১৪ নভেম্বর ২০১৮

সংসদে দুই বিল পাস

-

সাংবাদিকতা বিষয়ে পেশাগত প্রশিক্ষণ, সার্টিফিকেট, ডিপ্লোমা ও ডিগ্রী কোর্স পরিচালনা, গবেষণা ও প্রকাশনা, সম্মাননা প্রদান এবং সাংবাদিকতা পেশার উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি এবং যুগোপযোগী করতে আনীত বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট বিল জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে।
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বুধবার সংসদে বিলটি পাসের জন্য উত্থাপন করলে তা কন্ঠভোটে পাস হয়। এছাড়া সংসদে বিদ্যুত ও জ্বালানী দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) (সংশোধন) বিল-২০১৮ নামে অপর একটি বিলও কন্ঠভোটে পাস হয়েছে।
ডেপুটি স্পীকার এ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদে বিলটি পাসের ক্ষেত্রে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি ও স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের আনীত জনমত যাচাই বাছাই প্রস্তাবগুলো কন্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। এ ব্যাপারে বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা বলেন, সাংবাদিকতা পেশা অত্যন্ত স্পর্শকাতর। কিন্তু হলুদ সাংবাদিকতা সমাজকে ধ্বংস করে দিতে পারে। সত্যিকারের সংবাদ প্রকাশ করতে গিয়ে অনেক সাংবাদিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেক সত্য ঘটনা প্রকাশ করছেন। সেদিকে লক্ষ্য রেখে সাংবাদিকদের নিরাপত্তার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে হবে।
জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকদের অধিকার নিশ্চিত করতে চাই আমরা। ইলেকট্টনিক মিডিয়ার জন্য একটি নীতিমালা করেছি। সাংবাদিকদের অধিকার কতটুকু খর্ব হলো কিংবা হারালাম সেটা এই বিলের সঙ্গে কোন সম্পর্ক নেই। সাংবাদিকদের পেশাগত দক্ষতা, উৎকর্ষতা বাড়াতে এই ইনস্টিটিউট একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব পালন করবেন।
পাসকৃত বিলে বলা হয়েছে, এই আইন কার্যকরের সঙ্গে সঙ্গে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) নামে একটি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠিত হবে। এই ইনস্টিটিউটের একজন মহাপরিচালক থাকবে। মহাপরিচালক সরকার কর্তৃক নিযুক্ত হবেন এবং তাঁর চাকুরি শর্তাদি সরকার কর্তৃক স্থিরিকৃত হবে। এই ইনস্টিটিউট সাংবাদিকতা বিষয়ে প্রশিক্ষণ, সার্টিফিকেট, ডিপ্লোমা ও অন্য কোনো ডিগ্রী কোর্স পরিচালনা এবং সনদ প্রদান করবেন। প্রশিক্ষণ বা কোর্স পরিচালনা, গবেষণা ও প্রকাশনা এবং সাংবাদিকতা পেশার উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য প্রযুক্তিগত সুযোগ-সুবিধা গড়ে তোলাসহ প্রয়োজনীয় কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করবে।
ইনস্টিটিউটের একটি পরিচালনা বোর্ড থাকবে। বিশিষ্ট সাংবাদিক, শিক্ষাবিদ বা জনসংযোগ দক্ষ ব্যক্তিবর্গের মধ্য হতে সরকার কর্তৃক মনোনিত একজন ব্যক্তি এর চেয়ারম্যান হবেন। এতে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক মনোনীত অন্যুন যুগ্ম সচিব পদমর্যাদার একজন প্রতিনিধি, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সরকার কর্তৃক মনোনিত একজন করে কর্মকর্তা, প্রধান তথ্য অফিসার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান, সরকার কর্তৃক মনোনিত জাতীয় সংবাদপত্রের দুইজন সম্পাদক, ইলেকট্টনিক মিডিয়ার একজন প্রধান নির্বাহী, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের দু’জন প্রতিনিধি এই বোর্ডের সদস্য হবেন। মহাপরিচালক বোর্ডের সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবেন।
বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিদ্যমান বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটকে সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য আইন কাঠামো প্রদানের লক্ষ্যে নতুন আকারে প্রস্তাবিত আইন প্রণয়নের জন্য এই বিলটি সংসদে উত্থাপন করা হয়েছে।

বিদ্যুত ও জ্বালানী দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি বিল
বিদ্যুত ও জ্বালানীর দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) (সংশোধন) বিল, ২০১৮ বিল সংসদে পাস হয়েছে। বিদ্যুত ও জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিলটি উত্থাপন করলে তা কন্ঠভোটে পাস হয়। বিলটি পাসের ফলে আলোচ্য আইনটি ৮ বছরের পরিবর্তে ১১ বছর মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।
বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বিদ্যুত ও জ্বালানীর দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) আইন-২০১০ এর মেয়াদ আগামী ১১ অক্টোবর শেষ হবে। দেশের বিদ্যুত ও জ্বালানী পরিস্থিতির উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হলেও সরকারের ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নের স্বার্থে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী বিদ্যুত ও জ্বালানী খাতের উন্নয়ন অব্যাহত রাখার জন্য আলোচ্য আইনের মেয়াদ বৃদ্ধি করা আবশ্যক। এ জন্যই বিলটি আনা হয়েছে।


আরো সংবাদ