২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নওয়াজ শরিফের স্ত্রী কুলসুমের মৃত্যু

-

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের স্ত্রী কুলসুম নওয়াজ আর নেই। গতকাল মঙ্গলবার লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন কুলসুম। নওয়াজ শরিফের ভাই ও পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) প্রধান শাহবাজ শরিফ তিনবারের সাবেক এই ফার্স্ট লেডির মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন। স্বামী ও চার সন্তান রেখে গেছেন তিনি। তার সন্তানরা হলেন হাসান নওয়াজ, হুসাইন নওয়াজ, মরিয়ম নওয়াজ ও আসমা নওয়াজ।
শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকায় মঙ্গলবার সকালের দিকে কুলসুম নওয়াজকে লন্ডনের হার্লি স্ট্রিট ক্লিনিকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। সোমবার রাত থেকে তার অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে; এ সময় তার ফুসফুসে নতুন করে সমস্যা দেখা দেয়। গত বছরের আগস্টে ক্যান্সারের প্রাথমিক স্তর লিম্ফোমায় আক্রান্ত কুলসুমকে চিকিৎসার জন্য লন্ডনে নেয়া হয়। সেখানে বেশ কয়েকবার তার অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। কমপক্ষে পাঁচবার কেমোথেরাপি সেশন পার করেন তিনি। চলতি বছরের জুনে একবার কার্ডিয়াকে আক্রান্ত হওয়ার পর তাকে ভেন্টিলেটরে নেয়া হয়।
গত ১২ জুলাই তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটছে বলে পরিবারের সদস্যরা জানান। পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মরিয়মকে দুর্নীতির দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে ৬ জুলাই রায় ঘোষণা করে দেশটির দুর্নীতিবিরোধী আদালত। রায় ঘোষণার পর ১৩ জুলাই লন্ডন থেকে দেশে ফিরে গ্রেফতার হন নওয়াজ এবং তার মেয়ে মরিয়ম। বর্তমানে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা জেলে বন্দী আছেন তারা।
গত বছর দেশটির সুপ্রিম কোর্ট নওয়াজকে দুর্নীতির দায়ে প্রধানমন্ত্রী পদের অযোগ্য ঘোষণা করে রায় দেয়ার পর লাহোরের এনএ-১২০ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নিয়ে জয়ী হন কুলসুম নওয়াজ। তবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যান তিনি। ১৯৯০-১৯৯৩, ১৯৯৭-১৯৯৯ ও ২০১৩ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত তিনবার ফার্স্ট লেডির দায়িত্ব পালন করেন কুলসুম নওয়াজ। ১৯৫০ সালে লাহোরের এক কাশ্মিরি পরিবারে জন্ম নেন তিনি।


আরো সংবাদ