১৭ অক্টোবর ২০১৯

চীনের মুসলিম নিপীড়ন গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন : পম্পেও

-

উইঘুর মুসলিমসহ মুসলমানদের ওপর চীনের নিপীড়ন-নির্যাতন ‘মানবাধিকারের গুরুতর লঙ্ঘন’ এবং এ ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র সোচ্চার থাকবে বলে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।
মার্কিন টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পিবিএসের সাথে গত বুধবারের এ সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘এটি যে কেবল মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন তাই নয়, এমন আচরণ করে চীনের কিংবা বিশ্বের কারো কোনো স্বার্থসিদ্ধি হবে বলেও আমরা মনে করি না।’ ১৫ মাস ধরে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে চীনের বাণিজ্যযুদ্ধ চলছে। এর মধ্যে উইঘুর মুসলমানদের দমন-পীড়নের অভিযোগে এ মাসেই চীনের সরকারি-বেসরকারি ২৮টি প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। উপরন্তু উইঘুর নিপীড়নে জড়িত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত চীনা কর্মকর্তাদের ভিসা দেয়ার ক্ষেত্রেও যুক্তরাষ্ট্র গত মঙ্গলবারই বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছে।
চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে বেশির ভাগ উইঘুর মুসলমানের বাস। চীনা কর্তৃপক্ষ সেখানে কয়েকটি ক্যাম্প বানিয়ে উইঘুর মুসলমানদের ধরে নিয়ে গিয়ে নানা অত্যাচার নিপীড়ন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন।
তা ছাড়া জুলাইয়ে জাতিসঙ্ঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ২০টিরও বেশি দেশ উইঘুর ও অন্যান্য মুসলিম জনগোষ্ঠীর ওপর চীনের নিপীড়নের সমালোচনা করে লেখা একটি যৌথ চিঠিতে স্বাক্ষর করে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, ‘আমরা এসব মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা নিয়ে কথা বলে যাবো। আমরা চাই মানবাধিকারের এ বিষয়গুলো যাতে মানবিকভাবে সামাল দেয়া হয়।’

 


আরো সংবাদ

ট্রাম্পের 'অতুলনীয় জ্ঞানের' সিদ্ধান্তে বদলে গেল সিরিয়া যুদ্ধের চিত্র (৩২১৮৮)ভারতের সাথে তোষামোদির সম্পর্ক চাচ্ছে না বিএনপি (১৮৪৫৫)মেডিকেলে চান্স পেলো রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা (১৪৯৪৬)তুরস্ককে নিজ ভূখণ্ডের জন্য লড়াই করতে দিন : ট্রাম্প (১৪৭০৩)আবরারকে টর্চার সেলে ডেকে নিয়েছিল নাজমুস সাদাত : নির্যাতনের ভয়ঙ্কর বর্ণনা (১৩৮১৫)পাকিস্তানকে পানি দেব না : মোদি (১১২৭৪)১১৭ দেশের মধ্যে ১০২ : ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের চেয়ে পিছিয়ে ভারত (৮৯৭০)তুহিনকে বাবার কোলে পরিবারের সদস্যরা হত্যা করেছে : পুলিশ (৮৮৮৫)বাঁচার লড়াই করছে ভারতে জীবন্ত কবর দেয়া মেয়ে শিশুটি (৮৬৮৭)এক ভাই মেডিকেলে আরেক ভাই ঢাবিতে (৮৫২৩)



astropay bozdurmak istiyorum
portugal golden visa