esans aroma gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indir Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien webtekno bodrum villa kiralama
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অবশেষে সেনা আহত হওয়ার স্বীকারোক্তি যুক্তরাষ্ট্রের ইরাকে মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ধূলিসাৎ হওয়া ইরাকের আল আসাদ বিমানঘাঁটি পরিদর্শন করছেন মার্কিন সামরিক কর্মকর্তারা হএএফপি -

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ড গত বৃহস্পতিবার স্বীকার করেছে, ইরাকে মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনায় তাদের অন্তত ১১ সৈন্য আহত হয়েছে। মানসিক চাপে মস্তিষ্কে ক্ষতির লক্ষণ দেখা দেয়ায় তাদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। যদিও এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী বলে আসছিল এই হামলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।
যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন বিল উরবান এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘গত ৮ জানুয়ারি ইরাকে আল আসাদ বিমান ঘাঁটিতে ইরানের হামলায় তাদের কোনো সেনা সদস্য নিহত হয়নি, হামলায় আহত কয়েকজনকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে এবং এখনো ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণের কাজ চলছে।’
‘হামলার পরবর্তী দিনগুলোতে কিছু সেনা সদস্যকে আল আসাদ বিমান ঘাঁটি থেকে সরিয়ে আনা হয়েছে’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ১১ সেনা সদস্যকে জার্মানির ল্যান্ডসতুল রিজিওনাল মেডিক্যাল সেন্টার এবং কুয়েতের ক্যাম্প আরিফজানে পাঠানো হয়েছে।
গত ৮ জানুয়ারি ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার বদলা নিতে ইরাকের মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় তেহরান। দু’টি ঘাঁটিতে অন্তত ২২টি ব্যালিস্টিক মিসাইল ছোড়ে ইরানের সেনাবাহিনী (রেভ্যুলশনারি গার্ড)। এ হামলায় অন্তত ৮০ জন মার্কিন সেনা নিহত হয়েছে বলে ইরানের পক্ষ থেকে দাবি করা হলেও যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে তাদের কোনো সেনা হতাহত হয়নি। তবে এবার অন্তত ১১ জনের চিকিৎসা নেয়া কথা জানা গেল। মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র ক্যাপ্টেন বিল উরবান এক বিবৃতিতে বলেন, আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে ৮ জানুয়ারির ওই হামলায় তাদের কোনো সেনা নিহত হয়নি। বিস্ফোরণে মানসিক চাপে মস্তিষ্কে ক্ষতির কারণে বেশ কয়েকজনকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তাদের পরীক্ষার ভেতর রাখা হয়েছে।
এ ছাড়া সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে বেশ কয়েকজন সেনাকে জার্মানি ও কুয়েতে মার্কিন স্থাপনায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বিল উরবান। তিনি বলেন, দায়িত্ব পালনে উপযুক্ত বলে মনে হলে তাদের আবার ইরাকে ফিরিয়ে আনা হবে।
এর মধ্যে আটজনকে জার্মানি ও তিনজনকে কুয়েত নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ইরাকের আনবার মরুভূমির বিশাল ঘাঁটিতে এখনো প্রায় দেড় হাজারের মতো মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে। ইরানের হামলায় ঘাঁটিটির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে। এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, এই সেনাদের মানসিক সমস্যা হামলার সপ্তাহখানেক পরে দেখা গেছে। প্রাথমিকভাবে তেমন কোনো লক্ষণ ছিল না। তাই তাদের আহত হওয়ার ব্যাপারটি জানতেন না নেতারা।
আট বছর পর জুমার নামাজের ইমামতিতে খামেনি
এ দিকে ক্ষোভে উত্তাল ইরানে গতকাল শুক্রবার নিজেই জুমার নামাজের ইমামতি করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। গত আট বছরের মধ্যেই এবারই প্রথম তিনি জুমা নামাজের ইমামতি করলেন। ইরানের সংবাদ সংস্থা মেহেরের খবরে জানা গেছে, ৮০ বছর বয়সী আয়াতুল্লাহ খামেনি তেহরানের মোসাল্লা মসজিদে জুমার নামাজের ইমামতি করেন। কিন্তু এর সাথে বর্তমান পরিস্থিতির কোনো সম্পর্ক রয়েছে কি না, সে সম্পর্কে কোনো আভাস দেয়া হয়নি। এর আগে ২০১২ সালে বিপ্লবের ৩৩তম বার্ষিকীতে জুমায় ইমামতি করেছিলেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় এ নেতা। তখন আরব বসন্তের প্রভাবে পুরো মধ্যপ্রাচ্য উত্তাল ছিল। জুমার নামাজের এই ইমামতি এক ধরনের প্রতীকী তাৎপর্য বহন করে। ইরানের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ যখন কোনো গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিতে চান, তখনই এ সময়টা বরাদ্দ রাখা হয়। তিনি বলেন, জুমার ইমামতি সাধারণত খুতবা দেয়ার ভালো দক্ষতাসম্পন্ন ধর্মীয় নেতাদেরই দায়িত্ব।
জুমার খুতবায় ইসরাইলকে একটি ক্যান্সারের টিউমার আখ্যায়িত করে কেউ দেশটির বিরোধিতা করলে তাকে সহায়তার ঘোষণা দেন খামেনি। ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর যেকোনো মার্কিন হামলার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ১০ বারের বেশি ধ্বংস হয়ে যাবে। তিনি বলেন, ড্রোন হামলা চালিয়ে কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা মার্কিন প্রশাসনের জন্য লজ্জার। এটি তাদের সন্ত্রাসী চরিত্র। এর আগে এই হত্যাকাণ্ডের কঠিন প্রতিশোধ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। গত ৮ জানুয়ারি ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইরান। ওই হামলার প্রশংসা করে আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বলেন, উদ্ধত শক্তির মুখে থাপ্পড় দেয়ার শক্তি ইরানের রয়েছে। এতে বোঝা যাচ্ছে, আল্লাহ আমাদের সহায়।

 

 


আরো সংবাদ




short haircuts for black women short haircuts for women Ümraniye evden eve nakliyat