Naya Diganta

আজ আফগান ফুটবল শক্তির সামনে বাংলাদেশ

ক্রিকেটে আফগানিস্তানের কাছে হারের বদলা কী নিতে পারবে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল? গতকাল চট্টগ্রাম টেস্টে রশিদ খানদের কাছে নাস্তানাবুদ টাইগাররা। সেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে আজ ফুটবল যুদ্ধ জামাল ভূঁইয়াদের। আফগানদের হোম ভেনু তাজিকিস্তান। দেশটির রাজধানী দুশানবের সেন্ট্রাল রিপাবলিকান স্টেডিয়ামে টার্ফের মাঠে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় ২০২২ কাতার বিশ্বকাপের এই বাছাই পর্বের ম্যাচ। জেমি ডে’র শিষ্যদের পক্ষে কি সম্ভব হবে ৩৯ বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটানো। দীর্ঘ যুদ্ধে বিপর্যস্ত দেশটি নিজ মাঠে খেলতে পারে না নিরাপত্তার অভাবে। প্রবাসী ফুটবলারদের নিয়ে গড়া দলটি এরপরও ফুটবলে তাদের দাপট দেখিয়ে চলছে। তাই ফিফা র্যাংকিংয়ে ১৪৯ এ অবস্থান আফগানিস্তানের। বিপরীতে লাল সবুজরা আছে ১৮২। র্যাংকিংয়ের এই বিস্তর ফারাকের সাথে যোগ হয়েছে দীর্ঘ সময় ধরে দলটির বিপক্ষে জিততে না পারার কষ্ট। এই নেতিবাচক অবস্থা থেকে বেরিয়ে এবার জয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরুর লক্ষ্য বাংলাদেশের। আফগানিস্তান অবশ্য বাছাই পর্বের প্রথম ম্যাচে ০-৬ গোলে হারে কাতারের কাছে। বিপরীতে বাংলাদেশের আজই প্রথম ম্যাচ। আজ গ্রুপের অন্য ম্যাচে আগামী বিশ্বকাপের স্বাগতিকদের সামনে ভারত। গত ম্যাচে তারা ১-২ গোলে পরাজিত ওমানের কাছে।
এই পর্যন্ত ছয়বার আন্তর্জাতিক ফুটবলে দেখা বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তানের। এতে দুই দলেরই জয়ের পাল্লা সমান। একটি করে ম্যাচ জিতেছে তারা। সর্বশেষ মোকাবেলায় আফগানরা ৪-০তে হারের লজ্জা দেয় মারুফুল হকের দলকে। ২০১৫-এর কেরালা সাফে সেই হার। আর বাংলাদেশ জিতেছে সেই ১৯৭৯ সালে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত এশিয়ান কাপের বাছাই পর্বের ফিরতি ম্যাচে লাল সবুজরা ৪-১ গোলে জিতেছিল আফগানদের বিপক্ষে। অবশ্য প্রথম পর্বের ম্যাচে খেলা শেষের বাঁশি বাজে ২-২ স্কোল লাইন নিয়ে। মাঝে ২০০৮ থেকে ২০১৫-এ রাশিয়া বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত তিনবার সাক্ষাৎ উভয় দলের। এতে কেউ জেতেনি। ২০০৮-এ কিরগিজস্তানে অনুষ্ঠিত এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপের বাছাই পর্বে গোল শূন্যতে শেষ হয় দুই দলের ম্যাচ। ২০০৮ এর কলম্বো-মালে সাফে ২-২ গোলে ড্র। দুই গোলে পিছিয়েও এক পয়েন্ট নিশ্চিত আবু ইউসুফের দলের। ২০১৫ বিশ্বকাপ বাছাইয়ের আগে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ফিফা প্রস্তুতি ম্যাচে ১-১-এ খেলা শেষ।
বর্তমান আফগানিস্তান দল ইউরোপ এবং আমেরিকায় খেলা প্রবাসীদের নিয়ে গড়া। সেখানে বাংলাদেশের প্রবাসী ফুটবলার একজনই। সেই জামাল ভূঁইয়া অবশ্য ছয় বছর ধরে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলে স্থানীয়ওই হয়ে গেছেন। আফগানদের মোকাবেলার আগে বাংলাদেশ দল দু’টি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে তাজিকিস্তান প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব এফসি কুকতোস এবং সিএসকেএ পামিরেরর বিপক্ষে। তাতে একটিতেও জেতা হয়নি জামাল-জেমি ডে-দের। প্রথমটিতে ০-২তে হার। পরের ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র।
কাল ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে আজকের প্রতিপক্ষের শক্তিমত্তা স্বীকার করেই উল্লেখ করেন, ‘বেশ টাফ ম্যাচ হবে এটি। আফগানদের বেশির ভাগ ফুটবলারই ইউরোপে খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন। এরপরও আমাদের পরিকল্পনা ইতিবাচক। প্রস্তুতি ম্যাচে ফুটবলারদের পারফরম্যান্সে আমি খুব খুশি।’ তার মতে, বর্তমান বাংলাদেশ দল বেশ ভালো। তাদের গত কয়েক মাসে তাদের বেশ কিছু ভালো রেজাল্ট আছে। তাই আজে সেরাটা দিয়েই আফগানিস্তানের বিপক্ষে ভালো করতে চাই।’ বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াও মেনে নিলেন, আফগানদের কাগজে-কলমে এগিয়ে। তার মতে, ‘আফগানিস্তান বেশ শক্তিশালী দল। তাদের বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ হবে।’ ডেনমার্ক প্রবাসী এই ফুটবলার যোগ করেন, আমরা ১০ দিন ধরে তাজিকিস্তানে অবস্থান করছি। তা যথাযথ প্রস্তুতির অংশ হিসেবেই। এখন আমরা প্রস্তুত আফগানদের হারিয়ে পূর্ণ পয়েন্ট ছিনিয়ে নিতে। খেলা দেখাবে বাংলা টিভি।
আফগানিস্তানের কোচ আনউস দস্তগীরের বক্তব্য, ‘কাতারের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের তুলনায় ভিন্ন আজকেই এই ম্যাচ। বাংলাদেশ বেশ ভালো দল। তাদের বিদেশী কোচ। স্থানীয় লিগে খেলা সেরা ফুটবলাদের নিয়ে গড়া তারা।’ জানান, ‘বাংলাদেশের বিপক্ষে আমাদের মাত্র একটি জয়। তাই কোনোভাবেই বলা যাচ্ছে না আজ কোন দল ফেবারিট। তবে আমরা বাংলাদেশের চেয়ে শারীরিকভাবে, ট্যাকটিক্যালি এগিয়ে রয়েছি।’ দলের অধিনায়ক ফারসাদ নূর জানান, আকর্ষণীয় ম্যাচই হবে আজ। আমাদের আক্রমণভাগ বেশ ভালো। লক্ষ্য একটাই এই ম্যাচে জয়।
বাংলাদেশ-আফগানিস্তান হেড টু হেড
১৯৭৯ এশিয়ান কাপ বাছাই
বাংলাদেশ ২-২ আফগানিস্তান
বাংলাদেশ ৪-১ আফগানিস্তান
২০০৮ এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপ
বাংলাদেশ ০-০ আফগানিস্তান
২০০৮ সাফ ফুটবল
বাংলাদেশ ২-২ আফগানিস্তান
২০১৫ ফিফা প্রীতি ম্যাচ
বাংলাদেশ ১-১ আফগানিস্তান
২০১৫ সাফ ফুটবল
বাংলাদেশ ০-৪ আফগানিস্তান