Naya Diganta

ডিএনসিসির জরিপ কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণার দায়ে আটক ১

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আমিনুল ইসলামের নামের সাথে তার নামের কিছুটা মিল আছে। তাই নিজেকে ওই বিভাগের জরিপ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে তিনি মানুষের সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণা করে আসছিলেন। বিষয়টি জানতে পেরে গুলশান থানায় সাধারণ ডায়রি করে ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা। অবশেষে গত বুধবার আমিন মিয়া (৪৭) নামে ওই প্রতারক পুলিশের হাতে বন্দী হয়েছে।
সম্প্রতি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা জানতে পারেন এক ব্যক্তি সংস্থার প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো: আমিনুল ইসলামের নাম ব্যবহার করে এবং ওই বিভাগের জরিপ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে মানুষের সাথে প্রতারণা করছে। বিশেষ করে ট্রেড লাইসেন্স করে দেয়ার আশ্বাস দিয়ে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। অসীম কর্মকার নামে এক ভুক্তভোগী ডিএনসিসি অফিসে জানান, মো: আমিনুল ইসলাম (আমিন), জরিপ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে তার কাছ থেকে ট্রেড লাইসেন্স করিয়ে দেয়ার কথা বলে ছয় হাজার টাকা নেন। অনেকদিন পার হলেও তাকে কোনো ট্রেড লাইসেন্স দেয়া হয়নি, এমনকি তিনি ফোনও রিসিভ করেন না। তখন সম্পত্তি বিভাগ হতে জানানো হয়, এ নামে ডিএনসিসিতে কোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারী নেই। যদি কখনো তার সন্ধান পাওয়া যায় তাহলে ডিএনসিসিকে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়। এ ছাড়া ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো: আমিনুল ইসলাম গত ১৬ সেপ্টেম্বর গুলশান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেন।
এর মধ্যে ডিএনসিসিতে অভিযোগকারী অসীম কর্মকার গত বুধবার সকাল ১০টার দিকে ডিএনসিসিকে জানান, মো: আমিনুল ইসলাম (আমিন) নামে ওই ব্যক্তি বাড্ডা থানা এলাকার পূর্ববাড্ডা ইউসেপ স্কুলের পাশে একটি ফার্মেসিতে অবস্থান করছে। ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা সাথে সাথে বাড্ডা থানা পুলিশকে বিষয়টি আবহিত করেন। বাড্ডা থানার পুলিশ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্কুলের সামনে গিয়ে তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছ থেকে ‘মো: আমিনুল ইসলাম (আমিন), জরিপ কর্মকর্তা, সম্পত্তি বিভাগ, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন’ পরিচয়ের একটি কার্ড পুলিশ জব্দ করে। তার বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই প্রতারক নিজের প্রকৃত নাম হিসেবে মো: আমিন মিয়া বলে জানিয়েছে। তার বাবার নাম মো: আব্দুর রশিদ, মা আনোয়ারা বেগম, গ্রাম দখীগঞ্জ, থানা কোতোয়ালি, জেলা রংপুর। বর্তমানে তিনি ঢাকার হাতিরঝিল থানার পশ্চিম উলন (মৃত হায়দার আলীর বাড়ি) বসবাস করেন। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পুলিশ প্রতারক আমিন মিয়াকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।