Naya Diganta

বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী জিম্বাবুয়ে

হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

নানা প্রতিকূলতার মাঝেও ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নিচ্ছে জিম্বাবুয়ে। ক্রিকেটে বাংলাদেশের একসময়ের বন্ধুতূল্য দেশটিকে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) বরখাস্ত করার পর বেশ নাজুক অবস্থায় রয়েছে দলটি। তবে সেসব চাপের ধার না ধরে জয় তুলে নেয়ার ব্যাপারেই আশাবাদী দলটির অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে জিম্বাবুয়ের ত্রিদেশীয় সিরিজ। ম্যাচের আগের দিন মিরপুরে অনুশীলন করে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছে সফরকারীরা। এর আগে প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের বিপক্ষে জয়ও পেয়েছে তারা। তাই সিরিজ শুরুর আগে দলটি বেশ আত্মবিশ্বাসী।

সাম্প্রতিক ফর্ম ও অবস্থান বিবেচনায় জিম্বাবুয়ের চেয়ে অনেকটা এগিয়ে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। সে হিসেবে সিরিজের ‘আন্ডারডগ’ বলা যায় জিম্বাবুয়েকেই। কিন্তু দুই প্রতিপক্ষের শক্তিমত্তা নিয়ে সন্দেহ না থাকলেও নিজেদেরও খুব একটা পিছিয়ে রাখছেন না হ্যামিল্টন মাসাকাদজা।

ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক বলেন, ‘আফগানিস্তান দারুণ টি-টোয়েন্টি খেলছে। আর বাংলাদেশ খেলবে ঘরের মাটিতে। আমি বলব দুটো দলই শক্তিশালী। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে আমাদেরও সাফল্য আছে। আমার মনে হয় বাংলাদেশে (অতীতে) আমরা বেশ ভালো টি-টোয়েন্টি খেলেছি। অতএব আমার মনে হয় না যে আমরা অনেক পিছিয়ে থেকে টুর্নামেন্ট শুরু করবো।’

ক্রিকেট বোর্ড বিলুপ্তির পর প্রথম কোনো ম্যাচ খেলতে নামবে জিম্বাবুয়ে দল। তবে মাঠের বাইরের বিষয়ে দৃষ্টি না দিয়ে মাঠের ক্রিকেটেই মনোযোগী হতে চান মাসাকাদজা, ‘অবশ্যই অনেক ঘটনা ঘটে গেছে। এটা পর্দার আড়ালের ঘটনা। কিন্তু ক্রিকেট আমাদের পেশা। আমার জেনে দরকার নেই ওখানে কি হয়েছে। আমাদের প্রধান কাজ ক্রিকেট খেলা। এবং সেটা ভেবেই শ্রক্রবার থেকে দেশের জন্য আমাদের কাজটি শুরু করতে চাই।’

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটটা সংক্ষিপ্ত বলেই জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক মনে করেন এই ফরম্যাটে যেকোনো দলকেই হারানো সম্ভব। তিনি জানান, ‘ম্যাচের ফরম্যাট যত ছোট হবে দলগুলোর ব্যবধান ততই কমে আসবে। টি-টোয়েন্টি খেলাটি এমন যে একাই ম্যাচটি টেনে নিতে পারে ও ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। এই রকম খেলোয়াড় আপনার দরকার যে একাই খেলাটি আপনার দিকে এনে দিতে পারে।’