করতে পারায় সেটি বেশ প্রশংসিত হয়েছিল।

কিন্তু অক্টোপাসটির মালিক কিমিও আবে, যিনি সমুদ্র থেকে অক্টোপাসটি ধরেছিলেন; এক পর্যায়ে খাবার হিসেবে সেটি বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

অক্টোপাসটি দিয়ে জাপানের ঐতিহ্যবাহী খাবার ‘শাশিমি’ তৈরি করা হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, রাতারাতি বিখ্যাত হওয়ার চাইতে জীবনধারণের জন্য অর্থ বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হওয়ায় কিমিও অক্টোপাসটি বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

প্রশান্ত মহাসাগর থেকে রাবিওকে ধরা হয়েছিল। প্যাডিং পুলে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে সেটি কলম্বিয়ার বিরুদ্ধে জাপানের জয় এবং সেনেগালের বিরুদ্ধে ড্র হওয়ার কথা আগেই বলেছিল বলে জানায় বিবিসি।

জাপান ২৮ জুন পোল্যান্ডের বিপক্ষে ১ গোলে হেরে যাওয়ার আগেই রাবিওকে বিক্রির জন্য বাজারে পাঠানো হয়।

রাবিও হয়ত ওই হারের কথাও আগেই অনুমান করতে পারত- যদিও নিজের আসন্ন মরণ সে বুঝতে পারেনি।

ফুটবল বিশ্বকাপে ম্যাচের ফল নিয়ে অক্টোপাসের ভবিষ্যদ্বাণীর ঘটনা এটিই প্রথম নয়। ২০১০ সালে বিশ্বকাপে জার্মানির ‘পল’ নামের একটি অক্টোপাস ছয়টি ম্যাচের সবগুলোর ঠিকঠাক ফল আগেই বলতে সক্ষম হয়েছিল।

২০১২ সালে দুই বছর বয়সে ‘সি লাইফ সেন্টার’ অ্যাকুরিয়ামে পলের মৃত্যু হয়।


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme