২৩ জুন ২০১৮

তাইওয়ানে যুক্তরাষ্ট্রের ‘দূতাবাস’ উদ্বোধন

-

২৫ কোটি ৫০ লাখ ডলার ব্যয়ে তাইওয়ানে প্রতিনিধিত্বমূলক কার্যালয় উন্মোচন করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার উদ্বোধন করা এ অফিসকেই দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের একটি ‘মাইলফলক’ হিসেবে দেখছে উভয়প। তাইপের নেইহু জেলায় প্রায় ৬ দশমিক ৫ হেক্টর জমির ওপর নির্মিত নতুন এআইটি (আমেরিকান ইনস্টিটিউট ইন তাইওয়ান) হতে যাচ্ছে তাইওয়ানে ওয়াশিংটনের ডি ফ্যাক্টো দূতাবাস।
চীনের কূটনৈতিক পদপে ও সামরিক হুমকির মুখে তাইওয়ানের সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করার দিকে এগোচ্ছে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। ১৯৭৯ সালে তাইপের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ত্যাগ করলেও দেশটির ঘনিষ্ঠ মিত্র ও একমাত্র অস্ত্র সরবরাহকারীর ভূমিকা পালন করে আসছিল ওয়াশিংটন। কূটনৈতিক সম্পর্কচ্ছেদ-পরবর্তী সময়ে কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য এআইটি প্রতিষ্ঠা করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। এআইটির তাইপে অফিসে প্রায় ৫০০ আমেরিকান ও স্থানীয় কর্মী কর্মরত আছেন। এ ছাড়া কাওশিওং শাখায় ৩০ জনেরও বেশি কর্মী কর্মরত আছেন। গত মার্চে দ্বীপরাষ্ট্রটিতে মার্কিন কর্মকর্তাদের ভ্রমণ অনুমোদন করেছিলেন ট্রাম্প। এর জবাবে ‘নিজেদের ভুল শুধরানোর জন্য’ ওয়াশিংটনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল বেইজিং। মঙ্গলবার তাইপেতে মার্কিন প্রতিনিধিত্বমূলক অফিস উদ্বোধন করেন যুক্তরাষ্ট্রের শিা ও সংস্কৃতিবিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি ম্যারি রয়েস। বেইজিং তার প্রতিক্রিয়ায় জানায়, তারা ওয়াশিংটনের কাছে আনুষ্ঠানিক কূটনৈতিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইংওয়েন এ কমপ্লেক্স ভবন উদ্বোধনের ঘটনাটিকে দুই দেশের ‘গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্ক’ স্থাপনে প্রতিশ্রুতির পুনরাবৃত্তি হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি আরো বলেন, ‘তাইওয়ান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার সম্পর্ক এর আগে কখনো এ রকম সম্ভাবনাময় ছিল না।’ তাইওয়ান প্রেসিডেন্টের এমন উক্তি যে বেইজিংকে ুব্ধ করবে, তা বলাই বাহুল্য। তবে বর্তমানে সে বিষয়ে ভীত মনে হচ্ছে না তাইওয়ান প্রেসিডেন্টকে। তিনি মনে করেন, যত দিন পর্যন্ত দুইপ পাশাপাশি থাকবে, তত দিন তাদের মধ্যে কোনো প্রতিবন্ধকতা থাকবে না। যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি ম্যারি রয়েস বলেন, ‘এআইটির নতুন এ ভবনটি আমাদের মধ্যকার দৃঢ় সম্পর্কের দৃষ্টিগ্রাহ্য প্রতীক। এর মাধ্যমে আগামী দিনগুলোয়, আগামী বছরগুলোয় আরো বৃহৎ সহযোগিতা সম্ভব হবে।’
উল্লেখ্য, ম্যারি রয়েস হচ্ছেন তাইওয়ানপন্থী হিসেবে পরিচিত ও কংগ্রেসের পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান এড রয়েসের স্ত্রী। এআইটি চেয়ারম্যান জেমস মরিয়ার্টি নতুন কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ যুক্তরাষ্ট্র-তাইওয়ান সম্পর্কের ‘মাইলফলক’ এবং ‘তাইওয়ানের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের দৃঢ় প্রতিশ্রুতির স্বার’ হিসেবে অভিহিত করেছেন।


আরো সংবাদ