২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিশালাকার সাপের সাথে যুদ্ধে জিতলো ইঁদুর (ভিডিও)

সাপ, ইঁদুর
সাপে-ইঁদুরে লড়াই - সংগৃহীত

সাপ আর ইঁদুরের লড়াই দেখেছেন? যারা দেখেছেন, তাদের তো জানা শিকারি সাপ কিভাবে ইঁদুরকে শিকার করে। কিন্তু কখনো উল্টো দেখেছেন? শিকারি ইঁদুর আর শিকার সাপ!

আশ্চর্য হওয়া কিছু নেই। এমনটাই ঘটেছে চীনের গুয়াংডং প্রদেশের পানিংয়ে। অন্য রকম এক লড়াই দেখা গেছে ইঁদুর আর সাপের মধ্যে।

ইঁদুরটা তেড়ে যাচ্ছে সাপের দিকে। আর বেচারা সাপ! প্রথমে খানিক লড়াইয়ের চেষ্টা করলেও ধীরে ধীরে হাল ছেড়ে দেয়।

এই লড়াইয়ের ভিডিও এখন ভাইরাল। ২ জুলাই ভিডিওটি আপলোড করা হয়।

তাতে দেখা যায়, ইঁদুর শেষ পর্যন্ত পরাস্ত করে সাপকে। মাথা কামড়ে সে অদৃশ্য হয়ে যায় ঝোপের ভিতরে।

দেখে নিন সেই ভিডিও-

 

আরো পড়ুন : অস্ত্রোপচারে পেট থেকে বেরোল সাপ!

রোজ খাবার খাচ্ছিলেন তবু ওজন কমে যাচ্ছিল। যেন পেটের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে কেউ। সে-ই খেয়ে নিচ্ছে খাবারগুলো। ছ’মাসে প্রায় ১০ কেজি ওজন কমে গিয়েছিল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগনার মাবিয়া বিবির। “নিশ্চয় পেটে কিছু ঢুকেছে।” নিদান দিয়েছিল গ্রামের হাতুড়ে। ‘কিছু’টা কি? হাসপাতালে শুয়ে মাবিয়া জানিয়েছেন, “সাপই ভেবেছিলাম। পেটটা কেমন ফুলে যেত। কী যেন একটা বাসা বেধেছিল পেটে।” তেমনটা জানিয়েছিলেন গ্রামের পিরবাবাও। অসুখ সাড়তে মানত করেছিলেন মাবিয়ার স্বামী।

যদিও গ্রামের পীরের পানিপড়া, ঝাড়ফুঁকে কোনো কাজই হয়নি। দিনে দিন শরীর আরো রুগ্ন হয়ে যাচ্ছিল। প্রাণ বাঁচাতে এসএসকেম-এ দৌড়ে আসেন মথুরাপুরের মাবিয়া বিবি (৪৬)। আল্ট্রাসোনোগ্রাফিতে ধরা পরে পেটের মধ্যেকার পেল্লায় এক ‘লাম্প’ বা মাংস পিণ্ড। একদম উপরের যকৃৎ থেকে নিচের পেলভিস পর্যন্ত পাকিয়ে পাকিয়ে উঠেছে সেই মাংসপিণ্ড। আঁকড়ে রয়েছে কিডনির অনেকটা অংশও। তড়িঘড়ি অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেন চিকিৎসকরা। সার্জারির প্রফেসর অভিমন্যু বসু, পার্থসারথি ঘোষ সেই অস্ত্রোপচারের নেতৃত্ব দেন। পেট কেটে সাপের মতো মাংস পিণ্ডটা বেরোল সোমবার দুপুরে। হুবহু সাপের মতোই দেখতে। স্ত্রীর পেটের মধ্যে এতবড় জিনিসটা ছিল ভাবতে পারছেন না মাবিয়ার স্বামীও। এসএসকেএম-এর অপারেশন থিয়েটারে লম্বা সেই মাংস পিণ্ডটা ধরতে জনা তিনেক চিকিৎসক লাগল। “১২ কেজি ওজন। ভাবতে পারছেন!” বিস্ফারিত চোখে জানিয়েছেন অপারেশন টিমের অভিমন্যুবাবু।

সমস্ত জায়গা অক্ষত রেখে মাংস পিণ্ডটা বের করা গেলেও বাদ দিতে হয়েছে কিডনিটা। তবে তাতেও সুস্থ হয়ে বাঁচতে বিশেষ অসুবিধা হবে না রোগীর। অভিমন্যুবাবু আরো জানিয়েছেন, “চিকিৎসার পরিভাষার এই মাংস পিণ্ডের নাম ‘রেট্রোপেরিটোনিয়াল মাস’। ডানদিকের কিডনি, কোলন, যকৃৎ, ডিওডিনামকে জড়িয়ে ছিল এই মাংসপিণ্ডটা। ’’ এত বড় মাংসপিণ্ড খুব একটা দেখা যায়না বলেই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। পেটের ভিতর ঘাপটি মেরে থেকে প্রয়োজনীয় সমস্ত খাবার শুষে নেয় এই ‘লাম্প’। খাবার খেলেও তাই শরীর ক্রমশ রোগা হতে থাকে। অস্ত্রোপচারের পর আপাতত সুস্থ মাবিয়া। তবে এখনও দিন সাতেক তাঁকে বিশ্রাম নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

(১১ জুলাই ২০১৭ প্রকাশিত সংবাদ)

দেখুন:

আরো সংবাদ