১৭ নভেম্বর ২০১৯

শোক প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে সংসদ অধিবেশন শুরু চলবে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত

শোক প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে সংসদ অধিবেশন শুরু চলবে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত - ছবি : সংগৃহীত

চলতি সংসদের এমপি জাসদের একাংশের সভাপতি মঈনউদ্দীন খান বাদল ও ঢাকার সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে শোক প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদের ৫ম অধিবেশন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিকেল বিকেল ৪টা ২০ মিনিটে অধিবেশন শুরু হয়। এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দল জাতীয় পার্টিসহ অন্য দলের এমপিরা উপস্থিত ছিলেন। অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে সংসদ পরিচালনার জন্য ৫ সদস্যর সভাপতিমন্ডলির সদস্য মনোনয়ন দেয়া হয়।

এ তালিকায় রয়েছেন আ স ম ফিরোজ, কাজী মোতাহার হোসেন, জিল্লুল হাকিম, কাজী ফিরোজ রশীদ ও সেলিমা আহমেদ। এরপরই শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন স্পিকার। এ তালিকায় আরও ছিলেন, সাবেক উপমন্ত্রী হুমায়ুন কবীর, সাবেক এমপি কফিল সোনার, সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সিকিউরিটি এসিস্ট্যান্ট নুরভানুসহ অনেকে। শোক প্রস্তাবে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের কার্যকরী সভাপতি মঈনউদ্দিন খান বাদলের ওপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদসহ সব দলের এমপিরা আলোচনায় অংশ নেন। পরে তার সম্মানে এক মিনিট নীরবতা পালন করে শোক প্রস্তাব পাশ করে অধিবেশন মূলতুবি করা হয়। সংসদের কার্যপ্রনালি বিধি অনুযায়ি চলতি সংসদের কোন এমপি মৃত্যুবরণ করলে তার সম্মানে সংসদের প্রথম দিনের অধিবেশন মূলতুবি করা হয়।

এদিকে অধিবেশন শুরুর আগে সংসদ সচিবালয়ের ক্যাবিনেট কক্ষে স্পিকারের সভাপতিত্বে কার্য উপদেষ্টা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে আগামী ১৪ নভেম্বর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত অধিবেশনের মেয়াদ নির্ধারন করা হয়। প্রতিদিন বিকেল সোয়া চারটায় অধিবেশন শুরু হবে। তবে স্পিকার চাইলে অধিবেশনের সময় বাড়াতে বা কমাতে পারেন।

সংসদ সচিবালয় জানিয়েছে, বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ওবায়দুল কাদের, রাশেদ খান মেনন, হাসানুল হক ইনু, মো: ফজলে রাব্বী মিয়া, আনিসুল হক, গোলাম মোহাম্মদ কাদের, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, নূর-ই-আলম চৌধুরী এবং আবদুস সাত্তার ভুঞা। বৈঠকে জানানো হয়, ৫ম অধিবেশনে সংসদে উত্থাপণের জন্য ১টি সরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া যায়। আগের অধিবেশনের অনিষ্পন্ন ৫টিসহ মোট ৬টি সরকারি বিল রয়েছে। এর মধ্যে উত্থাপনের অপেক্ষায় ১টি এবং কমিটিতে পরীক্ষাধীন ৫টি বিল রয়েছে। বেসরকারি সদস্যদের কাছ থেকে কোনো বিলের নোটিশ পাওয়া যায়নি। তবে আগের অনিষ্পন্ন ২টি বেসরকারি বিল রয়েছে।

সংসদ সচিবালয় জানিয়েছে, চলতি অধিবেশনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উত্তরের জন্য ৬৯টি ও ১৬০৫টি সাধারণ প্রশ্নসহ মোট প্রশ্নের সংখ্যা ১৬৭৪টি। সিদ্ধান্ত প্রস্তাব (বিধি ১৩১) ৯৬টি, মনোযোগ আকর্ষণের নোটিশ (বিধি ৭১) ৫৫টি এবং প্রস্তাব (সাধারণ) (বিধি ১৪৭) ৩টি নোটিশ পাওয়া গেছে।

বিধি ১৪৭-তে সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী আনীত ‘জলবায়ু পরিবর্তন, দুর্যোগের আঘাত, জীববৈচিত্র বিনষ্ট হওয়া, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, সুপেয় পানির সংকট, সমুদ্র সম্পদ হ্রাস ইত্যাদি কারণে বিশ্ব আজ ভয়াবহ সংকটের সম্মুখীন। এ কারণে গ্রহজনিত জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হোক এবং এসব বহুমাত্রিক সংকট মোকাবেলায় বিশ্বের সকল পার্লামেন্ট ও সরকার, জাতিসংঘ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার মাধ্যমে দ্রুত কার্যকর ও সমন্বিত পদক্ষেপ নেয়া হোক’ শীর্ষক প্রস্তাবের উপর আলোচনা হবে। এ সম্পর্কিত একটি প্রস্তাব স্পেনের মাদ্রিদে অনুষ্ঠিতব্য কপ-২৫ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থাপন করবেন।


আরো সংবাদ