২০ নভেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ইইউকে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে হবে : জাঙ্কার

-

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জিন কাউদ জাঙ্কার বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থনৈতিক শক্তির সাথে সামঞ্জস্য রেখে শক্তিশালী পররাষ্ট্রনীতির মাধ্যমে ইইউকে অবশ্যই একটি শক্তিধর ‘আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়’ হিসেবে কাজ করতে হবে। গতকাল জোটের পার্লামেন্টে তার বার্ষিক ভাষণে এ কথা বলেন।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমেরিকা ফার্স্ট নীতির প্রেক্ষাপটে বাণিজ্য ও মুদ্রা লড়াই দেখা দেয়ার মুখে জাঙ্কার স্ট্রসবার্গ ইইউ পার্লামেন্টে তার ইইউ স্টেট ভাষণকে ব্যবহার করে আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলা ধরে রাখার পক্ষে ভূমিকা পালন করার জন্য গ্রুপটির প্রতি আহ্বান জানান।
ইইউর ২৮ সদস্য একমত হতে না পারায় সংস্থাটি শক্তিশালী কূটনৈতিক উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারে না। এ কারণে তাদের প্রচেষ্টাকে সহজতর করতে জাঙ্কার কিছু পররাষ্ট্রনীতি প্রশ্নে বৈরিতাহীনতার শর্তকে বিলোপ করার পরিকল্পনা করেছেন। বাণিজ্য শূল্ক ও জলবায়ু পরিবর্তন চুক্তির মতো বিভিন্ন বিষয় এবং ইরানের পরমাণু চুক্তি প্রশ্নে ব্রাসেলস ও ওয়াশিংটনের মধ্যে ব্যাপক মতপার্থক্য দেখা দেয়ায় জাঙ্কার বলেন, এখনই আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ইইউর আরো শক্তিশালী ভূমিকা গ্রহণের এখনই উপযুক্ত সময়। ইইউর নির্বাহী ফ্রান্সে পার্লামেন্ট সদস্যদের বলেন, ‘আমরা অবশ্য বৃহত্তর আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়ের ভূমিকা পালন করব। তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ আমরা আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়, আমাদের এখন আরো বৃহত্তর আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়ের ভূমিকা পালন করতে হবে’।
জাঙ্কার বলেন, ইউরোকে বিশ্ব মুদ্রা হিসেবে এগিয়ে নিতে ইইউকে আরো চাপ দিতে হবে। তিনি বলেন, ইউরোপকে তার জ্বালানির ৮০ শতাংশ মূল্য ডলারে শোধ করতে হয় অথচ যুক্তরাষ্ট্র থেকে তারা তাদের জ্বালানির মাত্র দুই শতাংশ আমদানি করে। রিজার্ভ কারেন্সি হিসেবে ইউরোর ভূমিকা ব্রাসেলসের কূটনৈতিক ক্ষমতাকে শক্তিশালী করবে। এতে মার্কিন অবরোধের ক্ষতি কমানোর সুযোগ সৃষ্টি হবে। ইউরোপের বিরোধিতা উপেক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্র ইরান চুক্তি থেকে সরে যায় ও দেশটির ওপর অবরোধ আরোপ করে যা ইইউর বেশ ক্ষতিকর হয়েছে।
অবৈধ অভিবাসী সমস্যা সমাধানের অংশ হিসেবে জাঙ্কার জোটটির সীমান্ত নিরাপত্তা জোরদার করার পরিকল্পনার কথা নিশ্চিত করে বলেন, এ জন্য ২০২০ সালের মধ্যে আরো দশ হাজার সীমান্ত রক্ষী মোতায়েন করা হবে।

 


আরো সংবাদ